আইপিএল ২০১৮: দিন মজুরের ছেলের দাম ৪০ লক্ষ টাকা

থাঙ্গারাসু নটরাজন বা টি নটরাজন, তাকে তামিলনাড়ুর উপকন্ঠের এক অপরিচিত নামই বলা যায়। স্থানীয় প্রতিযোগিতায় সাফল্য পাওয়ার পরই এই বাঁহাতি জোরে বোলার তামিলনাড়ুতে তার নিজের নাম করেছেন। এই জোরে বোলারের কাছে বড়ো ব্রেক আসে, যখন তিনি তামিলনাড়ু প্রিমিয়ার লিগে (টিএনপিএল) নিজের প্রভাব ফেলেন। টিএনপিএল চলাকালীন তামিলনাড়ুর সালেমের কাছে অবস্থিত চিন্নাপ্পামপাট্টি গ্রামের বাসিন্দা জোরে বোলারের প্রশংসা করেন ম্যাথিউ হেডেন এবং ব্রেট লি। নটরাজনের কাহিনী অনুপ্রেরণা দায়ক, তার বাবা মা ভীষণই গরীব এবং তারা তাদের পরিবারের বেসিক চাহিদাটুকুও পূর্ণ করতে পারেন না। কিন্তু নটরাজন তার পরিবারের ভাগ্য বদলে দিয়েছেন।

তার বাবা ছিলেন একজন দিন মজুর এবং তার মা ২০১৭র মরশুমে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব তাকে ৩ কোটি টাকা দিয়ে কিনে নেয়ার আগে মাংস বিক্রি করে পরিবারকে সাহায্য করতেন। তার আইপিএল নিলামের পর তিনি বলেন, “ খুবই কম টাকা ছিল আমাদের। পাঁচ ভাইবোনের মধ্যে বড় হওয়ার সুবাদে, আমার এক ভাই এবং তিন বোন রয়েছে। সেখানে আমার উপর অনেকটাই দায়িত্ব রয়েছে”। তিনি নিজের পরিবারের সহায়তার জন্য দৈনিক মজর হওয়ার কথা বলেন। যদি তিনি ক্রিকেটে তার কেরিয়ার গড়তে ব্যর্থ হতেন তাহলে তাহলে তাকে বাধ্য হতে হত একজন দৈনিক মজুর হিসেবে কাজ করা জন্য।

টিএনপিএল তাকে প্ল্যাটফর্ম দিয়েছিল

টি নটরাজন উঠে আসেন তামিলনাড়ু প্রিমিয়ার লিগে দুর্দান্ত বোলিং পারফর্মেন্সের পর। নটরাজনের ইয়র্কার বল করা ক্ষমতা সকলকে চমকে দিয়েছিল। এই পেসার তার ফ্রেঞ্চাইজির জন্য ডেথ ওভারে বল করার দায়িত্ব নিয়েছিলেন। এই ২৬ বছর বয়েসি পেসার বেশ কিছু দুর্দান্ত বল করেন শেষ ওভারে নিজের ফ্রেঞ্চাইজির হয়ে ম্যাচ জিততে। নটরাজনের বিশ্বকে তার ক্ষমতা দেখানোর উপায় ছিল, এবং টিএনপিএলে তিনি তার দক্ষতা দেখান। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের ফ্রেঞ্চাইজি দ্রুতই তাকে চিনতে পারে। এবং ২০১৭য় এই লম্বা জোরে বোলারকে তুলে নেয় কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। কিন্তু নটরাজন তার প্রথম ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের অভিযানে ব্যর্থ হন। তার খেলা ৬টি ম্যাচে তিনি মাত্র ২টি উইকেটই নিতে সক্ষম হন। অফ সিজনে নটরাজন তার খেলার উপরে কাজ করেছেন। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের একাদশ সংস্করণ  শুরু হওয়ার আগে নটরাজন তার আস্তিনে বেশ কিছু নতুন অস্ত্র যোগ করার দিকে তাকিয়ে রয়েছেন। ২০১৮ মরশুমের জন্য সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ তাকে তার বেস প্রাইস ৪০ লক্ষ টাকায় তুলে নেয়। এই ২৬ বছর বয়েসি জোরে বোলার ব্যাকুল হয়ে রয়েছেন মাঠে নামার জন্য এবং এসআরএইচের হয়ে এই মরশুমে নিজেকে প্রমান করা জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: