চিনে মাটির নীচে বসবাস করে আস্ত একটি গ্রাম! দেখে নিন বিস্ময়কর কিছু ছবি

সত্যিই পৃথিবীটা কি অদ্ভুত। এখনও এমন কয়েকটা জিনিস আছে যা সত্যিই অজানা। যার হদিশ মাটি খুঁড়েও মেলেনি। অনেকদিন আগে মাটির নীচে বাড়ির কথা শোনা গেলেও আজ সেগুলো ইতিহাসেরই সাক্ষী হয়ে আছে। পাতালরেল বা পাতালবাড়ি দেখা গেলেও পাতাল গ্রামের কথা হয়তো কেউ শোনেননি। শুনতে অবাক লাগলেও এমনই একটি গ্রাম রয়েছে এই বিশ্ব-ব্রহ্মান্ডে।

অত্যন্ত এই রহস্যময় গ্রামটিতে প্রায় দুশো বছর ধরে বংশ পরম্পরায় বাস করছেন অনেক পরিবারই। এখন সেখানকার জনসংখ্যা দাঁড়িয়েছে তিন হাজারেরও বেশি। এই গ্রামটির কথা ইতিহাসের পাতায় না থাকলেও এর কিন্তু অস্তিত্ব রয়েছে। মাটির নীচে এই ঘরগুলিকে চিনা ভাষায় বলা হয় ইয়ায়োডং।

ড্রোন ফুটেজে ধরা পড়ল চীনের সেই গ্রামের দৃশ্য।

চিনের হেনান প্রদেশে কাছে এই পাতাল গ্রামের তিনহাজার সদস্য বাদে অন্যান্যরা চলে গেছেন অন্য জায়গায়। মাটির ওপরে গ্রাম্য পরিবেশ যেমন হয় ঠিক তেমনই পরিবেশ রয়েছে চিনের সেই গ্রামে। রয়েছে চারকোনা ঘর, শৌচালয়, জল সরবরাহের নালা, নর্দমা, কুয়ো এবং আরো কতকি।

এবং বর্তমানে স্থানীয় প্রশাসনের দৌলতে সেখানে পৌঁছেছে বিদ্যুত। গরম ও শীতে মনোরম আবহাওয়া থাকে চিনের সেই পার্বত্য অঞ্চলে। সেখানকার মানুষের জীবিকা নির্বাহের জন্য রয়েছে চাষবাসেরও সুবন্দোবস্ত।

আজ থেকে আনুমানিক চার হাজার বছর আগে এই বাড়িগুলি বানানো হত বলেই শোনা যায়। তবে আজকের দুনিয়ায় যদিও মাটির নীচের গ্রামের কথা ভাবাই যায় না। তাই সেই স্থানটি পর্যটন ক্ষেত্র হিসেবেই পরিগনিত হচ্ছে। প্রতিদিনই শয়ে শয়ে পর্যটক অজানা গ্রামে ঢুঁ মেরে আসছেন।

Source : Daily Mail UK

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: