ভারত বাংলাদেশে ঢুকে হিন্দুদের স্বার্থরক্ষা করুক : কট্টর হিন্দুত্ববাদী বাঙালি নেতার হুঙ্কার

কিছুদিন আগেই বাংলাদেশে সংখ্যালঘু হিন্দুদের স্বার্থে সোচ্চার হয়েছিলেন বিজেপি সাংসদ সুব্রহ্মনিয়াম স্বামী এবং প্রয়োজনে বাংলাদেশ আক্রমণ করে দখল করার প্রস্তাবও দিয়েছিলেন ভারতকে। তার রেশ কাটতে না কাটতেই এবার কট্টরপন্থী হিন্দুত্ববাদী নেতা তপন ঘোষ দাবী তুললেন বাংলাদেশ যদি হিন্দুদের আশ্রয় দিতে না পারে তাহলে তাদের থাকার জন্য জায়গা ছেড়ে দিক ভারতকে নাহলে ভারতের সেনা বাহিনী বাংলাদেশ ঢুকে হিন্দুদের স্বার্থরক্ষা করুক।

১ লা নভেম্বর বৃহস্পতিবার মৌলালি যুব কেন্দ্রের বিবেকানন্দ অডিটোরিয়ামে ‘সৃজন’ এবং ‘সিংহবাহিনী’ নামে দুটি সংগঠনের উদ্যোগে “চার্টার অফ হিন্দু ডিমান্ড” নামে একটি সভার আয়োজন করা হয়৷ এটি মূলত হিন্দুত্ববাদীদের সভা এবং তাদের সাথেই জড়িত আটটি বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। সভায় বাংলাদেশ থেকে অনুপ্রবেশের প্রসঙ্গ তোলেন তপন ঘোষ। তিনি বলেন –

“গোরু ছাগলের মত মানুষকে পাঠিয়ে দিচ্ছে বাংলাদেশ। মুসলিমরা অত্যাচার করে এদেশে পাঠাচ্ছে আর আমরা সহানুভূতির খাতিরে তাদের গ্রহণ করছি। কিন্তু এর পর বাংলাদেশ ঠিক করুক তারা কি করবে। হয় ওপার থেকে আসা ছিন্নমূল হিন্দুদের বাসের জন্য ভারতকে খুলনা সহ আরও পাঁচটি হিন্দু অধ্যুষিত জায়গা দিয়ে দিক বাংলাদেশ, নয়ত ভারত নিজেই ছিনিয়ে নিতে বাধ্য হবে।”

চার্টার অফ হিন্দু ডিমান্ডে” র এই সভা দেশের আরও অনেক জায়গাতেই হচ্ছে এবং কলকাতা, দিল্লী, বেঙ্গালুরু দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে হিন্দুদের একাধিক দাবী নিয়ে সই সংগ্রহ চলছে। বিবেকানন্দ অডিটোরিয়ামের এই সভায় এদিন গো মাংসের রপ্তানী বন্ধ থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় সরকারের ধর্মীয় স্বাধীনতা আইনের সংস্কারের মতো বিষয় নিয়েও খোলাখুলি আলোচনা চলে। প্রসঙ্গত বলা ভাল বাংলাদেশে হিন্দুদের প্রতিদিন ক্রমাগত খারাপ অবস্থা হওয়ার পেছনে সেখানকার মুসলিম ও সরকারকে দায়বদ্ধ করেছেন এই হিন্দু নেতা। তিনি বলেন বাংলাদেশ ভারতের সরলতার সুযোগ নিয়ে এসেছে বারবার,  আজ অনুপ্রবেশের কারণে যে প্রবল জনজোয়ারে যুঝছে ভারত তার দায় বাংলাদেশকেই নিতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: