শুধু ক্রিকেট নয়, ফুটবল, হকি আরও অনেক কিছুতেই বিশেষ জ্ঞান রয়েছে ময়ন্তীর, সেরকম কিছু অজানা তথ্য রইল…

টেলিভিশন চ্যানেলে এখন ক্রীড়া সাংবাদিকদের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় কেউ যদি থেকে থাকেন, তিনি ময়ন্তী ল্যাঙ্গার। শুধুমাত্র সৌন্দর্যতা নয়, ময়ন্তীর ক্রিকেট নিয়ে প্রচুর জ্ঞান রয়েছে। শুধু ক্রিকেট বললে ভুল হবে, অনেক খেলা নিয়েই চর্চা করেন এই ক্রীড়া সাংবাদিক। বর্তমানে স্টার স্পোর্টসের হয়ে কাজ করেন ময়ন্তী। বলতে গেলে ক্রিকেট ম্যাচ শুরু আগে বেশিরভাগ অনুরাগী তাঁরই কারণে আগেভাগেই চোখ রাখেন টিভির পর্দায়। আবার ম্যাচ শেষ হয়ে যাওয়ার পরও টিভির পর্দায় লাখো লাখো মানুষের চোখে আটকে থাকার কারণ ময়ন্তীই। তাঁর ওই সুক্ষ বিশ্লেষণ আর অসামান্য জ্ঞান তাঁকে টেলিভিশনের পর্দায় আরও বেশি করে জনপ্রিয় করে তুলেছে। জোর করে নয় বা সুন্দরী মুখ দেখার জন্য নয়, ময়ন্তীর সঞ্চালিত অনুষ্ঠান ক্রীড়ামোদীরা দেখেন জ্ঞান আহরণের জন্য। এমন গুনবতী মহিলাটির আরও অনেক অজানা দিক রয়েছে, যার সবটুকু অনেকেই জানেন না। সেসব দিকগুলিই পাঠককে জানানোর চেষ্টা করা হলো।

ময়ন্তীর অজানা তথ্য –

১. ময়ন্তীর জন্ম ১৯৮৫ সালে ৮ ফেব্রুয়ারি দিল্লিতে। বাবা লেফ্টেনেন্ট জেনারেল সঞ্জীব ল্যাঙ্গার। তিনি রাষ্ট্রসঙ্ঘের হয়েও কাজ করেছেন। মা প্রেমিন্ডা ল্যাঙ্গার। বাবা-মা তাঁদের আদরের মেয়েকে মায়া বলেও ডাকেন। দিল্লির হিন্দু কলেজ থেকে বিএ অনার্স গ্র্যাজুয়েট।

২. ময়ন্তীর জীবনের প্রথম ইচ্ছে ছিল গ্রাফিক ডিজাইনার হওয়ার। পরে সেটা ক্রীড়া সংবাদের দিকে মোড় নেয়। জি স্পোর্টসের হয়ে ফুটবল ক্যাফে নামে প্রথম অনুষ্ঠান সঞ্চালনা। সেই অনুষ্ঠানের সফলতাই ক্রীড়া সাংবাদিকতার দিকে আরও ঠেলে দেয় ময়ন্তীকে।

৩. সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে ভীষণ পপুলার। মাইক্রোব্লগিং সাইট ট্যুইটারে ময়ন্তীর ফলোয়ার সংখ্যা এক লক্ষ ৫ হাজারের বেশি। উল্টোদিকে ময়ন্তী মাত্র ৫৫ জনকে ফলো করেন। ইনস্টাগ্রামে ফলোয়ার সংখ্যা ২ লক্ষ ১৬ হাজারের মতো। আর ময়ন্তী ফলো করেন ১৪৬ জনকে।

৪. আইপিএল এবং ঘরোয়া ক্রিকেটার স্টার ক্রিকেটার স্টুয়ার্ট বিন্নিকে বিয়ে করেছেন ময়ন্তী। ছ’বছর হয়ে গিয়েছে তাঁদের বিয়ের। অনেকেই জানেন না, স্টুয়ার্টের চেয়ে চার মাসের বড়ো ময়ন্তী ল্যাঙ্গার বিন্নি।

৫. ক্রিকেট ছাড়াও আরও অনেক খেলায় আগ্রহ রয়েছে এই স্টার সাংবাদিকের। ক্রিকেট শো’তে বেশির ভাগ কাজ করলেও, অন্যান্য শো’ও তিনি সঞ্চালনা করেন। ক্রিকেটের সঙ্গে ফুটবল, হকি, টেনিসের মতো অন্যান্য খেলা নিয়ে অনুষ্ঠান করতে ভালোলাগে তাঁর। কারণ, কাজে বৈচিত্র আসে।

৬. ২০১০ সালে ফিফা বিশ্বকাপ ভারতে সম্প্রচার করেছিল ইএসপিএন। ম্যাচের আগে, মাঝে ও পরে শো থাকত। সেই শো ময়ন্তী সঞ্চালনা করেছিলেন। ফুটবল নিয়ে তাঁর জ্ঞান ও সুক্ষ বিশ্লেষণ সবার নজর কাড়ে। একের পর এক অনুষ্ঠান সঞ্চালনার ডাক পেতে থাকেন এরপর।

৭. ময়ন্তীর সবচেয়ে পছন্দের সিনেমা হলো ‘দ্য ডিপার্টেড’। লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিও অভিনীত হলিউডের এই ছবিটি ৭৯মত অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডে চারটি অস্কার জিতেছিল।

৮. ২০১৬ সালে আইপিএলের সময় ‘ক্রিকেট লাইভ’ শীর্ষক অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেন। স্টার স্পোর্টসে অনুষ্ঠানটি সরাসরি দেখানো হয়। আর তা দেশি ও বিদেশি প্রাক্তন তারকাদের নিয়ে বেশ স্টাইলে সঞ্চালনা করেছিলেন ময়ন্তী। ক্রিকেট নিয়ে তাঁর জ্ঞানের গভীরতা প্রাক্তন ক্রিকেটারদের চমকে দিয়েছিল।

৯. স্টুায়ার্ট বিন্নি যখন পারফর্ম করতে পারছিলেন ক্রিকেট মাঠে, তখন সোশ্যাল মিডিয়াতে ময়ন্তী আর তাঁর স্বামীকে নিয়ে প্রতিনিয়ত মজা ওড়ানো হতো। ময়ন্তী মাথা গরম না করে, বুদ্ধিমত্তার পরিচয় দিয়ে যেভাবে জবাব দিয়েছিলেন অহেতুক সমালোচকদের তাতে মাথা নত হয়ে গিয়েছিল তাদের।

১০. ২০১০ সালে ভারতে কমনওয়েল্থ গেমসের আসর বসে। দক্ষ সঞ্চালক চারু শর্মার সঙ্গে ময়ন্তী ওই গেমসে অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেছিলেন। যেভাবে তাঁরা দু’জনে অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করে দর্শকদের আগ্রহান্বিত করেছিলেন, তাতে প্রশংসা আদায় করে নিয়েছিলেন দু’জনে।

১১.  ২০১১ ও ২০১৫ আইসিসি ওয়ার্ল্ড কাপ সঞ্চালনা করার অভিজ্ঞতাও রয়েছে ময়ন্তীর। গোটা টুর্নামেন্টে প্রি ও পোস্ট ম্যাচ অনুষ্ঠানে ক্রিকেট নিয়ে ছেঁড়াকাটা চলত। আর তা বেশ দক্ষভাবেই বিশ্লেষণ করতেন দিল্লির মেয়েটি। পেশাগত ব্যাপারে সবসময় নিজেকে আরও উপরের দিকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন ময়ন্তী।

১২. ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ ২০১৮ মেগা অকশন গত মাসেই শেষের দিকে বসেছিল। আইপিএল অকশন নিয়ে বিশেষ বিশ্লেষণী অনুষ্ঠান রেখেছিল স্টার স্পোর্টস। সেই অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ময়ন্তী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: