পঞ্চায়েত ভোটের ফলে যে সব নেতার গুরুত্ব দলে বহুগুণ বাড়ল!

সবুজ ঝড় বয়েছে রাজ্যজুড়ে। সব জেলাতেই তৃণমূলের দাপট। নিরঙ্কুশ সংখ্যা গরিষ্ঠতায় জয় এসেছে। আর ভোটই তো হয়েছে 66 শতাংশ আসনে। অতএব তৃণমূলের নেতাদের যে কত গুরুত্ব যে বাড়তে চলেছে তা মনেই করছে রাজনৈতিক মহল। কিন্তু তাঁরা কারা ?

একবার দেখে নেওয়া যাক-

৫) অরুপ বিশ্বাস

তৃণমূলের পঞ্চায়েত ভোটের রণকৌশল ঠিক করতে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দুর্গাপুরের একটি হোটেলে দলের জেলা পর্যবেক্ষক তথা ক্রীড়া ও যুবকল্যান মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস বৈঠক করেন জেলা নেতাদের সঙ্গে৷ বৈঠকে আসানসোল দুর্গাপুরের সমস্ত বিধায়ক-সহ উপস্থিত ছিলেন দলের ব্লক সভাপতিরাও৷ বৈঠকে দলের পক্ষ থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী তৃণমূল প্রার্থীদের এলাকায় প্রতিটি ভোটারের বাড়িতে বাড়িতে যেতে হবে৷ বিনা ভোটে জয়ী হলেও এলাকায় জোরদার প্রচার চালাতে হবে পঞ্চায়েত নির্বাচন নিয়ে৷ তৃণমূলের গোঁজ প্রার্থীদের হ্যান্ডবিল ছাপিয়ে বিলি করতে হবে৷ দলীয় অফিসিয়াল প্রার্থীদের হয়ে তাদের প্রচার করারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷ এই নির্দেশ অমান্য করা হলে বা ওই গোঁজ প্রার্থীদের দলের যে অংশ মদত দেবে তাদের বিরু‌দ্ধে দল কড়া ব্যবস্থা নেবে বলে পর্যবেক্ষক অরূপ বিশ্বাস সাফ জানিয়ে দিয়েছেন বলে দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে৷ এটা ছিল অরূপ বিশ্বাসের ভোটের আগের কাজ। সাফল্য এসেছে। তাই তাঁর গুরুত্ব বাড়তে চলেছে বলেই রাজনৈতিক মহলের মত।

৪) জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক

জেলার সব স্তরের নেতা-কর্মীর সঙ্গে সমন্বয় রেখেই পঞ্চায়েতের প্রার্থী বাছাই করার নির্দেশ দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উত্তর ২৪ পরগনা জেলার পঞ্চায়েত ভোটের দায়িত্ব শুক্রবার সেইমতোই ভাগ করে দেওয়া হল শাসক দলে। জেলা সভাপতি বা কোনও বিধায়ক একক সিদ্ধান্তে যে প্রার্থী বাছতে পারবেন না, তা বুঝিয়ে দিয়েছেন তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সী। সব ব্লকের নেতা-কর্মীর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বিধায়ক আলোচনা করে প্রার্থী বাছবেন। কোথাও যোগ্য বা দলের পুরনো কর্মী বঞ্চিত হলেন কি না, তা তালিকা চূড়ান্ত হওয়ার আগে জেলা পর্যবেক্ষক নির্মল ঘোষ ও জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিককে অবশ্যই যাচাই করে নিতে বলা হয়েছে বলে তৃণমূল সূত্রের খবর। যেভাবে তীক্ষ্ণতার সঙ্গে তিনি পঞ্চায়েত ভোটে প্রার্থী বেছেছেন তাতে দায়িত্ব আরও বাড়তে পারে বলে রাজনৈতিক মহলের মত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: