বইমেলায় কিনতে পাওয়া পাওয়া যাচ্ছে এক বিশ্বসেরা ক্রিকেটারের নিজের লেখা ছোটদের বই, কে লিখলেন, কোথায় পাওয়া যাচ্ছে জানুন

তিনি এখন বিশ্ব ক্রিকেটের তিনটি ফরম্যাটের এক নম্বর অলরাউন্ডার। সাফল্য ও পরিসংখ্যানের বিচারে বাংলাদেশের সবর্কালের সেরা ক্রিকেটার তো বটেই, বিশ্ব ক্রিকেটের সেরাদের মধ্যেও তিনি একজন। সেই সাকিব আল হাসান এবার লেখকের ভূমিকায়। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান শুধু খেলোয়াড় হিসেবে পরিচিত হয়ে সন্তুষ্ট নন। খেলোয়াড়ের পাশাপাশি ‘লেখোয়াড়’ও বনে গেছেন সাকিব। নিজের প্রথম বই ‘হালুম’ নিয়ে বাংলাদেশের অমর একুশে বইমেলায় হাজির হয়েছেন সাকিব। এখন চোটের কারণে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে ছিটকে গিয়েছেন। দলের বাইরে থাকা বাংলাদেশের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক তাই এই সুযোগে নিজের লেখা বইয়ের উদ্বোধন করে ফেলবেন।

Shakib-Al-Hasan

সাকিবের ফেসবুকের প্রোফাইলের ছবিতেও এখন তাঁর লেখা বইয়ের কভার পেজ। ব্যাট-বলের অনুশীলনের ফাঁকে ফাঁকে যে দিনরাত জেগে সাকিব লিখে ফেললেন বই। শিশুদের জন্য সাকিবের লেখা বইয়ের নাম-হালুম। নামটা তো আগেই বলা হয়েছে। আজ বেলা তিনটা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত নিজের বইয়ের প্রচারে ব্যস্ত থাকলেন সাকিব। সবাইকে বই পড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাঘের মতো গর্জন করার মন্ত্রও শিখিয়ে দিয়েছেন! ‘হালুম!’তিনিই বাংলাদেশের প্রথম খেলোয়াড় যিনি এভাবে ছোটদের জন্য বই লিখলেন।

এর আগে বিভিন্ন পত্রিকায় কলাম লিখতে দেখা গেলেও এবারই প্রথমবারের মতো বই লিখলেন বাংলাদেশের এই ক্রিকেট সুপারস্টার। বাংলাদেশের পাবলিশার্স- পার্ল পাবলিকেশনস প্রকাশিত এ বইটি পাওয়া যাবে বইমেলার ৬ নম্বর প্যাভিলিয়ানে। আজ (৫ ফেব্রুয়ারি) বইটির মোড়ক উম্মোচিত হবে। এতে উপস্থিত থাকবেন সাকিব নিজেই। সাকিব আল হাসানের লেখা বই হালুমের প্রচ্ছদের ছবি সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট ফেসবুকে সাকিবের অফিশিয়াল পেজে আপলোড করা হয়েছে। পাশাপাশি সাকিব দিয়েছেন একটি ভিডিও বার্তা। এতে এই অলরাউন্ডার বলেন, ‘প্রিয় ভক্ত ও বন্ধুরা আশা করি সবার সঙ্গে দেখা হচ্ছে অমর একুশে বইমেলায় ৬ নম্বর প্যাভিলিয়ান পার্লে। এখানেই হবে আমার প্রথম অফিশিয়াল বই শিশুদের জন্য লেখা হালুমের পাঠ উন্মোচন । আমি কিন্তু থাকছি। তোমাদের সাথে দেখা হবে এবং অটোগ্রাফ হবে। বই পড়ো আর বাঘের মত গর্জন করো। হালুম!’

বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে-শ্রীলঙ্কা ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে ফিল্ডিং করতে গিয়ে চোট পান সাকিব আল হাসান। সেই চোটের কারণে খেলা হচ্ছে না শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজও। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সিনিয়র ফিজিশিয়ান দেবাশিষ চৌধুরী জানিয়েছেন সাকিব আল হাসানকে নিয়ে কোনো ঝুঁকি নিতে চায় না বাংলাদেশ। সম্পূর্ণ ফিট হয়েই ক্রিকেটে ফিরবেন তিনি। সাকিব কবে ফিরবেন তা নিশ্চিত করতে পারছেন না দেবাশিষ চৌধুরী। তবে শুনিয়েছেন আশার বাণী। তা হলো দ্রুত সেরে উঠছেন তিনি। সাকিব আল হাসানকে যে চিকিৎসকের পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে তিনি ভারতে আছেন বলে জানিয়েছেন দেবাশিষ চৌধুরী। চিকিৎসক ফেরার পর নেওয়া হবে সিদ্ধান্ত। ট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শেষ হলো বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা প্রথম টেস্ট। এই টেস্টে ছিলেন না বিশ্বের সেরা টেস্ট অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। ইনজুরির কারণেই ছিঁটকে গিয়েছিলেন সাকিব। প্রথম টেস্টে না থাকলেও দ্বিতীয় টেস্টে সাকিবের খেলার সম্ভাবনা ছিল। তবে সেটি আর হচ্ছে না!

ডাক্তাররা জানিয়েছেন, সাকিবের হাতের ব্যান্ডেজ খোলা হবে আগামী শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি)। এদিকে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টে বাংলাদেশ মাঠে নামবে সাকিবের ব্যান্ডেজ খোলার দুই দিন আগে। ৮ ফেব্রুয়ারি মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মাঠে নামবে দুই দল। যার ফলে প্রথম টেস্টের মতো দ্বিতীয় টেস্টেও খেলা হচ্ছে না বাংলাদেশ টেস্ট অধিনায়কের। এদিকে টেস্টের পর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। সেই সিরিজে সাকিব থাকবেন কিনা তা এখনও বলা যাচ্ছে না!

প্রসঙ্গত, ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে (২৭ জানুয়ারি) চোটের কবলে পড়েন বাংলাদেশ দলের সেরা খেলোয়াড় সাকিব আল হাসান। ফিল্ডিংয়ের সময় গুরুতর চোট পান তিনি। ম্যাচের প্রথম অর্ধের ৪১তম ওভারে মুস্তাফিজের প্রথম বলে শ্রীলঙ্কান অধিনায়ক দীনেশ চান্দিমালকে রান আউটের জন্য থ্রো করার সময় বাম হাতে আঙুলের নিচে ব্যাথা পান সাকিব। সাথে সাথেই মাঠের বাইরে চলে যান তিনি। যার ফলে সেই ম্যাচে আর মাঠে নামা হয়নি সাকিবের। ম্যাচে নিজের ১০ ওভারের বোলিং কোটাও পূরণ করা হয় নি এই অলরাউন্ডারের। পাশাপাশি ব্যাট হাতেও নামতে পারেন নি সাকিব। এদিকে চোট গুরুতর কিনা সেটি জানতে কিছু সময় পর হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছিল সাকিবকে। এক্স-রে করানোর পর ডাক্তাররা জানিয়েছিল, আঙুলের নিচে ফেঁটে গিয়েছে। যার ফলে দেওয়া হয়েছিল কয়েকটি সেলাই। সঙ্গে হাতে ব্যান্ডেজ লাগানো হয়। সেই ব্যান্ডেজ খোলা হবে ১০ ফেব্রুয়ারি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: