হ্যাঁ, আইপিএলে নাইট রাইডার্সের হয়ে এঁরাও এক সময় খেলেছেন, অনেকেরেই হয়তো মনে নেই

আইপিএলে বিভিন্ন সময়ে গত দশ বছর ধরে কলকাতা নাইট রাইডার্সে অনেক খেলোয়াড় এসেছেন, অনেকে গিয়েছেন। তবু কিছু প্রাক্তন নাইট আছেন যে সব তারাকারা কেকেআর-এ খেলে গিয়েছেন, সেটা অনেকের মনে নেই। দেখে নিন তেমন দশ প্রাক্তন নাইটদের…

১২) সলমন বাট


তখনও আইপিএলে পাকিস্তানের ক্রিকেটারদের খেলার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা ছিল না। শাহরুখের খানের নাইট রাইডার্সে প্রথম আইপিএলে শোয়েব আখতার, উমর গুল, মহম্মদ হাফিজদের সঙ্গে ২০০৮ সালে খেলেছিলেন পাকিস্তানের বিতর্কিত অধিনায়ক সলমন বাট-ও। ৭টা ম্যাচে বাট করেছিলেন ১৭৩ রান। একটা ৭৩ রানের ভাল ইনিংসও খেলেছিলেন। কেকেআর-এর সেই বাট ২ বছর পরই সেই অতি অতি কুখ্যাত ইংল্যান্ড সফরে স্পট ফিক্সিংয়ে জড়িয়ে জেল খাটেন, নির্বাসিত হন। কলঙ্কিতবাট হলেন প্রাক্তন নাইট।

১১) তেতেন্দা তাইবু

জিম্বাবোয়ের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে আইপিএলে খেলেছিলেন তাইবু। সৌরভ গাঙ্গুলির নেতৃত্বে আইপিএলের প্রথম সিজনে তাইবু খেলেচিলেন ৩টি ম্যাচ। ভাল খেলতে পারেননি।

১০) রিকি পন্টিং


সর্বকালের সেরা ব্যাটসম্যানদের তালিকায় তাঁকে রাখা হয়। টেস্ট, ওয়ানডে মিলিয়ে ৭১টা সেঞ্চুরি। দুই ফরম্যাটে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৪০ হাজারের কাছাকাছি রান। অধিনায়ক হিসেবে দুটো বিশ্বকাপ জিতেছেন। সেই হাইপ্রোফাইল পন্টিংকে মোটা দরে আইপিএলের প্রথম সিজনে দলে নিয়েছিল নাইট রাইডার্স। তবে একেবারেই খেলতে পারেননি পন্টিং। আইপিএলের ইতিহাসে তিনি সবচেয়ে ফ্লপ ক্রিকেটারদের মধ্যে অন্যতম। ২০০৮ আইপিলে কেকেআর-এর হয়ে খেলে পন্টিং ৪টে ম্যাচ খেলে করেছিলেন মাত্র ৩৯ রান, গড় ৯.৭৫, স্ট্রাইক রেট ৭৩.৫৮।

৯) আকাশ চোপড়া

হ্যাঁ, বিশ্ব ক্রিকেটের সবচেয়ে ধীরগত ব্যাটসম্যানদের তালিকায় থাকা এই ব্যাটসম্যান কেকেআরের হয়ে ওপেন করেছেন। খুব খারাপ খেলেছেন। আকাশ নিজেও তাঁর আইপিএল রেকর্ড বলতে লজ্জা পান।

৮) সঞ্জয় বাঙ্গার


আরেক ঠুকঠুক মাস্টার। দেশের হয়ে টেস্ট ওপেন করতেন। বলটা শামুকের গতির চেয়ে একটু জোরে বল করতেন, তবু মিডিয়াম পেসার। সেই বাঙ্গারও নাইট রাইডার্সের হয়ে একটা ম্যাচেই এত কারাপ খেলেছিলেন, যে আর খেলার সুযোগ পাননি,পরে অবসর নিয়ে নেন। করেছিলেন ২ রান।

৭) মার্ক বাউচার

Mark Boucher of KKR during warmup session before match 42 of the Indian Premier League ( IPL ) between the Deccan Chargers and the Kolkata Knight Riders held at the Rajiv Gandhi International Cricket Stadium in Hyderabad on the 3rd May 2011..Photo by Prashant Bhoot/BCCI/SPORTZPICS

দুনিয়ার সেরা উইকেটকিপারদের তিনি ছিলেন অন্যতম। দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটের সর্বকালের সেরা উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। তবে আরসিবি থেকে ২০১১-তে নাইট রাইডার্সে এসে একেবারেই সুবিধা করতে পারেননি বাউচার। ৪ ম্যাচ খেলে করেছিলেন মাত্র ৬টা রান, চোট পেয়ে টুর্নামেন্টের মাঝপথে ছিটকে গিয়েছিলেন। তবে তার আগে আরসিবি-তে বেশ ভাল খেলেছিলেন। ম্যাচ জেতানো ইনিংসও বেশ কটা খেলেছিলেন আরসিবিড-র জার্সিতে। তবে নাইটের জার্সিতে তাঁর পারমরম্যান্স নাইটের মতই অন্ধকার ছিল।

৬) মহম্মদ হাফিজ


তখনও আইপিএলে পাকিস্তানের ক্রিকেটারদের খেলার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা ছিল না। শাহরুখের খানের নাইট রাইডার্সে প্রথম আইপিএলে শোয়েব আখতার, উমর গুল, সলমন বাটদের সঙ্গে খেলেছিলেন এই পাক অলরাউন্ডার।

৫) মাশরাফে মোর্তাজা

তিনিই কলকাতা নাইট রাইডার্সে খেলে যাওয়া প্রথম বাংলাদেশী ক্রিকেটার। দ্বিতীয় আইপিএলে মাশরাফি মাত্র একটা আইপিএল ম্যাচই খেলেছিলেন। পরে মাশরাফির জায়গায় নাইট রাইডার্সে এসে সাকিব আল হাসান ফুটল ফোটান।

৪) অজন্তা মেন্ডিস

KOLKATA, INDIA – APRIL 7: Ajantha Mendis of the Knight Riders fields during the 2010 DLF Indian Premier League T20 group stage match between Kolkata Knight Riders and Delhi Daredevils played at Eden Gardens Stadium on April 07, 2010 in Kolkata, India. (Photo by Graham Crouch-IPL 2010/IPL via Getty Images)

এক সময় তিনি ছিলেন বিশ্ব ক্রিকেটের বিষ্ময় স্পিনার। মেন্ডিসের বলের হদিশই কেউ পেত না। তবে একবার তাঁর রাজ ফাঁস হতেই শ্রীলঙ্কান এই বিষ্ময় স্পিনার একেবারেই সুবিধা করতে পারেননি। সেই মেন্ডিস নাইট রাইডার্সে খেলে গিয়েছেন।

৩) লক্ষ্মীরতন শুক্লা


বাংলার তারকা ক্রিকেটার, দেশের হয়েও খেলেছিলেন। তৃণমূলের বিধায়ক-মন্ত্রী লক্ষ্মীরতন শুক্লা আইপিএলে কেকেআরের হয়ে চুটিয়ে খেলেছেন। মোট ৪৭টা আইপিএল ম্যাচ খেলেছেন লক্ষ্মী। ম্যাচ জেতানো পারফরম্যান্স তাঁর ছিল। তবে আরও ভাল করার আশা তাঁর কাছ থেকে ছিল।

২) অজিত আগরকর


সচিন থেকে সৌরভ। আজহার থেকে দ্রাবিড় সবার পছন্দের বোলার তিনি। সেই আগরকর কেকেআরের জার্সিতে ২৭টা ম্যাচ খেলেছেন। তবে ফ্লপ ছিলেন আগরকর।

১) সঞ্জু স্যামসন


আইপিএল থেকেই তাঁর চমকপ্রদ উত্থান। দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের জার্সিতে আইপিএল সেঞ্চুরিও আছে। একেবারে ম্যাচ উইনার। রাজস্থান রয়্যালসের হয়েও দারুণ খেলেন। তবে সেই সঞ্জু স্যামসনকে ২০১২ আইপিএলে দলে নিয়েও একটা ম্যাচও খেলাননি নাইট অধিনায়ক গম্ভীর। বিসলার বদলে মনবিন্দর সিং বিসলাকে উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলিয়ে সাফল্য পেয়েছিল নাইট রাইডার্স। ২০১২ আইপিএলের ফাইনালের বিসলা ৮৯ রান করে দলকে জিতিয়েছিলেন।

আরো পড়ুন- আইপিএল টিম ও তাদের ফলোয়ার সংখ্যা; প্রথম স্থানে কে জানেন?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: