ছেলের বিশ্বরেকর্ডীয় কৃতিত্বে গর্বিত রোহিত জননী পূর্ণিমা শর্মা

শচীন তেন্ডুলকরের পর ভারতীয় ক্রিকেটের নেক্সট বিগ থিং ছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। আর তারপর ভারতীয় ক্রিকেটের নেক্সট বিগ থিং রোহিত শর্মা। লাইমলাইট মুম্বই থেকে রাঁচি হয়ে আবার সেই মুম্বইতেই ফিরেছে। ভারতীয় ক্রিকেটে মুম্বই ঘরানার ইতিহাস বেশ ঐতিহ্যমণ্ডিত। বেশি দূর যেতে হবে না ইতিহাসের পাতায়। সুনীল গাভাস্কার থেকে শুরু করুন। সত্তর-আশির দশকে ভারতীয় ক্রিকেটকে বিশ্ব ক্রিকেটের মানচিত্রে পরিচিত করার সূচনা সানির হাত ধরেই। তারপর শচীন ক্রিকেট বিশ্বকে নিজের সামনে নতজানু করে ছাড়লেন। এরপর ধোনি। রাঁচির ছেলে সমগ্র ক্রিকেট বিশ্বকে জয় করলেন। আর এখন মুম্বইকর রোহিত। হিটম্যান এখন ভবিষ্যতের লেজেন্ড হওয়ার পথে। মুম্বই ঘরানার ঐতিহ্য যোগ্য ব্যক্তির হাতেই সুরক্ষিত।


গত বুধবার (১৩ ডিসেম্বর) চলতি একদিনের আন্তর্জাতিক সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে পাঞ্জাবের মোহালিতে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে আবার ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন ভারতীয় দলের অস্থায়ী অধিনায়ক। তিনটি ডাবল সেঞ্চুরি একদিনের ক্রিকেটে। এমন কৃতিত্ব বিশ্বের আর কোনও ক্রিকেটারের নেই। লঙ্কানদের বিরুদ্ধে অপরাজিত ২০৮ রান ১৫১ বলে। এর মধ্যে আবার ১২টি ছয় রয়েছে। রোহিত একেবারে ঠান্ডা মাথার খুনি। ধীরস্থির চলন দেখে কে বলবে, ওই ক্রিকেটারটাই মাঠে নেমে লঙ্কাকাণ্ড বাঁধিয়ে দেন।


ভারতীয় দলের নেতা হিসেবে ধরমশালায় প্রথম ম্যাচটা ভালো কাটেনি। দ্বিতীয় ম্যাচেই তার বদলা নিয়ে নেন হিটম্যান। আইপিএল ক্রিকেটের সবচেয়ে সফল নেতা এখন অস্থায়ী অধিনায়ক ভারতীয় ক্রিকেট দলের। ভবিষ্যতে ভারতীয় দলের নিয়মিত অধিনায়ক হওয়ার জন্য এখন থেকেই চিহ্নিত। চাপটাকে রোহিত রাজকীয় মেজাজে পিটিয়ে ঠান্ডা করতে জানেন। তাঁর ওই ২০৮ রানের অপরাজিত ইনিংসটা ভারতীয় দলকে পঁচিশতমবার একদিনের ক্রিকেটে সাড়ে তিনশো রান পার করতে সাহায্য করে। আর শ্রীলঙ্কা তা তাড়া করতে নেমে সবকটি উইকেট না হারালেও ২৫১ রান পর্যন্তই এগোতে পারে। ১৪১ রানে জয়ের পর নেতা রোহিতের ওই ইনিংস ইন্টারনেটে শুভেচ্ছা আর কুর্নিশের বন্যা বইয়ে দিয়েছে।

পূর্ণিমা শর্মা ভারতীয় ক্রিকেটের ভবিষ্যৎ কিংবদন্তির জননী। ছেলের এমন বিরল কৃতিত্বে তিনিই তো সবচেয়ে বেশি খুশি হবেন। আর হয়েছেনও। রোহিতের কৃতিত্বে গোটা শর্মা পরিবার গর্বিত। আর এমন দিনে ওয়ান-ডে ক্রিকেটে তৃতীয় ডাবল সেঞ্চুরিটি করেন রোহিত, সেদিন আবার তাঁর বিবাহ বার্ষিকী ছিল। স্ত্রীকে এর চেয়ে আর কি ভালো উপহার দিতে পারেন কোনও স্বামী! ঋতিকার নানান আবেগ সেদিন মাঠে ধরা পড়েছে ক্যামেরায়।

ছেলের কৃত্বিত্বে কতটা আনন্দিত পূর্ণিমা শর্মা তা তাঁর মুখেই শুনে নিন। ”আমরা খুব খুশি। অত্যন্ত গর্বিত। ছেলে ডাবল সেঞ্চুরি করেছে। ওর বিবাহবার্ষিকীর দিন। খুশিটা দ্বিগুন করে দিয়েছে।”

ছেলে ভারতীয় দলকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। যোগ্য সেনাপতির মতো দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়া। কি বলছেন মা?
”আমরা অবাক হয়ে গিয়েছিলাম। সেঞ্চুরি করার পর ও যে গতিতে খেলা শুরু করল। দেড়শো রানে কত তাড়াতাড়ি পৌঁছে যায়। তারপর আরও তাড়াতাড়ি দু’শো রানে। চার-ছয় মেরেই যাচ্ছিল।” রোহিত জননী এরপর বলেন, ”ছেলে ভারতীয় দলের নেতা হয়েছে মা হিসেবে আমি গর্বিত। কিন্তু, তার চেয়ে অনেক গুন বেশি গর্বিত ওর ইনিংস দলকে জিতিয়েছে।”

শর্মা পরিবারে আর্থিক স্বচ্ছলতা এনেছে রোহিতের ক্রিকেট খেলা। মা বলছেন,

”অনেক কঠিন সময় দেখেছি আমরা। রোহিতের কারণে আজ আমরা এখানে আসতে পেরেছি। ওর সাফল্য আমাদের পরিবারকে অনেক কিছু দিয়েছে। ওর করা তিনটে ডাবল সেঞ্চুরি অনন্য কৃতিত্ব।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: