ওডিআই বিশ্বকাপ ক্রিকেটে ইতিহাসে ভারতের সেরা দশ ব্যাটসম্যান

বিশ্বকাপ। নামটার মধ্যেই আলাদা উত্তেজনা লুকিয়ে রয়েছে। বিশ্বকাপের মঞ্চ মানে গোটা দুনিয়ার সামনে নিজের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করার সুবর্ণ সুযোগ। একটা ভালো পারফর্ম্যান্স রাতারাতি স্টার বানিয়ে দিতে পারে যে কাউকে। আবার এমন কিছু কিছু ক্রিকেটার আছেন, যাঁরা এই মঞ্চে নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ব বারবার প্রমাণ করে এসেছেন। ক্রিকেটে বর্তমানে তিনটে ফর্ম্যাট চালু। টেস্ট ক্রিকেট সবচেয়ে পুরনো ফরম্যাট হলেও, এখনও পর্যন্ত বিশ্বকাপ চালু হয়নি এখানে। একদিনের আন্তর্জাতিক ফরম্যাটে বিশ্বকাপ ১৯৭৫ সাল থেকে চলে আসছে। টি-২০ ফরম্যাটের বিশ্বকাপ শুরু ২০০৭ সাল থেকে। কুড়ি-কুড়ি ওভারের ক্রিকেট যতই জনপ্রিয় হোক, ওডিআই ক্রিকেট বিশ্বকাপ এখনও সবচেয়ে বড় টুর্নামেন্ট ক্রিকেট বিশ্বের।

আইসিসি পরিচালিত এই ইভেন্টে ভারত দু’বার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। ১৯৮৩ সালে কপিল দেবের নেতৃত্বে আর ২০১১ সালে মহেন্দ্র সিং ধোনির অধিনায়কত্বে। আর ২০০৩ সালে সৌরভ গাঙ্গুলির নেতৃত্বে টিম ইন্ডিয়া বিশ্বকাপের ফাইনালে গেলেও, রানার্স-আপ হয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয়। বিশ্বকাপ টুর্নামেন্ট ভারতের একাধিক তারকাকে আমরা সফল হতে দেখেছি। কিন্তু, দিনের শেষে পরিসংখ্যানই শ্রেষ্ঠত্ব বিচার করে দেয়। এই প্রতিবেদনে ভারতের সেরা দশ স্কোরারকে তুলে ধরা হলো।

১০ অজয় জাদেজা

বিগত দিনের তারকাদের মধ্যে অন্যতম নাম অজয় জাদেজা। ভারতীয় মিডল অর্ডারে এক সময় ভরসাযোগ্য এই ক্রিকেটার বিশ্বকাপ ক্রিকেটেও সফল ছিলেন। ঠান্ডা মাথায় ম্যাচ বের করে আনতেন জাড্ডু। ১৯৯২, ১৯৯৬ এবং ১৯৯৯ – ভারতের হয়ে এই তিনটি বিশ্বকাপে অংশ নিয়েছেন জাদেজা।

এক নজরে ওডিআই বিশ্বকাপ পরিসংখ্যান :

ম্যাচ – ২১, রান – ৫২২, গড় – ২৯.০০, ৫০/১০০ – ১/১।

৯. সুনীল গাভাস্কার

ভারতের ব্যাটিং জিনিয়াস ১৯৭৫ ও ১৯৭৯ বিশ্বকাপে টিমের অন্যতম ভরসা ছিলেন। কিন্তু, ১৯৮৩ সালে ভারত চ্যাম্পিয়ন হলেও, সানি তেমন কিছু করে দেখাতে পারেননি। কেরিয়ারের শেষ বিশ্বকাপ ১৯৮৭-তে। সেবার টিমের হয়ে তিনিই সর্বোচ্চ রান করে দেখান টপ অর্ডারে।

এক নজরে ওডিআই বিশ্বকাপ পরিসংখ্যান :

ম্যাচ – ১৯, রান – ৫৬১, গড় – ৩৫.০৬, ৫০/১০০ – ৪/১।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: