রজনীকান্তের সিনেমা নয়, বাস্তবে গতিতে উড়ে গিয়ে দোতলা বাড়িতে ধাক্কায় ঝুলে গাড়ি

না না, রজনীকান্তের সিনেমা নয়। কিংবা দক্ষিণের কোনো সিনেমা নয়। সজোরে গাড়ি চালিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উড়ে এসে এভাবেই (ছবিতে) এক গাড়িতে এসে ধাক্কা মারলেন এক ব্যক্তি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় এমনই অদ্ভুত ছবি দেখা গেল। এমনিতে ক্যালেফোর্নিয়ায় পথ দুর্ঘটনা চেনা ছবি। আর বিশ্বের হাইপ্রোফাইল এই শহরে বেশিরভাগ পথ দুর্ঘটনাই হয় মদ্যপ ড্রাইভারদের জন্য।

কিন্তু সোমবার সকালে উঠে ক্যালিফোর্নিয়াবাসীরা যা দেখলেন তাতে চোখ কপালে ওঠার জোগাড়। গাড়ি তো মাটিতে চলে এতো মনে হচ্ছে আকাশে চলা কোনও প্লেন সোজা এসে গোঁত্তা মেরেছে। যে বিল্ডিংটিতে গাড়িটা উড়ে গিয়ে পড়ে, সেটা একটা ডেন্টাল ক্লিনিক।

তবে মজার কথা গাড়িটা একেবারে মাটি ছাড়িয়ে স্বর্গে উঠে গেলেও চালকের কিচ্ছুটি হয়নি। চালক বাবাজি একটু আধটু ভারী নেশা করে টলতে টলতে গাড়ি থেকে নেমে আসে। সকাল ঘুম থেকে উঠে ৭০ বছরের এক বৃদ্ধ গাড়িটা দেখেই চেঁচিয়ে ওঠে।

পুলিস জানায় গাড়িটা ১৫০ কিমি গতিতে যাচ্ছিল। সামনে একটা কিছু দেখে ব্রেকের বদলে গিয়ার পরিবর্তন করতেই সোজা আকাশের পথ ধরে। বরাত জোরে রক্ষা পাওয়ার বহরটা শুনবেন। বিল্ডিংয়ের যে অংশটিতে ড্রাইভার ধাক্কা মেরেছিলেন, ঠিক তার পাশেই ছিল ইলেকট্রিক মিটার, গাড়িটা ধাক্কার পর আগুনও জ্বলে ওঠে, তবে তা নিভি যাওয়ায় বিপদ হয়নি। ড্রাইভার দরজা খুলে দোতলা হাঁটতে হাঁটতে নেমে আসেন। গাড়ির চালক ন্যারোটিক জাতীয় ড্রাগস নিয়েছিলেন, যাতে মাটি কোনটা, আর আকাশ কোনটা তা খেয়াল থাকে না। আর তাই এই মারাত্মক ভুল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: