এই তারিখে সাধারণ মানুষের জন্য খুলে যাবে ‘কলকাতা গেট’

তিলোত্তমা কলকাতা। সেই ব্রিটিশ আমল থেকে আধুনিক কাল পর্যন্ত বহু স্থাপত্য স্থান পেয়েছে কলকাতার পথে ঘাটে। এর মধ্যে কয়েকটির ঐতিহাসিক গুরুত্ব অপরিসীম। কয়েকটির শৈল্পিক সৌন্দর্য মুগ্ধ করে আমাদের। কিছু স্থাপত্যের আছে নিজস্ব গরিমা। ‘কলকাতা গেট’ সেরকমই। নিজেই নিজেতে মুগ্ধ।

রাজধানী দিল্লিতে ‘ইন্ডিয়া গেট’ আছে। বানিজ্যনগরী মুম্বইতে আছে ‘গেটওয়ে অফ ইন্ডিয়া’। কলকাতার বেলায় তেমন কিছু থাকবে না কেন? আছে। ‘কলকাতা গেট’। নির্মাণ কাজ শেষ। উদ্বোধন হবে খুব তাড়াতাড়ি।

কলকাতার নিউটাউনের বিশ্ব বাংলা সরণি, মেজর আর্টেরিয়াল রোড (দ: পূ:) ও নিউ টাউন রোডের সংযোগস্থলে অবস্থিত নারকেলবাগান মোড়ে বানানো হয়েছে কলকাতা গেট। ৫৫ মিটার উঁচু বিশালাকার গোলক। ঝুলে আছে। গম্বুজের মতো। একদিক দিয়ে ওঠা যায়। লিফটের ব্যবস্থাও আচজে। ওপর থেকে দেখা যাবে পুরো রাজারহাট ও নিউটাউন শহরের প্রকৃতিক দৃশ্য। এমন গেট তৈরির পরিকল্পনা চলছিল অনেকদিন ধরেই। ২০১০ সালে পরিকল্পনা ছকা হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু অনুমোদন মিলতে পাঁচ বছর কেটে যায়। শেষে ২০১৫ সালে গেট বানানোর সম্মতি দেয় সরকার। এই গেটের নকশা করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি স্বয়ং।

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তত্বাবধানে হাউজিং অফ ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট কর্পরেশন বা হিডকো এই গেট তৈরি করেছে। স্থাপত্য শিল্পী হিসাবে কাজ করেছেন দুলাল মুখার্জি। ৫৫ মিটার উচ্চতায় তিনটি দন্ড ধরে আছে একটি বিশালাকার গোলক। সত্তর টন স্টিল ও শক্ত কাচ দিয়ে বানানো হয়েছে পুরো স্থাপত্যটি। খরচ হয়েছে ২৫ কোটি টাকা। কিছুদিনের মধ্যে ২৫ মিটার উচ্চতায় গড়ে উঠবে একটি ঝুলন্ত রেস্টুরেন্ট। এটি কলকাতার স্বগত তোরণ বা প্রবেশদ্বার হিসাবে নির্মান করা হয়েছে।


মূল গেট ৫৫ মিটার উঁচু। দর্শকদের জন্য তৈরি বলয়াকৃতি টানেলটি মাটি থেকে ২৫ মিটার ওপরে। কলকাতা গেটের একপাশেই থাকা লিফ্‌টে উপরে উঠতে পারবেন দর্শকেরা। বঙ্গ সংস্কৃতির সঙ্গে খাপ খাইয়ে নানারকম ছবি দিয়ে সাজানো হয়েছে টানেল। টানেলের বাইরের অংশ উজ্জ্বল আলোয় মোড়া। মধ্যের অংশে বিশ্ব বাংলার লোগো। পুর এবং নগরোন্নয়নমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেছেন, ‘সাধারণ মানুষকে আনন্দ দেওয়ার জন্যই এই ব্যবস্থা।’

নিউটাউনের সৌন্দর্যায়নের অংশ হিসেবে গড়ে তোলা হয়েছে এই গেট ও ঝুলন্ত রেস্তোরাঁ। প্যারিসের আইফেল টাওয়ারের ভিজিটর্স গ্যালারি এবং মালয়েশিয়ার ঝুলন্ত রেস্তোরাঁর ভাবনা থেকেই হিডকো এই গেট ও ঝুলন্ত রেস্তোরাঁ নির্মান করেছে।

উদ্বোধন ১ বৈশাখের আগেই…

সব ঠিকঠাক থাকলে পয়লা বৈশাখ বা তার আগেই উদ্বোধন হবে কলকাতা গেটের। হিডকো গেট খুলে দেবে দর্শনার্থীদের জন্য। গোটা পূর্ব ভারতে এমন স্থাপত্য আছে শুধু কলকাতাতেই।
নির্মান কাজ প্রায় শেষ। এখন চলছে তুলির শেষ টান। খুচরো কাজ। তবে যারা এই দৈত্যাকার গেটে চড়বেন তাঁদের নিরাপত্তা ও সুরক্ষার ওপর জোর দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: