জানেন কোথায় ও কবে ভাসানো হবে বাজপেয়ীর চিতাভস্ম

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ গোটা দেশ৷ বৃহস্পতিবার বিকেলে এইমস হাসপাতালে তাঁর মৃত্যুর পর থেকে অর্ধনমিত রাখা হয়েছে জাতীয় পতাকা৷ চোখের জলে অটলবিহারি বাজপেয়ীকে বিদায় জানিয়েছেন দেশের লক্ষ কোটি মানুষ। শেষকৃত্যের পর উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ জানিয়েছেন, আগামী ১৯ অগাস্ট রবিবার উত্তরপ্রদেশের গঙ্গা, যমুনা, তাপ্তির মতো নদীগুলিতে ভাসানো হবে বাজপেয়ীর চিতাভস্ম৷

এই বিষয়ে যোগী আদিত্যনাথ বলেন,

‘মহাপুরুষ অটলবিহারি বাজপেয়ীর কর্মভূমি ছিল লক্ষৌ। উত্তরপ্রদেশের মানুষ যাতে বাজপেয়ীর শেষ যাত্রায় যুক্ত হতে পারেন, তার জন্যই রাজ্যের সব জেলার নদীগুলিতে তাঁর চিতাভস্ম ভাসানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ৭৫ টি জেলার ছোট-বড় নদীগুলির তালিকা করা হয়েছে।’

জানা গেছে, ১৯ আগস্ট রবিবার বাজপেয়ীর চিতাভস্ম প্রথমে ভাসানো হবে হরিদ্বারের গঙ্গায়। এরপর একে একে আগরায় যমুনা ও চম্বল, ইলাবাদে গঙ্গা, যমুনা ও টোন্স, বারাণসীতে গঙ্গা, গোমতী ও বরুণা, লখনউয়ে গোমতী, গোরক্ষপুরে ঘর্ঘরা, রাপ্তি, রোহিন ও আমি, বলরামপুরে রাপ্তি, কানপুরে গঙ্গা ও যমুনা-সহ অন্যান্য নদীতে ভাসানো হবে।

দিল্লির রাজঘাটে শেষকৃত্য সম্পন্ন হয় প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর৷ সেখানেই একে একে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী-সহ সকলেই তাঁকে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করেন৷ শুধু এদেশের নয় বিদেশ থেকেও এসেছিলেন তাঁর অসংখ্য গুণমুগ্ধ। ছিলেন ভুটানের রাজা জিগমে খেসার নামগিয়া ওয়াংচুক, ছিলেন বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী, শ্রীলঙ্কার বিদেশমন্ত্রী, পাকিস্তানের ভারপ্রাপ্ত তথ্য ও সংস্কৃতি মন্ত্রী সৈয়দ আলি জাফর।

আফগানিস্তানের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাই। আর ছিলেন তাঁর অসংখ্য গুণমুগ্ধ ভক্ত। বিকেল সাড়ে চারটে নাগাদ রাজঘাটে পঞ্চভূতে বিলীন হয়ে যান বাজপেয়ী৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: