রাত হলেই নিজের অটোকে অ্যাম্বুলেন্সে বদলে ফেলেন এই অটো ড্রাইভার, ফ্রি সার্ভিস দেন রাতে

একটি বিখ্যাত ইংরেজি প্রবাদ রয়েছে, “ প্রয়োজনের সময় যে বন্ধু, সেই বাস্তব বন্ধু’। কর্নাটকের মঞ্জুনাথ নিনগাপ্পা পুজারিও ঠিক সেই রকমই একজন বন্ধু। তিনি প্রতিদিন সন্ধ্যে ৬টা থেকে সকাল ৯টা পর্যন্ত একটি ওলা অটো চালান, এবং আপাতকালীন পরিস্থিতিতে থাকা মানুষজনদের ফ্রিতে তার অটোতে চড়িয়ে গন্তব্যে পৌঁছে দেন। যে কেউ রাতের যে কোনো সময়েই তাকে ফোন করতে পারেন এবং মঞ্জুনাথ সবসময়েই তাকে সাহায্য করতে প্রস্তুত।

সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে মঞ্জুনাথ জানান, “ এটা এমন কটা জিনিস যা আমি এক বছর আগে শুরু করেছিলাম। আর এই প্রয়োজনের সময় মানুষকে সাহায্য করাটা আমাকে ভীষণ আনন্দ দেয়। আমার সমস্ত জীবনভর, আমি সমাজসেবা করতে চাইতাম। এবং বর্তমানে আমি এটা করছি। আমি সত্যিই ভীষণ খুশি”। মঞ্জুনাথদের মত মানুষ ভীষণই দুর্লভ, কিন্তু তাদের অস্তিত্ব আছে এবং এরাই আমাদের আশাকে বাঁচিয়ে রেখেছেন।

মাকে হারানোর যন্ত্রনা থেকে হয়ে উঠেছেন এলাকার অ্যাম্বুলেন্স দাদা, আর তাকেই নিয়েই এবার বায়োপিক বলিউডে

প্রসঙ্গত মঞ্জুনাথ দিনের বেলাতে ন্যাশানাল হাইওয়েতে ওলা অটো চালান। পরে সন্ধ্যে ৬ টা থেকে সকাল ৯টা পর্যন্ত ওই ফ্রি অটো সার্ভিস দেন। এখানেই শেষ নয়, তিনি শেলটার হোমগুলির অভাবীদের জন্য নিজের আয়ের একটা বড়ো অংশও সাহায্য হিসেবে পাঠান। তার কথা অনুয়ায়ী তাকে প্রয়োজন হলে রাতের দিকে যে কোনো সময় ডেকে নেওয়া যায় এবং তিনি সেই ডাক প্রত্যাখান করেন না। মঞ্জুনাথের মত আরও একজন রয়েছেন।

তিনি হলে বছর পঞ্চাশের করিমুল হক। পশ্চিমবঙ্গের জলপাইগুড়ী জেলার ধলাবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা করিমুল এলাকায় পরিচিত অ্যাম্বুলেন্স দাদা নামে। চা বাগানের এই শ্রমিক গ্রামের মানুষের কাছে এক আশ্চর্য আশার আলো। দীর্ঘ ১৯ বছর ধরেই তিনি তার বাইকটিকে অ্যাম্বুলেন্সের রূপ দিয়ে দুর্বল এবং অসুস্থ মানুষদের হসপিটালে পৌঁছে দেন। নিউজ এক্সপি মঞ্জুনাথকে স্যালুট জানায় তার এই কাজের জন্য যা তিনি দীর্ঘদিন ধরেই করে আসছেন।

এই ধরনের পরিস্থিতিতে এরকম সুযোগ সুবিধা থাকা অপরিহার্য যখন অ্যাম্বুলেন্সের অভাবের কারণে এখনও ভারতের বহু লোক মারা যান। আমাদের সিস্টেমে প্রশাসনের উদাসীনতা এতটাই নিখুঁত যে বহু নির্দোষ মানুষের মৃত্যু আমাদের গ্রাস করে। আর এই ধরনের পরিস্থিতিতেই মঞ্জুনাথ এবং করিমুল হকের মত মানুষেরা আমাদের কাছে আশার আলো হয়ে ওঠেন।

গলি থেকে রাজপথে কলকাতার একমাত্র মহিলা বাস ড্রাইভার প্রতিমা!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: