ভারতের পাঁচটি জায়গা, যা ভারতীয়দের জন্যই নিষিদ্ধ!

দেশ স্বাধীন হবার ৭০ বছর পরেও দেশেরই এই জায়গা গুলোতে দেশের মানুষের প্রবেশ নিষেধ-

ফ্রি কাসোল ক্যাফে, কাসোল

এই জায়গাটি হিমাচল প্রদেশে। এই জায়গাটি বিদেশীদের জন্য চিল আউটের জায়গা। আশ্চর্যজনকভাবে এই ক্যাফেটির মালিক এক ভারতীয় মহিলার প্রবেশ আটকে দিয়েছিলেন, যদিও সেই সময় কিছু ইজরায়েলিকে তিনি স্বাগত জানিয়েছিলেন।

২. গোয়ার কিছু বীচ যা কেবল মাত্র বিদেশীদের জন্যই

গোয়ায় এমন কিছু বিখ্যাত বীচ রয়েছে যা শুধুমাত্র বিদেশীদের জন্যই খোলা। ভারতীয়দের সেখানে প্রবেশ নিষিদ্ধ। এর কারণ হিসেবে ধরে নেওয়া যেতে পারে ‘ বীচওয়্যার পরহিত বিদেশি অতিথিদের দিকে খারাপ নজরে এক দৃষ্টে তাকিয়ে থাকা’ থেকে বাঁচাতেই এই নিয়ম।

৩. চেন্নাইয়ের একটি নির্দিষ্ট লজ

চেন্নাইতে এমন একটি নির্দিষ্ট লজ রয়েছে যেটা একমাত্র বিদেশি পাসপোর্টধারীদের জন্যই সার্ভিস প্রদান করে। এর পেছনে ডেকান হের‍্যাল্ডের একটি গল্প রয়েছে। যেখানে বলা হয়েছে এই লজটি নিজেদের নিয়মের প্রতি ভীষণই কঠোর, এবং কোনো ভারতীয় কাস্টমারকেই সেখানে থাকার অনুমতি দেওয়া হয় না। এই লজটিকে ‘হাইল্যান্ড ছদ্ম’ নাম দেওয়া হয়েছে।

৪. উনো-ইন হোটেল, ব্যাঙ্গালোর

উনো-ইন হোটেলকে নিপ্পন ইনফাস্ট্রাকচার কম্পানির সঙ্গে মিলে ২০১২তে  স্থাপন করা হয়েছিল। জাপানি লোকদের জন্যই এই হোটেলের স্থাপনা করা হয়েছিল। তবে বৃহত্তর জাতিগত বৈষম্যের ভিত্তিকে কয়েকটি ঘটনার পর বৃহত্তর ব্যাঙ্গালোর সিটি কর্পোরেশন এই হোটেলটিকে বন্ধ করে দেয়।

৫. ‘ফরেনার অনলি’ বীচ, পন্ডীচেরি

পন্ডীচেরিতে বেশ কিছু বীচ, রেস্টুরেন্ট এবং শ্যাকস রয়েছে, যেগুলি শুধু মাত্র বিদেশীদের জন্যই খোলা। পন্ডীচেরি ভারতের অন্যতম বিখ্যাত কোস্টাল গেটওয়ে গুলির একটি। যদিও এই শহরের বেশ কিছু জাতিগত ট্যাবু রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: