ব্রেকিং: বড় পাঁচ হেভিওয়েট বুদ্ধিজীবী যোগ দিলেন বিজেপিতে

লোকসভা নির্বাচনে নিজেদের ক্ষমতা বহাল রাখতে উঠে পড়ে লেগেছে গেরুয়া শিবির। দেশের বিভিন্ন রাজ্যগুলিতে প্রচার প্রক্রিয়ায় কোনো খামতি রাখতে নারাজ তারা। ইতিমধ্যেই লোকসভা নির্বাচনের রণকৌশন তৈরি করে নিয়েছে গেরুয়া শিবির। পরবর্তী নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গ ওড়িশা ও কেরল বিজয় বিজেপির লক্ষ বলে জানিয়ে দিয়েছে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। ইতিমধ্যেই বিভিন্ন রাজ্যগুলিতে রণকৌশল স্থির করে দিয়েছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। এবার লোকসভা নির্বাচনের পূর্বেই কেরলে বিজেপিতে যোগ দিলেন কয়েকজন হেভিওয়েট নেতা। বলা যায় কেরলে লোকসভা নির্বাচনের আগেই এক ধাপ এগিয়ে গেল গেরুয়া শিবির।

কেরলের কন্নুরে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের সভায় পাঁচ হেভিওয়েট নেতৃত্ব যোগ দেন গেরুয়া শিবিরে। এই তালিকায় রয়েছেন ইসরোর চেয়ারম্যান মাধবন নায়ার, ট্রাভাঙ্কোর বোর্ডের প্রাক্তন সভাপতি ও কেপিসিসি এক্সিকিউটিভ কমিটির সদস্য জি রমন নায়ার, মহিলা কমিশনের প্রাক্তন সদস্য ডঃ প্রমিলা দেবী, জেডিএস-এর ভাইস প্রেসিডেন্ট কারাকুলাম দিবাকরণ নায়ার ও মালানকরা চার্চের থমাস জন।

মূলত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়েই এই বিশিষ্ট নেতৃবৃন্দ বিজেপিতে যোগদান করেন। এমনকি অমিত শাহের নির্দেশনায় তারা দলের দায়িত্ব পালন করতে চান বলে জানিয়েছেন। তাদের দাবি মোদীজি ভারতকে উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিয়ে চলেছেন। যে কারণে গেরুয়া শিবিরে যোগদান করে গেরুয়া শিবিরের হয়ে কাজ করে দেশের উন্নয়ন যজ্ঞে নিজেদের ব্রত করতে চান এই সমস্ত নেতারা। এদেরকে আমন্ত্রণ জানাতে কেরালায় উপস্থিত ছিলেন অমিত শাহ। বিজেপিতে যোগদান করার পর এই নয়া নেতৃত্বদেন নিয়ে তাজ তিবন্ত হোটেলে সংবর্ধনা দিয়ে তাদের দলে আহ্বান জানান অমিত শাহ। সুতরাং লোকসভা নির্বাচনের আগেই লক্ষ্যে থাকা কেরালায় এতজন নেতৃত্ব একসঙ্গে দলের অংশগ্রহণ করায় বিজেপি যে সেখানে আরও শক্তিশালী হয়ে উঠল তা বলা বাহুল্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: