Breaking- মোদী সরকারের ‘সবচেয়ে বড় দুর্নীতি’ ফাঁস রাহুল গান্ধীর!

ফ্রান্সের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ফ্রাসোঁয়া ওঁল্যাদের দাবির পরেই রাফাল চুক্তি নিয়ে শনিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে সরাসরি আক্রমণ করলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধি৷ বললেন, ‘ভারতের আবেগের সঙ্গে খেলা করেছেন প্রধানমন্ত্রী৷ এটা জাতীয় লজ্জা৷’প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ‘চোর’ বলে সম্বোধন করলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। ফ্রান্সের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ফ্রাসোয়াঁ ওলাঁদের সঙ্গে চুক্তি হয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। এই চুক্তিতে একমাত্র প্রধানমন্ত্রীর স্বাক্ষর রয়েছে। তাই জবাব প্রধানমন্ত্রীকেই দিতে হবে বলে শনিবার সাংবাদিক বৈঠকে দাবি করলেন রাহুল গান্ধী।

কার্যত রাহুল গান্ধীর সুরেই ফ্রান্সের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ওলাঁদ এক সাক্ষাত্কারে দাবি করেন, রাফাল প্রোজেক্ট পাইয়ে দিতে অনিল আম্বানির সংস্থার নাম প্রস্তাব রাখে ভারতই। এ ক্ষেত্রে যুদ্ধ বিমান প্রস্তুতকারক ফরাসি সংস্থা দ্যাসো অনিল আম্বানির সংস্থা বেছে নেয়নি। কিন্তু প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের তরফে বারংবার দাবি করা হয়েছে, উপযুক্ত পরিকাঠামো না থাকায় হ্যাল-র পরিবর্তে অনিল আম্বানির সংস্থাকে বেছে নেয় দ্যাসো। রাহুল এ দিন স্পষ্ট করেন, ওলাঁদ যদি মিথ্যে কথা বলেন, তা হলে প্রধানমন্ত্রী জবাব দিন। রাহুলের দাবি অনুযায়ী, ওলাঁদ কার্যত নরেন্দ্র মোদীকে মিথ্যে বলে প্রমাণিত করছেন। বিশ্বের কাছে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর অবমাননা অপমানজক। রাহুল বলেন, “প্রধানমন্ত্রীর সম্মান রক্ষার্থে আমি সাহায্য করছি। দয়া করে প্রধানমন্ত্রী রাফাল চুক্তি নিয়ে মুখ খুলুন।”

ফ্রান্সের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট দাবি করেন, রাফাল চুক্তির সময় একটি বেসরকারি ভারতীয় সংস্থাকে ববরাত পাইয়ে দেওয়ার জন্য চাপ দিয়েছিল মোদি সরকার৷ যদিও ওঁল্যাদের বক্তব্য খারিজ করে ফ্রান্স সরকার জানিয়ে দিয়েছে, ভারতের তরফে কোনও চাপ ছিল না৷ কোনও বিশেষ কোম্পানিকে সিলেক্ট করার জন্য চাপ দেয়নি ভারত সরকার৷ রাফাল চুক্তি নিয়ে এ হেন বিতর্কের মাঝে মোদিকে তুলোধনা করলেন রাহুল৷ তাঁর কথায়, ‘১ লক্ষ৩০ হাজার কোটি টাকার প্রতারণা৷ ভারতের প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে এটা সার্জিক্যাল স্ট্রাইক৷’ রাফাল চুক্তির পরিমাণ ২০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার, ভারতীয় মুদ্রায় ১ লক্ষ ৩০ হাজার কোটি টাকা৷ রাফাল যুদ্ধ বিমানচুক্তিতে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমণের পদত্যাগও দাবি করেছেন রাহুল৷

রাফাল যুদ্ধবিমান কেনার ক্ষেত্রে অনিল আম্বানির সংস্থা রিলায়েন্সকে বেছে নেয়নি ফরাসি সরকার। এমনটাই জানিয়ে দিল সে দেশের বিদেশ মন্ত্রক। ফলে রাফাল ডিলে রিলায়েন্সকে বরাত পাইয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠছে তার ওজন একেবারেই কমে গেল। উল্লেখ্য, গতকাল এক ফরাসি সংবাদপত্রের প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, প্রাক্তন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ফ্রাসোয়াঁ ওল্যাঁদ দাবি করেছেন যে ডসল্টের অংশীদার সংস্থা হিসেবে রিলায়েন্সের নাম প্রস্তাব করেছিল ভারত সরকার। ফলে রিলায়েন্সকে অংশীদার করা ছাড়া আর কোনও উপায় ছিল না। আম্বানির সঙ্গে রফা করে ডসল্ট।

ফরাসি প্রসিডেন্টের ওই বক্তব্য প্রকাশ্যে আসতেই সরগরম হয়ে ওঠে দেশের রাজনৈতিক মহল। টুইট করে প্রধানমন্ত্রী মোদীকে নিশানা করেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। কংগ্রেস সভাপতি লেখেন, ”প্রধানমন্ত্রী মোদী বন্ধ দরজার ভেতরে রাফাল চুক্তি কাটাছেঁড়া করেন। ফ্রাসোয়াঁ ওল্যাঁদকে ধন্যবাদ। আমরা জানতে পারলাম, কয়েক কোটি টাকার চুক্তি দেনাগ্রস্ত অনিল আম্বানিকে পাইয়ে দেওয়া হয়েছে। ভারতের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। সেনাবাহিনীর আত্মত্যাগের রক্তের অসম্মান করেছেন”।

ফরাসি সরকারের তরফে এক বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে, ২০১৬ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর ভারত ও ফরাসি সরকারের মধ্যে ৩৬টি রাফাল যুদ্ধবিমান কেনার চুক্তি হয়। সেখানে রাফালের অংশীদারি সংস্থা বাছার ক্ষেত্রে ফরাসি সরকারের কোনও হাত ছিল না। এক্ষেত্রে কোনও অংশীদার খুঁজে নেওয়ার অধিকার ডসল্টের রয়েছে।অন্যদিকে, ডসল্ট এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ভারতের মেক ইন ইন্ডিয়া প্রকল্পের আওতায় ডসল্ট রিলায়েন্সকেই বেছে নিয়েছে। এর ফলে ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে তৈরি হয়েছে ডসল্ট রিলায়েন্স এরোস্পেস লিমিটেড। নাগপুরে দুই কোম্পানি রাফাল তৈরির জন্য একটি প্ল্যান্টও তৈরি করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: