প্রচুর সরকারি কর্মী নিয়োগ, বিশদ জানতে প্রতিবেদনটি দেখুন!

অতীত দিনের তুলনায় বর্তমানে জনসংখ্যা যেভাবে বেড়েছে ভারতে, তাতে চাকরি বাজার আসতে আসতে সঙ্কুচিত হয়েছে। বর্তমানে দেশের যুব সমাজের এটাই সবচেয়ে বড় সমস্যা। চাকরি বাজার সীমিত আর পেট ভরার মতো পর্যাপ্ত অর্থের যোগান নেই। ভারতীয় রাজনীতি অনেকাংশেই এই সমস্যার ওপর দাঁড়িয়ে দিক বদল করছে সময়ে সময়ে। গোটা দেশের সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গেও একই সমস্যা। বেকারত্ব নিয়ে চিন্তিত যুব সম্প্রদায়। তাছাড়া, চাকরির সুযোগ কোনও কোনও ক্ষেত্রে থাকলেও বাধা হয়ে দাঁড়ায় শিক্ষাগত যোগ্যতা। কখনও সেই বাধা ঊর্ধ্বমুখী, আবার কখনও সেই বাধা নিম্নমুখী। পশ্চিমবঙ্গসহ দেশের বিভিন্ন গ্রামগঞ্জে শিক্ষাগত যোগ্যতার শহরাঞ্চলের তুলনায় অনেকটাই কম।

আসতে আসতে সেই অনুপাত অবশ্য কমে আসছে। তবে, পুরোপুরি কমতে সময় লাগবে এখনও। শিক্ষাগত যোগ্যতার ওপরেই চাকরি বাজারের সহজলভ্যতা নির্ভর করে। কারণ, যে কোনও চাকরি পেতে গেলে একটা নির্দিষ্ট শিক্ষাগত যোগ্যতা প্রয়োজন। পশ্চিমবঙ্গের মেদিনীপুর জেলা বর্তমানে দু’ভাগে বিভক্ত – পূর্ব ও পশ্চিম। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় প্রচুর কর্মী নিয়োগ চলছে। এক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা অষ্টম এবং দশম শ্রেণি পাস। তবে, পুরুষরা নয়, শুধুমাত্র মহিলারাই এই চাকিরর জন্য আবেদন করতে পারবেন। জেলার যে যে জায়াগায় নিয়োগ চলছে, সেটা আগে বলে রাখা জরুরি। খড়্গপুর পুরসভা এবং খড়্গপুর-১ ও গড়বেতা-৩ ব্লকের আধিকারিকের অফিসে কর্মী প্রয়োজন। সেখানে সুসংহত শিশুবিকাশ সেবা প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। তারই জন্য এই কর্মী নিয়োগ শুরু করা হয়েছে। মোট ১১৮ জন মহিলা কর্মী নিয়োগ করা হবে অঙ্গলওয়াড়ি কেন্দ্রগুলি এবং অফিসের সহায়িকা কর্মী হিসেবে।

সুসংহত শিশুবিকাশ সেবা প্রকল্পের অফিসে সহায়িকা পদে চাকরির উদ্দেশ্যে আবেদন করার জন্য প্রার্থীর শিক্ষাগত যোগ্যতা ধরা হয়েছে অষ্টম শ্রেণি পাশ। আর অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী পদে চাকরির জন্য দরখাস্ত করতে হলে ইচ্ছুক প্রার্থীকে মাধ্যমিক পাশ হতেই হবে। দুই পদের জন্যই আবেদনকারীর বয়সসীমা চলতি বছরের ১৭ অগস্টের হিসেব অনুযায়ী ১৮ থেকে ৪৫-এর মধ্যে থাকতে হবে। খড়্গপুর পুরসভায় শূন্যপদ রয়েছে ৪৮টি। এর মধ্যে ১৭টি অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রে কর্মী প্রয়োজন। বাকি ৩১টি শূন্যপদ সহায়িকা কর্মীর। কর্মী নিয়োগের জন্য জারি করা বিজ্ঞপ্তি নম্বর – 123/ICDS/KGP (U)। এবার খড়্গপুর এক নম্বর ব্লকে নিয়োগ করা হবে ৩৫ জনকে। তার মধ্যে অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রে শূন্যপদের সংখ্যা ৮টি। বাকি ২৭টি শূন্যপদ সহায়িকা কর্মীর। কর্মী নিয়োগের জন্য জারি করা বিজ্ঞপ্তি নম্বর – 249/ICDS/KGP-1। গড়বেতা তিন নম্বর বল্কে ১০টি শূন্যপদ রয়েছে। কর্মী নিয়োগের জন্য জারি করা বিজ্ঞপ্তি নম্বর – 123/ICDS/GARHBETA-3। উল্লেখ্য, ইচ্ছুক মহিলা প্রার্থীকে ১২ সেপ্টেম্বেরর মধ্যে আবেদন করতে হবে। তবে, কোনও প্রার্থী দু’টি পদের জন্য আবেদন দাখিল করতে পারবেন না। একটি পদেই আবেদন সীমাবদ্ধ রাখা হয়েছে।

আবেদনপত্র গ্রহণের পর লিখিত পরীক্ষা এবং পরে মৌখিক পরীক্ষায় বসতে হবে প্রার্থীদের। লিখিত পরীক্ষা ৯০ নম্বরের হবে। তাতে পাশ করতে পারলে, তবেই মৌখিক পরীক্ষায় ডাক আসবে। লিখিত পরীক্ষা নভেম্বর মাসর চার তারিখে করানোর কথা ভেবে দেখছে কর্তৃপক্ষ।

আবেদনপত্র জমা করা এবং পরীক্ষা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার সরকারি ওয়েবসাইট, www.paschimmedinipur.gov.in-এ চোখ রাখুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: