চলে গেলেন ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক, শোকের ছায়া ক্রিকেট মহলে!

বুধবারের রাত পের করে ঘড়ির কাঁটা বারোটা বাজার অপেক্ষা, বৃহস্পতিবারকে স্বাগত জানাতে। ঠিক সময়েই খারাপ খবরটা এলো। আমাদের মাঝে আর নেই ভারতের এক উজ্জ্বল ক্রিকেট ব্যক্তিত্ব। ভারতীয় ক্রিকেট ইতিহাসের কিংবদন্তি ব্যক্তিত্ব অজিত ওয়াদেকর মুম্বইয়ের যশলোক হাসাপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৭ বছর। রিপোর্টে প্রকাশ, ভারতীয় দলের প্রাক্তন অধিনায়ক ওয়াদেরকর দীর্ঘদিন ধরে ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন। ভুগছিলেন বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন অসুখেও। ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার পরও ভারতীয় ক্রিকেটের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন জাতীয় নির্বাচক হিসেবে। ১৯৯০ সালে ভারতীয় দলের ম্যানেজারের কাজও করেছেন তিনি।

তাঁর সময়ে ওয়াদেকর অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান ছিলেন। প্রকৃত মানুষ হিসেবেও শ্রদ্ধেয় ছিলেন এই সৎ চরিত্রের ক্রিকেটার। ভারতীয় ক্রিকেটে তিনি চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন একজন কেতাদুরন্ত ব্যাটসম্যান হিসেবে। তাঁর অবদান ছিল অপরিসীম। ওয়াদেকরের নেতৃত্বে ১৯৭১ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং ইংল্যান্ডের মাটিতে ভারতের জয় সোনালি অক্ষরে লেখা রয়েছে।

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে এই মুম্বইকরের ডেবিউ ১৯৫৮-৫৯ সালে। তবে, জাতীয় দলে ডাক পেতে আট বছর অপেক্ষা করতে হয়েছিল। বরাবরই মুম্বই ঘরানা বড় মাপের ব্যাটসম্যান উপহার দিয়ে এসেছে। ওয়াদেরকর সেই ঘরানার অন্যতম পথিকৃৎ ছিলেন ষাটের দশকে। বড় মঞ্চে আসার আগে ঘরোয়া ক্রিকেটে দাপটে ক্রিকেট খেলে ভিতটাও সেরকমই মজবুত করেছিলেন। ভারতের হয়ে টেস্টের আসরে ডেবিউ করেন ১৯৬৬ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে। তাও আবার নিজের ঘরের মাঠে, মুম্বইতে। জাতীয় দলে আসার পর আন্তর্জাতিক মঞ্চে দাগ কাটতে সময় লাগেনি। ওয়াদেকরের ব্যাটিং দক্ষতা সে সময়কার ক্রিকেট বোদ্ধাদের দারুণভাবে মুগ্ধ করে এবং অল্প সময়ের মধ্যে ভারতীয় ব্যাটিংয়ের মূল স্তম্ভ হয়ে ওঠেন তিনি।

ভারতের হয়ে ব্যাটিং করতেন তিন নম্বর পজিশনে। ক্রিকেট ইতিহাসে ভারতের এই উজ্জ্বলতম প্রতিভা তিন নম্বর পজিশনে অন্যতম সেরা পারফর্মার হিসেবে বিবেচ্য হন আজও। স্লিপ ফিল্ডার হিসেবেও তাঁর খ্যাতি ছিল আন্তর্জাতিক আসরে।

মনসুর আলি খান পতৌদির হাত থেকে ওয়াদেকরের হাতে ভারতীয় দলের নেতৃত্বভার ওঠে ১৯৭১ সালে। পরিকল্পনা নিয়ে ক্রিকেট খেলার জন্য সুখ্যাতি ছিল আগে থেকেই। ফলে, জাতীয় দলের হাল ধরতে খুব একটা সমস্যায় পড়তে হয়নি তাঁকে। ব্যক্তিত্বও ছিল তেমন দৃঢ়চেতা। ভাগ্য অবশ্যই সাহায্য করেছিল তাঁকে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ইংল্যান্ডের মতো দলকে তাদের মাটিতে গিয়ে হারিয়ে আসা, সে সময় অন্যতম বড় সাফল্য ভারতীয় ক্রিকেটের। ১৯৭৪ সাল পর্যন্ত ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়কত্ব করেন ওয়াদেকর।

১৯৬৬ সালে টেস্টের আসরে অভিষেকের পর দেশের হয়ে ৩৭টি টেস্ট ম্যাচ খেলেন অজিত ওয়াদেকর। অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ – এই চারটি টিমের বিরুদ্ধে ক্রিকেট খেলেছেন তিনি। টেস্টের আসরে ওয়াদেকরের রান ২১১৩। কিউয়ি টিমের বিরুদ্ধে ১৪৩ রান, তাঁর কেরিয়ারের সেরা স্কোর।

১৯৭৪ সালে ভারতীয় ক্রিকেট দল প্রথমবার ওডিআই আসরে অংশ নেয়। সেই ম্যাচে খেলেছিলেন ওয়াদেকর। দেশের হয়ে তাঁর ওডিআই ম্যাচ সংখ্যা ২টি।

ভারতীয় ক্রিকেট ইতিহাসে ওয়াদেকর সেই সমস্ত হাতে গোনা ব্যক্তিত্বের মধ্যে পড়েন, যিনি একাধারে জাতীয় দলের হয়ে টেস্ট ক্রিকেট খেলেছেন, অধিনায়কত্ব করেছেন, কোচ বা ম্যানেজারের পদ সামলেছেন আবার নির্বাচক মণ্ডলীর চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেছেন।

১৯৬৭ সালে ভারত সরকার ওয়াদেকরকে অর্জুন পুরস্কার প্রদাণ করে ক্রিকেটে অসামান্য অবদানের জন্য। ১৯৭২ সালে ভূষিত হন পদ্মশ্রী পুরস্কারে। এছাড়া, সিকে নাইডু জীবনকৃতী পুরস্কারেও সম্মানিত হয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেটের এই প্রবাদপ্রতিম চরিত্র।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: