স্বাধীনতা দিবসে ইংরেজ মহিলা ক্রিকেটারের মন ছুঁয়ে যাওয়া শুভেচ্ছা বার্তা ভারতবাসীকে

১৯৪৭ সালের ১৫ অগস্ট, অসীম লড়াই আর রক্তক্ষয়ের পর অবশেষে স্বাধীনতা আসে। ১৯০ বছর ধরে ভারতকে পরাধীন করে রেখেছিল যাঁরা, সেই জাতটার নাম ইংরেজ। পরিসংখ্যান বলে ইংল্যান্ড পৃথিবীর নব্বই শতাংশ দেশে প্রবেশ করার পর সেখানে নিজেদের আধিপত্য কায়েম করে। মানব সভ্যতার ইতিহাসে এরকম জাত আর দু’টি নেই। ব্যবসায়ীর পসরা নিয়ে হাজির হয়ে সেখানে মালিক হয়ে বসা। ১৭৫৭ সালে এই বাংলার বুক থেকেই ব্রিটিশ আধিপত্যের সূচনা। বাংলার তৎকালীন নবাব সিরাজউদ্দৌল্লাহ ফরাসী বাহিনীর সাহায্য নিয়ে পলাশীর যুদ্ধে নামলেও ইংরেজদের কূটচাল আর মিরজাফরের বিশ্বাসঘাতকতার কাছে তাঁকে হারতে হয়। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির সেই জয় বাংলাকে ব্রিটিশদের হাতে এনে দেয়। আর তারপর গোটা ভারতে ছড়িয়ে পড়ে তাদের আধিপত্য। ভারতের ব্রিটিশ রাজ শুরু তার ১০০ বছর পর। ব্রিটিশ রাজমুকুটের নামে দেশ শাসনের সূত্রপাত সেই সময় থেকেই।

স্বাধীনতা পাওয়ার পর একাত্তর বছর কেটে গিয়েছে। দেশ তার বাহাত্তরতম স্বাধীনতা দিবস পালন করল এবার। অতীতের সেই পরিস্থিতি আর না থাকলেও, তিক্ত স্মৃতিটা এখনও আছে। তাই যারা আমাদের একদিন পরাধীন করে রেখেছিল সেই দেশের কোনও মানুষের কাছ থেকে যখন শুভেচ্ছা বার্তা আসে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে, তখন তা অবাক করে দেওয়ার মতো ঘটনা বটে। আবার খুশির উদ্রেগ করে। ভারত আর ইংল্যান্ডের মধ্যে যোগাযোগটা যেহেতু তিন শতাব্দী প্রাচীন আর সে দেশের কল্যাণে ক্রিকেট খেলাটা যেহেতু আমাদের রক্তে মিশে রয়েছে, তাই দু’দেশের সম্পর্ককে নাড়ির যোগ বলতেই হবে। অতীত দিনেও ইংল্যান্ডে এমন মানুষ ছিলেন যাঁরা পরাধীনতাকে খুব একটা ভালো চোখে দেখতেন না। আর ইংরেজরা যা করেছিল, তা ব্যবসা করার স্বার্থে। তবে, তার জন্য রক্তক্ষয়ের পথে হাঁটা অবশ্যই নিন্দনীয় কাজ।

স্বাধীনতা দিবসে আমরা সেই সমস্ত অমর যোদ্ধাদের স্মরণ করি যাঁরা নিজেদের জীবন দিয়ে দেশমা’কে পরাধীনতার শৃঙ্খলমুক্ত করেছিলেন। আজ আমরা তাঁদের আত্মবলিদানের জন্য নিজেদের স্বাধীন দেশের নাগরিক বলতে পারছি। প্রত্যেক বছর ১৫ অগস্ট দিনটা এলে দেশের রাজধানী অঞ্চল সংলগ্ন ঐতিহাসিক লালকেল্লায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন দেশের প্রধানমন্ত্রী। তবে, দেশের মানুষের দারিদ্রতা এবং অনাহারে শিশুমৃত্যু ঘটনায় জর্জরিত ভারতকে অনেক বোদ্ধা প্রকৃত স্বাধীন দেশ বলতে চান না। কারণ পেটেয় দায়ে সকালে উঠে স্কুল যাওয়ার পরিবর্তে অনেক শিশুকেই ছুটতে হয় রোজগারের উদ্দেশে। দেশের শিশুশ্রম আইনত অপরাধ হলেও, তা রোজই লঙ্ঘিত হয়ে চলেছে প্রতিনিয়ত কোনও না কোনও কোণায়।

ইংলিশ মহিলা ক্রিকেটারের শুভেচ্ছা স্বাধীনতা দিবসে…

ইংলিশ মহিলা দলের তারকা ক্রিকেটার সারা টেলর। বর্তমানে মহিলা ক্রিকেটে অন্যতম সেরা উইকেটকিপার-ব্যাটসউইমেন সারা ভারতের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে শুভেচ্ছাবার্তা পাঠিয়েছেন। সোশ্যাল নেটওয়ার্কিয় সাইট ট্যুইটারে ইংলিশ মহিলা তারকার ট্যুইট –

”সমস্ত ভারতবাসীকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা”


উল্লেখ্য, মহিলা ক্রিকেট ইতিহাসের সর্বকালে অন্যতম সেরা উইকেটকিপার-ব্যাটসউইমেন সারা ইংল্যান্ডে হয়ে এখনও পর্যন্ত ৯টি টেস্ট ম্যাচ, ১১৮টি ওডিআই এবং ৮৯টি টি-২০ ম্যাচ খেলেছেন। তিন ধরণের ফরম্যাটে তাঁর রান যথাক্রমে – ২৯৫, ৩৯৪৫ ও ২১৭৫। ওডিআই আসরে সাতটি শতরানও করেছেন সারা। ভারতের তাঁর ফ্যানবেসও দুর্দান্ত। গত বছর ইংল্যান্ডের কাছে মহিলা বিশ্বকাপের ফাইনালে ভারত পরাজিত হয়। সেই দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন সারা টেলর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: