মমতা ঝড় রুখতে ৪০০ জনের বিশেষ দল গড়ছে বিজেপি

হাতে আর এক বছরও নেই। কিন্তু ‘টার্গেট’ এখনও বহু দূর। আসানসোলে দু’দিনের বিশেষ বৈঠকে পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় রাজ্য বিজেপির সাংগঠনিক অগ্রগতি নিয়ে হতাশা প্রকাশ করেছেন বলে খবর। ২০১৯-এর ভোটে এ রাজ্য থেকে ২২টি আসন পাওয়ার যে টার্গেট অমিত শাহ বেঁধে দিয়েছেন, সেখানে পৌঁছতে বাংলায় খুব দ্রুত সংগঠন বাড়াতে হবে বিজেপিকে। বিশেষ বৈঠকে এমনই বার্তা দিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব।

এখন থেকে প্রতিটি পদক্ষেপ লোকসভা নির্বাচনকে মাথায় রেখেই করা হবে, এমন সিদ্ধান্তও হয়েছে। তবে সংগঠন এখনও সেই স্তরে পৌঁছনো যায়নি, যে স্তরে গেলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো মহাশক্তির বিরুদ্ধে লড়াই করা যায়। তাই সংগঠনকে মজবুত করতে এবার নয়া কৌশল অবলম্বন করল বিজেপি। ওয়ান ইন্ডিয়ার খবরের ভিত্তিতে জানা গিয়েছে, আসানসোলে বিজেপির বিশেষ বৈঠকে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব ও রাজ্যস্তরের শীর্ষনেতৃত্ব সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত নিল সংগঠন বাড়াতে প্রতিটি জেলায় বিশেষ অভিযান চালানোর।

সেই জন্য ৪০০ জনকে নিয়ে দল গঠন করা হল। তাঁদের ছোট ছোট দলে ভেঙে প্রতিটি বুথে গিয়ে সংগঠন বাড়াতে নির্দেশ দেওয়া হল। তাঁরা প্রতি বুথে গিয়ে বুথ সভাপতিদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। প্রয়োজনীয় নির্দেশ দেবেন। সেইসঙ্গে দলের প্রকৃত অবস্থা বুঝে তা দলের শীর্ষ নেতৃত্বের কাছে রিপোর্ট করবে ওই বিশেষ দল।

বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের কাছে রিপোর্ট এসেছে, বহু বুথে বিজেপির কর্মী সংখ্যা ৫০ জনও নেই। কেন কর্মী সংখ্যা বাড়ছে না দলের, তা খতিয়ে দেখতেই এই বিশেষ ব্যবস্থা। বিজেপির রাজ্য পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয় বলেন, তৃণমূলের বিরুদ্ধে লড়াই করতে গেলে প্রতিটি বুথ শক্তিশালী করতে হবে। তা না হলে সংগঠনকে মজবুত করা যাবে না। কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কথায়, ইগোর লড়াই ছাড়তে হবে। সবাইকে একসঙ্গে নিয়ে চলতে হবে। দলে নতুনদের জায়গা করে দিতে হবে। এদিকে, মমতার ব্রিগেড সভার পাল্টা ব্রিগেড সভা করার কথা ঘোষণা করল বিজেপি। ১৯ জানুয়ারির ঠিক ৪ দিনের মাথায় ২৩ জানুয়ারি-ই বিজেপি ব্রিগেডে সভা করবে বলে জানিয়ে দিল।

বিজেপির তরফে জানানো হয়েছে, ২৩ জানুয়ারির ব্রিগেড সভায় প্রধান বক্তা থাকবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। শুধু তাই নয়, সেদিন বাংলার রাস্তায় বেরবে রথ। জেলায় জেলায় সেই রথ বের করবে বিজেপি। উল্লেখ্য, বিরোধীদের একত্রিত করে ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে বিজেপিকে উচ্ছেদ করতে একুশের মঞ্চ থেকেই ‘দিল্লি দখল’-এর ডাক দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ২০১৯-এর ১৯ জানুয়ারি ‘দিল্লি দখল’ করা হবে বলে ঘোষণা করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো। এদিন ২১ জুলাইয়ের সমাবেশ থেকে মমতা ঘোষণা করেন, ১৯ জানুয়ারি মাসে ব্রিগেডে একটি সভার আয়োজন করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: