টলিউডের হিরো-হিরোইনের অবাক করা আধডজন আচমকা ডিভোর্সের ঘটনা

বলিউডের মত টলিউডে প্রতি শুক্রবার নিয়ম করে সিনেমা রিলিজ করে। আবার নিয়ম করে সম্পর্ক ভেঙেও যান। সেরকমই চমকপ্রদ কিছু ডিভোর্সের কথা–

৬) রূপা গাঙ্গুলি ডিভোর্স করেন ধ্রুব মুখার্জি-র সঙ্গে
বি আর চোপড়ার দেশজোড়া খ্যাতি পাওয়া মহাভারত-সিরিয়ালের দ্রৌপদী-র চরিত্রে অভিনয় করে রূপ গাঙ্গুলি তখন খ্যাতির চরমে। তাঁর কাছে আসছে বলিউডে কাজ করার একের পর এক অফার। সেই সসয়ই ১৯৯২ সালে ধ্রুব মুখার্জির সঙ্গে বিয়ে হয় রূপা গাঙ্গুলি-র| বিয়ের বছর পাঁচের পর ছেলে হয় রূপা-ধ্রুবের। নাম রাখা হয় আকাশ| তবে ১৪ পর সংসার করার পর ২০০৬ সালে সম্পর্কে সরকারী ভাবে ভাঙন ধরে যায় | রূপার সাফল্য নাকি সহ্য করতে পারেননি ধ্রুব | তাই এই সিদ্ধান্ত নেন | পরে রূপা ওঁর থেকে ১৩ বছরের ছোট-গায়ক দিব্যেন্দুর সঙ্গে মুম্বাইয়ের ফ্ল্যাটে লিভ ইন করেছেন |

৫) রচনা ব্যানার্জি- ওড়িয়া হিরো সিদ্ধান্ত মহাপাত্রের ডিভোর্স

১৯৯৪ সালে ‘মিস কলকাতা’ খেতাবসহ পাঁচটি সুন্দরী প্রতিযোগিতায় মুকুট জেতা রচনার ফিল্মি ক্যারিয়ার শুরু হয়। বাংলা ছাড়াও ওড়িয়া ও তেলুগু ভাষার সিনেমায়ও অভিনয় করেছেন রচনা। তবে অমিতাভ বচ্চনের বিপরীতে ‘সূর্য্যবংশম’-এ অভিনয় করে সবার নজর কাড়েন রচনা। তারপর ওড়িয়া ছবিতে কাজ করার সময় সিদ্ধার্থের সঙ্গে প্রেম এবং পরে ২০০৪ সালে বিয়ে হয় রচনার| বছর দুয়েকের মধ্যেই অবশ্য এই বিয়ে ভেঙে যায়| তারপর ২০০৭ সালে প্রবাল বসুকে বিয়ে করেন রচনা। এরপর থেকে তাদের দাম্পত্য জীবন ভালোই চলছিল। ২০১১-র পর থেকে এখন স্বামী থেকে আলাদা থাকছেন রচনা। রচনা-প্রবাল দম্পতির ছেলে প্রণীল। রচনার কাছেই থাকে সে। তবে প্রবালও তার সঙ্গে অনেক সময় কাটান বলে জানা গেছে।

৪) প্রসেনজিত্॥ চ্যাটার্জি-দেবশ্রী রায়ের ডিভোর্স
বাংলার সিনেমার সর্বকালের সেরা নায়কদের তালিকায় থাকা প্রসেনজিত-এর ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে বহু আলোচনা হয়েছে। প্রসেনজিত-এর তিনটি বিয়ে নিয়ে অনেক কথা হয়। তবে প্রসেনজিত মানেই একটা সময় তাঁর বিপরীতে দেবশ্রী রায়। উত্তম-সুচিত্রা পর একটা সময় বাংলা সিনেমার সবচেয়ে হিট জুটি প্রসেনজিত-দেবশ্রী। দুজনে বিয়ে করেন। দীর্ঘদিন অভিনেত্রী দেবশ্রীর সঙ্গে প্রেম করার পর প্রথমবার ১৯৯২ সালে ওঁর সঙ্গে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন প্রসেনজিৎ | তিন বছর পর এই বিয়ে ভেঙে যায় | দ্বিতীয়বার প্রসেনজিৎ ১৯৯৭ সালে অপর্ণা গুহঠাকুরের সঙ্গে বিয়ে করেন | এই বিয়েও ২০০২ সালে ভেঙে যায় | তৃতীয়বার উনি অর্পিতা পালের সঙ্গে বিয়ের ছাদনাতলায় যান |

৩) পরিচালক শ্রীজিত মুখার্জির ডিভোর্স
স্ত্রীর সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের পর মায়ের সঙ্গে থাকেন এই পরিচালক | তবে স্বস্তিকা মুখার্জি‚ পায়েল সরকার এমনকী লগ্নজিতার সঙ্গে নাম জড়িয়েছে ওঁর |

২) অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখার্জি-প্রমিত সেনের ডিভোর্স
মাত্র দুবছর একসঙ্গে ঘর করেন স্বস্তিকা ও প্রমিত।প্রমিতের নামে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ তোলেন স্বস্তিকা। স্বস্তিকা যখন প্রেগন্যান্ট ছিলেন তখন প্রমিত তাকে নাকি ঘরে আটকে রাখেন। বিবাহিত অবস্থায় উনি প্রথমে অভিনেতা জিৎ এবং পরে পরমব্রতর সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। অবশেষে ২০১০ সালে তার এবং প্রমিতের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়।

১) নায়িকা শ্রাবন্তী চ্যাটার্জি ও পরিচালক রাজীব বিশ্বাসের মধ্যে ডিভোর্স

বেহালার মেয়ে শ্রাবন্তী তখনও স্কুলের গণ্ডি টপকাননি। মাত্র ১৫ বছর বয়েসে রাজীব বিশ্বাসের গলায় মালা দেন শ্রাবন্তী। সেই সময় শ্রাবন্তীর পরিবারের সদস্যরাএকেবারেই রাজি ছিলেন না। শ্রাবন্তী-রাজীবের ছেলে ঝিনুকও জন্মায়। কিন্তু ১১ বছর ঘর করার পর চিড় ধরে তার এবং রাজীবের সম্পর্কে। শ্রাবন্তীর কথায় রাজীব নাকি তাকে মানসিক এবং শারীরিক অত্যাচার করতেন। অন্যদিকে, রাজীব নাকি বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কেও জড়িয়ে পড়েন এমনটাই দাবি করেন শ্রাবন্তী। অবশেষে ছেলেকে নিয়ে রাজীবের বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসেন উনি। বেশ কয়েকবছর মা বাবার সঙ্গে থাকার পর দ্বিতীয়বার আবার মডেল কৃষ্ণ ভিরাজের সঙ্গে বিয়ে করেছেন শ্রাবন্তী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: