নিজের ক্যারিয়ার নিজ হাতে নষ্ট করেছেন যে তারকারা

জায়গা বানানোটা যতটা কঠিন ততটাই সহজ সেই জায়গা হারিয়ে ফেলাও। এরকমটা বারবার দেখে গেছে ক্রিকেট হোক বা অভিনয় জগতের বহু তারকার জীবনে। অল্পদিনের মধ্যে খ্যাতির চূডায় আরোহন করলেও নিজের সামান্য ভুলে নিমেষে শেষ হয়ে গেছে তাদের ক্যারিয়ার এমন উদাহরণ নেহাত কম নেই। এই প্রতিবেদনে এমনই কিছু ভারতীয় তারকার কথা উল্লেখ করা হলো যারা নিজের ক্যারিয়ার নিজ হাতে নষ্ট করে, নিজের পায়ে নিজেই কুঁড়ুল মেরেছেন।

৭.বিনোদ কামলি:

এক সময়ের নামজাদা ভারতীয় ক্রিকেটার। এমনকি শচীনের সঙ্গে একাধিক ম্যাচ খেলেছেন তিনি। তবে পরবর্তীকালে কার্যত ম্যাচ ফিক্সিং কাণ্ডে জড়িয়ে পড়ে ক্যারিয়ার শেষ হয়ে যায় বিনোদ কামলির।

৬.পাপন:

‘ভয়েস ইন্ডিয়া কিডস’ শো-তে একটি বাচ্চাকে মেয়েকে জোর করে চুম্বন করতে দেখা যায় এই গায়ককে। জাতীয় শিশু সুরক্ষা দপ্তরের কমিশনে এই অভিযোগ তোলা হলে পরবর্তীকালে একের পর এক গানের অনুষ্ঠানের প্রস্তাব তার হাত থেকে চলে যায়। সেই সময় একেবারে কোণঠাসা অবস্থা হয়েছিলো তার ক্যারিয়ারের।

৪. শ্রীশান্থ:

ভালো পারফমেন্সের জেরে ভারতীয় দলে বেশ পাকাপাকি জায়গাই করে নিয়োছিলো এই পেসার। কিন্তু একাধিক সমালোচনামূলক কাজকর্মে তার নাম উঠে আসতে ক্যারিয়ারের ভিত নড়ে যায় তাঁর। তারপর ২০১৩ সালে আইপিএলে স্পট-ফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে তার নাম উঠে আসলে বিসিসিআই এর তরফ থেকে যাবজ্জীবনের জন্য নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয় তাকে। বর্তমানে অভিনয়কে পেশা হিসেবে নিতে চাইছেন তিনি, বিগ বসেও দেখা গেছে শ্রীশান্থকে। খুব শিগগির সিনেমায় অভিনয় করতেও দেখতে পারবো আমরা তাকে।

৩.বিবেক ওবেরয়:

ঐশ্বরিয়ার সঙ্গে প্রেমের সুবাদে বিবেকের সঙ্গে দ্বন্দ্ব জড়ান সালমান খান। কারণ সালমান খানের সঙ্গে ব্রেকআপ করেই বিবেকের সঙ্গে প্রেম শুরু করেন ঐশ্বরিয়া। এরপর থেকেই নাকি সালমান বিবেককে ফোনে হুমকি দিতে থাকেন। এসব নিয়ে সংবাদ সম্মেলনও করেছিলেন বিবেক।

ওই ঘটনার কিছুদিনের মধ্যেই বিবেক ওবেরয়ের সঙ্গে ব্রেক আপ হয়ে যায় ঐশ্বরিয়ার। এবং, তার কিছুদিনের মধ্যেই অভিষেক বচ্চনের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন সাবেক সুন্দরি। আর এরপর থেকে কেরিয়ার হোক কিংবা লাভ লাইফ, কোনও কিছুই তেমনভাবে এগোয়নি বিবেকের।

সম্প্রতি একটি সংবাদ মাধ্যমের সাক্ষাৎকারে বলিউডের বিবেক অভিযোগ করেন, সালমান খানের সঙ্গে ঝামেলার পর থেকেই তার বিরুদ্ধে যেন অলিখিত ফতোয়া জারি হয় বলিউডের একাংশে। এরপর থেকে তার সঙ্গে কাজ করার জন্য কেউই রাজি হচ্ছিলেন না বলেও অভিযোগ করেন বিবেক ওবেরয়। ‘শুট আউট এট লোখন্ডওয়ালা’ বিগ হিট হলেও, তারপর থেকে বিবেক ওবেরয়ের কোনও সিনেমায় হিট করেনি বলে অভিযোগ করেন তিনি। শুধু তাই নয়, ওই সময় থেকেই বলিউডে তাকে নাকি ‘ব্ল্যাকলিস্টেড’ করে দেওয়া হয় বলেও দাবি করেন বিবেক।

২.শক্তি কাপুর:

অভিনেতা হিসেবে তিনি বহুল প্রশংসিত। কিন্তু তার চরিত্রে খুত রয়েছে সেটা কারও অজানা কিছু নয়। খ্যাতির সাথে সাথে বিড়ম্বনাও থাকে, শক্তি কাপুরও তার ব্যতিক্রম নন। ২০০৫ সালে একটি ভারতীয় সংবাদমাধ্যম শক্তি কাপুরের স্ট্রিং অপারেশন করে তাঁর কাস্টিং কাউচ প্রকাশ্যে আনে। ভিডিওতে দেখা যায়, এক মহিলা সাংবাদিক নায়িকা সেজে তাঁর কাছে কাজ চাইতে গেলে তিনি বলছেন, ফিল্মে কাজ করতে চাইলে, কাস্টিং কাউচের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে! তবে তাঁর বিরুদ্ধে আনা সমস্ত অভিযোগ এবং স্ট্রিং অপারেশনের সব অস্বীকার করে তিনি বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে, ওই ভিডিওটা নকল, ট্যাম্পার করে আমার মুখ বসিয়ে দেওয়া হয়েছে। ‘ সে কথা কে শোনে, পর্দার ভিলেন বাস্তবেও ভিলেন হয়ে যায়। বলিউডে দীর্ঘদিন নিষিদ্ধ ছিলেন এ অভিনেতা।

১.মন্দাকিনী ঠাকুর:

দীর্ঘদিন দাপটের সাথে হিন্দি চলচিত্রে অভিনয় করে গেছেন। মাত্র ষোল বছর বয়সে মন্দাকিনী রাজ কাপুরের বিগ বাজেটের ছবি ‘রাম তেরী গঙ্গা মাইলী’ ছবিতে উত্তাপ ছড়ানো অভিনয় করে সাড়া ফেলে দেয়। হিন্দি চলচিত্রের আন্ডারওয়ার্ল্ডের গডফাদার দাউদ ইব্রাহিমের সঙ্গে তার সম্পর্ক ছিল বলে প্রচার ছিল। কিন্তু মন্দাকিনী বরাবরই তা অস্বীকার করতো। ১৯৯৬ সালে ‘জারদার’ ছবির মুক্তির পরই তিনি চলচিত্র জগৎ ত্যাগ করেন। ১৯৯০ সালে মন্দাকিনী বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী ডঃ কাগয়ার টি. রিনপোচি ঠাকুর-কে বিয়ে করেন। রাবজি নামে তাদের একটি কন্যা সন্তান আছে। বর্তমানে দালাইলামার একজন অনুসারী হিসেবে মন্দাকিনী এবং তার স্বামী মিলে একটি তিব্বতীয়ান মেডিসিন কেন্দ্র পরিচালনা করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: