আইপিএল ক্রিকেট ইতিহাসের পাঁচ অধিনায়ক যাঁরা কোনও ফাইনাল হারেননি

২০০৮ সালে শুরু। তারপর এক দশক পার করে এবার দ্বিতীয় দশকের সূচনা। এর মধ্যে আইপিএল ক্রিকেটে ছ’টি টিম ট্রফি জিতেছে। রাজস্থান রয়্যালস (২০০৮), ডেকান চার্জার্স (২০০৯) ও সানরাইজার্স হায়দরাবাদ (২০১৬) একবার করে, চেন্নাই সুপার কিংস (২০১০, ২০১১) ও কলকাতা নাইট রাইডার্স (২০১২, ২০১৪) দু’বার করে এবং মুম্বই ইন্ডিয়ান্স তিনবার (২০১৩, ২০১৫, ২০১৭) আইপিএল চ্যাম্পিয়ন হয়েছে।

একাদশ আইপিএল শুরু হতে হাতে মাস খানেকেরও কম সময়। তার আগে পাঁচজন এমন অধিনায়কের কৃতিত্বকে একবার স্মরণ করে নেওয়া, যাঁরা কোনও দিন ফাইনালে হারেননি।

আইপিএল ফাইনালে অজেয় পাঁচ দলনায়ক –

৫. ডেভিড ওয়ার্নার (সানরাইজার্স হায়দরাবাদ)

২০১৩ সালে আইপিএল আত্মপ্রকাশ সানরাইজার্স হায়দরাবাদ টিমের। ২০১৫ সালে অজি তারকা ডেভিড ওয়ার্নার টিমে আসেন। ২০১৬ সালে টিমে প্রথমবার ফাইনালে তোলেন এবং চ্যাম্পিয়ন করেন। আইপিএল ক্রিকেটের ইতিহাসে ওয়ার্নার পঞ্চম ব্যক্তিত্ব, যিনি অধিনায়ক হিসেবে কোনও ফাইনাল হারেননি। আর এই তালিকায় তৃতীয় অজি অধিনায়ক। ৪৭টি ম্যাচে অধিনায়কত্ব করে ওয়ার্নারের হার-জিতের পরিসংখ্যান ২১-২৬। জয়ের শতকরা হার ৫৫.৩১।

৪. রোহিত শর্মা (মু্ম্বই ইন্ডিয়ান্স)

আইপিএল ক্রিকেটে রোহিত একমাত্র অধিনায়ক যাঁর নামের পাশে তিনটি ট্রফি জয়ের নজির রয়েছে। উইনিং পার্সেন্টেজের দিক থেকেও সবার ওপরে মু্ম্বইয়ের ক্রিকেটারটি – ৬০.৬৬*। আইপিএল ক্রিকেটে রোহিত আবার একমাত্র ক্রিকেটার যিনি চারবার ট্রফি জয়ী দলের সদস্য। ২০০৯ সালে ডেকান চার্জার্সে ছিলেন হিটম্যান। মুম্বই ইন্ডিয়ান্সে অজি ব্যাটিং লেজেন্ড রিকি পন্টিং অধিনায়কত্ব ছাড়ার পর, দলনায়ক করা হয়েছিল রোহিতকে। তারপর থেকে সোনালী দৌড় অব্যাহত। আইপিএল ক্রিকেটে তাঁর নেতৃত্বে মুম্বই টিম তিনবার ফাইনাল খেলেছে, তিনবারই দল চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। উল্লেখ্য, আইপিএল ক্রিকেটে মুম্বই চারবারের ফাইনালিস্ট। প্রথমবার শচীন তেন্ডুলকরের নেতৃত্বে ২০১০ সালে ফাইনালে ওঠে টিম। সেবার হেরে যায় মু্ম্বই ইন্ডিয়ান্স। ধোনির চেন্নাই সুপার কিংস সেবার প্রথম ট্রফি জেতে। যাইহোক, আইপিএল ক্রিকেটের ইতিহাসে রোহিত শর্মা চতুর্থ অপরাজিত অধিনায়ক। ৭৫টি ম্যাচে অধিনায়কত্ব করে হার-জিতের পরিসংখ্যান ২৯-৪৫। একটি ম্যাচ টাই হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: