দুবাই নয়! আইপিএল ২০১৯ হতে পারে এই দেশে!

পরের বছরের আইপিএল সাধারণ নির্বাচনের কারণে যে ভারতে হবে না তা সকলেরই প্রায় জানা ছিল। এখন জানা যাচ্ছে যে, ২০১৯ সালের আইপিএলের গোটা টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে দক্ষিণ আফ্রিকাতেই। অবশ্য এর আগেই আইপিএলের হোস্ট হওয়ার অভিজ্ঞতা রয়েছে দেশটির। ২০০৯ সালের আইপিএল-ও নির্বাচনের কারণেই দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠিত হয়। একইভাবে ২০১৪ সালের আইপিএলের অর্ধেক টুর্নামেন্টও হচ্ছিল দেশের বাইরেই।

সেইবার সংযুক্ত আরব আমিরশাহি ছিল স্বাগতিক দেশ। ভারতে সাধারণ নির্বাচনের সময় আইপিএলের জন্য যথাযথ নিরাপত্তা দিতে না পারার কারণেই ভারতের ক্রিকেট বোর্ডকে বারবার এই সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে। ২০১৯ সালের এপ্রিল-মে মাসে হবে এই নির্বাচন। তবে আরব আমিরশাহিকেও বিকল্প হিসাবে বিবেচনা করছে বিসিসিআই। ক্রিকেটের বিশ্বকাপ শুরু হচ্ছে ওই বছরেরই ৩০ মে, তাই স্বভাবতই আইপিএল কে আরও এগোতেই হতো।

একটা টুর্নামেন্টে প্লেয়ারদের যদি বারবার বিভিন্ন পরিস্থিতিতে খেলতে হয়, তবে অবশ্যই অসুবিধা হওয়ার কথা। এই কথা ভেবেই বিসিসিআই চাইছে যে পূরো টর্নামেন্ট একই দেশে অনুষ্ঠিত হোক।এই কারণেই দক্ষিণ আফ্রিকার যেহেতু ২০০৯ সালে গোটা টুর্নামেন্ট আয়োজন করার অভিজ্ঞতা রয়েছে, তাই এই দেশ সম্ভাব্য আয়োজকদের তালিকায় প্রথমে রয়েছে। বিসিসিআই এই সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করলে সবচেয়ে খুশি অবশ্য হবে দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট বোর্ড। দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটের জৌলুশ আগের তুলনায় বেশ কমেই গেছে, মাঠে কোনও খেলা অনুষ্ঠিত হলে সেখানেও লোকসংখ্যা এখন কম।

তাই সেখানকার ক্রিকেট বোর্ডেরও এই বিশ্বাস যে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ তাদের দেশের ক্রিকেটের হারানো জৌলুশ ফিরিয়ে আনবে। দক্ষিন আফিকার ক্রিকেট সংবাদমাধ্যমের দাবি, ‘আইপিএল-এর চেয়ে বড় কোনও টুর্নামেন্ট যদি দক্ষিণ আফিকায় হয়ে থাকে, তবে সেটা ফিফা বিশ্বকাপ ২০১০। এমনকি ২০০৩ এর ক্রিকেট বিশ্বকাপের উন্মাদনাকেও পিছনে ফেলে দিয়েছিল ২০০৯ সালের সেই আইপিএল।’ তবে ইতিমধ্যে পাকিস্থান সুপার লিগের হোস্টও সংযুক্ত আরব আমিরশাহি। পিএসএলের শেষ ম্যাচ এবং আইপিএল এর প্রথম ম্যাচের মধ্যে দিনের তফাৎ খুবই কম। তাই এই দেশের এবছরের আইপিএল হোস্ট করার সম্ভাবনা অবশ্যই কম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: