মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের হয়ে আন্তর্জাতিক আসরে ডেবিউ করবেন ভারতের দুই ক্রিকেটার

বেসবল সেখানে অনেক আগে থেকেই জনপ্রিয়। ক্রিকেট কলম্বাসের আবিষ্কার করা দেশে কোণায় কোণায় পৌঁছে দেওয়ার জন্য এক দশকের ওপর ধরে চেষ্টা করে আসছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল। আর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও ক্রিকেটে তাদের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করার জন্য খেলাটাকে গুরুত্ব দিয়ে দেখতে শুরু করেছে। ভারতীয় অনূর্ধ্ব-১৯ দলে খেলা দুই ক্রিকেটার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র টিমে খেলতে চলেছেন।

ভারতীয় যুবদলে একসময় খেলা সৌরভ নেত্রবলকর ও সানি সোহেল খুব পরিচিত নাম। চোখে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার স্বপ্ন থাকলেও, নিজের দেশের হয়ে তা পূরণ করতে পারেননি। এবার ইউএসএ টিমের হয়ে সেই স্বপ্ন স্বার্থক হতে চলেছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের হয়ে ক্রিকেট খেলার জন্য যোগ্যতার অন্যতম মাপকাঠি হিসেবে বিবেচিত মার্কিন মুলুকে বসবাসের নূন্যতম সময়সীমা চার থেকে কমিয়ে তিন বছরে করায়, সৌরভ ও সানির সামনে এই সুযোগ এলো। আইসিসি’র আগের নিয়ম ছিল ইউএসএ টিমে খেলতে হলে মার্কিন মুলুকে অন্তত চার বছর ধরে বসবাস করতে হবে। যাইহোক, এখন তা এক বছর কমিয়েছে আইসিসি।

CHRISTCHURCH, NEW ZEALAND – JANUARY 17: Saurabh Netravalkar appeals unsuccessfully for a wicket during the ICC U19 Cricket World Cup match between India and Hong Kong at Hagley Park on January 17, 2010 in Christchurch, New Zealand. (Photo by Martin Hunter/Getty Images)

সৌরভ নেত্রবলকর ভারতের হয়ে যুব বিশ্বকাপ খেলেছিলেন কে এল রাহুল ও জয়দেব উনাদকাটদের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে। সেবার টুর্নামেন্টে অন্যতম সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিও ছিলেন। কিন্তু, তাও জাতীয় দলে জায়গা আদায় করে নিতে পারেননি।

অনূর্ধ্ব-১৯ দলের দুই ক্রিকেটারই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে চলতি সিডবলিউআই সুপার৫০ কাপে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। নেত্রবলকর মুম্বইয়ের হয়ে রঞ্জি ক্রিকেট খেলেছেন। তারপর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে চলে আসেন অন্য পেশায় ভবিষ্যৎ গড়ার আশায়। ক্রিকেট খেলার স্বপ্ন ছেড়ে ইঞ্জিনিয়ার হতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আসেন সৌরভ।

এখন একত্রিশ বছর বয়স সৌরভের। তিন বছর আগে মুম্বইয়ের হয়ে শেষবার ক্রিকেট খেলেছিলেন। আচমকাই তাঁর সামনে ক্রিকেটের দরজা ফের খুলে যায়। লিউওয়ার্ড আইল্যান্ডসের বিরুদ্ধে ইউএসএ টিমের হয়ে ডেবিউ করেন সৌরভ।

MUMBAI, INDIA – DECEMBER 16, 2009: Cricket India Team Under19 U19 Saurabh Netravalkar. (Photo by Satish Bate/Hindustan Times via Getty Images)

নিউ ইয়র্কের করনেল ইউনিভার্সিটিতে কম্পিউটার সায়েন্সে মাস্টার্স ডিগ্রি প্রোগ্রামে নাম লেখানো সৌরভ বলছেন, ”সত্যি বলছি, আমি একবারও ভাবিনি, ইউএসএ-তে এসে ক্রিকেট খেলব। নিজের ক্রিকেট খেলার জুতো জোড়াও সঙ্গে করে আনিনি।”

”পড়াশোনা দিকেই যাবতীয় মনোসংযোগ ছিল। তবে, এখানে ক্রিকেট খেলা দেখার পর দেশে গিয়ে ক্রিকেটের যাবতীয় সরঞ্জাম নিয়ে আসি। ২০১৫ সালে আমার মনে হয়েছিল, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরা খুব কঠিন। ভেবেছিলাম, আমি ঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সেরা ইউনিভার্সিটিতে ভর্তি হয়েছি কম্পিউটার সায়েন্স নিয়ে পড়ার জন্য। তখন ভেবেছিলাম, পড়াশোনাই জীবনে আমাকে আগে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে।”

অন্যদিকে, সানি সোহেল ভারতীয় এ দল এবং আইপিএল ক্রিকেটে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব ও ডেকান চার্জাসের হয়ে খেলেছেন। কিন্তু, ভারতীয় সিনিয়র দলে ঢোকার কোনও সুযোগ আদায় করে নিতে পারেননি তিনি। ফলে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নিজের ভবিষ্যৎ যাচাই করতে বদ্ধপরিকর সানি। পাঞ্জাবের হয়ে রঞ্জি খেলার অভিজ্ঞতা থাকলেও ২০১৪ সালে ইউএসএ চলে আসেন সবকিছু ছেড়ে দিয়ে।

CHRISTCHURCH, NEW ZEALAND – JANUARY 17: Saurabh Netravalkar appeals unsuccessfully for a wicket during the ICC U19 Cricket World Cup match between India and Hong Kong at Hagley Park on January 17, 2010 in Christchurch, New Zealand. (Photo by Martin Hunter/Getty Images)

২১টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচে ১২০২ রান করার অভিজ্ঞতা থাকা সানির বয়স এখন তিরিশ। বললেন, ”জানি না, ভগবানকে কিভাবে ধন্যবাদ দেবো। সুযোগটা পেয়ে আমি খুব আনন্দিত হয়েছি। নিজের সেরাটা দিয়ে সুযোগটা কাজে লাগানোর আপ্রাণ চেষ্টা করব।”

”দেশের মাটিতে যতটুকু সুযোগ পেয়েছিলাম, তাতে আমি খুশি হইনি। এখানে আসার আগেই ক্রিকেট খেলা প্রায় বন্ধ করে দিয়েছিলাম। তারপর এই ল্যান্ড অফ অপরচুনেটি ইউএস-তে এলাম। এখানে এসে আবার মাঠে নামতে পারছি। সবকিছুকে আবার উপভোগ করছি।” সানি সোহেল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এসে ক্রিকেটার হিসেবে বেশ নাম করে নিয়েছেন এর মধ্যে। ওয়াশিংটন ক্রিকেট লিগে পোটোম্যাক টিমের হয়ে খেলছেন।

এই ক্রিকেট লিগ কতটা প্রতিদ্বন্দ্বিতাময়, তা জানাতে ভোলেননি সানি। আর তাতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং পাকিস্তানের অনেক বর্তমান ও প্রাক্তন তারকা ক্রিকেটারও অংশ নিচ্ছেন। এই টু্র্নামেন্টে খেলেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় ক্রিকেট দলে নির্বাচিত হয়েছেন সানি।  তাছাড়া, সোহেল এটাও জানান, বর্তমানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ক্রিকেট খেলাকে স্কুল স্তরেও অন্তর্ভুক্ত করেছে। খেলাটাকে সারা দেশে ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে তারা। পরিকাঠামোকো দিনদিন আরও উন্নত করে তোলা হচ্ছে।

সানি সোহেল বলছেন, ”দেশে যা করে দেখানোর সুযোগ পাইনি, এখানে তা আসছে। আমি জানি, আমি সফল হবো। আগামী দিনে ক্রিকেট এখানে আরও জনপ্রিয় হবে।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: