রাজ্য সরকারের এই সিদ্ধান্তে বেকারদের কপালে দুঃখ নেমে এলো!

নতুন বছরে খারাপ খবর বেকারদের জন্য। স্থায়ী পদে নিয়োগ না করে আর্থিক ব্যয়ভার কমানোর দিকে দৃষ্টি রাজ্য সরকারের। এজন্য নতুন বছরে ফের অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মীদের পুনর্নিয়োগ করার প্রক্রিয়া শুরু করতে চলেছে রাজ্য সরকার। সরকারের এই সিদ্ধান্তে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে বিরোধীরা। তাঁরা সরকারের এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে পথে নামতে চলেছে।

নবান্ন সূত্রে পাওয়া খবর অনুযায়ী, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে বিভিন্ন পদে পুরনো পদাধিকারীদেরই রেখে দিতে চাইছেন। নতুন নিয়োগের ব্যাপারে তাঁর বর্তমানে প্রবল আপত্তি রয়েছে। তাঁর এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রবল আপত্তি জানিয়ে চলেছেন বিরোধীরা। প্রধান বিরোধী দল সিপিএমের এক নেতা বলেন, বিশেষ কিছু ক্ষেত্রে পুনর্নিয়োগের ব্যাপারটি মেনে নেওয়া যায়। কিন্তু রাজ্য সরকার সাধারণ ক্ল্যারিক্যাল পদেও পুনর্নিয়োগ করতে চাইছে। এই রাজ্যে এমনিতেই লক্ষ লক্ষ বেকার। দিনের পর দিন এই সংখ্যা বেড়েই চলেছে। এখন পুনর্নিয়োগের ফলে রাজ্যে বেকারদের সংখ্যা আরও বৃদ্ধি পেতে থাকবে। রাজ্য সরকারের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে এজন্য তাঁরা তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছেন। তিনি মনে করেন রাজ্য সরকারের এই সিদ্ধান্ত আসলে লক্ষ লক্ষ বেকার ছেলেমেয়েদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা ছাড়া অন্য কিছু নয়।

কংগ্রেস নেতারা জানান, এই রাজ্যে স্থায়ী পদে সরকারি কর্মীদের নিয়োগের ব্যাপারটি অনেক দিন ধরেই স্থগিত রয়েছে। বেকারদের সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এরপর অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মীদের ফের পুনর্নিয়োগ করা হলে বর্তমান সরকারি কর্মীদের পদোন্নতির বিষয়টিও বাধাপ্রাপ্ত হবে। বেকারদের সংখ্যাও বেড়ে চলবে। যে সরকার বেকারত্ব দূর করতে সাহায্য করবে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল সেই সরকার বেকারদের সংখ্যা বাড়িয়ে তুলছে। অন্যান্য দলের নেতারাও রাজ্য সরকারের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে একই কথা বলছেন। কিন্তু নবান্ন সূত্রে প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, বিরোধীদের অবস্থান যাই হোক না কেন, রাজ্য সরকার তার পুনর্নিয়োগের সিদ্ধান্ত থেকে কোনোভাবেই সরতে রাজি নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: