এটিএমে টাকা তুলতে গিয়ে নির্ভয়ার কায়দায় পাশবিক ধর্ষণ গার্ডের

একটু রাতের দিকে এটিএমে টাকা তুলতে গিয়েছিল মেয়েটা। বাড়িতে থেকে মিনিট দশেক দূরে হাইওয়ের ধারে এটিএম। বাইরে প্রচন্ড ঠান্ডা হাওয়া, মাঝে মাঝে বৃষ্টিও হচ্ছে। মেয়েটা ছুটে গিয়ে ঢোকে এটিএমে। সেই এটিএমে মদ্যপ অবস্থায় ছিল গার্ড। মেয়েটাকে দেখেই পাশে নিজের ঘর থেকে বেরিয়ে এসে জোর করে ধরে নিয়ে গিয়ে এটিএমের দরজা বন্ধ করে দেয়।
এদিকে মেয়ে আসছে না দেখে পরিবারের লোকেরা খোঁজখোঁজ শুরু করে। ছোট ভাইকে ও বলে গিয়েছে পরের দিন সকালে কলেজে ফি দিতে হবে, তাই রাতেই টাকা তুলতে যাচ্ছে। পরিবারের লোকেরা সেই এটিএমের বাইরে এসে দেখে বন্ধ। এরপর খোঁজ খোঁজ।

সাত দিন পর হাইওয়ের ধার থেকে পচা খাল থেকে উদ্ধার হয় সেই মেয়েটির পচাগলা মৃতদেহ। বল খালে পড়ে যাওয়ার পরেই মৃতদেহ দেখতে পেয়ে স্থানীয় ছেলেরা পুলিসে খবর দিয়েছিল। তদন্তের পর দেখা যায় মেয়েটিকে পাশবিক কায়দায় ধর্ষণ করা হয়েছে। ধর্ষণের পর পালানোর চেষ্টা করায় তার যৌনাঙ্গে রড ঢকে দেয় সেই ধর্ষক। তারপরই লুকিয়ে সেই মেয়েটিকে ফেলে দেওয়া হয় ওই পাচে খালে।

কিন্তু কিছুতেই বোঝা যাচ্ছিল না কে বা কারা এই কাজ করল। শেষ অবধি এটিএমের নিরাপত্তারক্ষী ধরে পড়ে যান সিসিটিভি ফুটেজে। ব্যাঙ্কের এক কর্মীই পুলিসের কাছে ধর্ষকের কুকীর্তির সেই ভিডিও হাতে তুলে দেন।
ঘটনাটি ঘটে উত্তর আমেরিকার বারমুডায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: