জওয়ানদের উদ্দেশ্যে বিতর্কিত মন্তব্য বিজেপি সাংসদের, শেষে জনসমক্ষে ক্ষমা প্রার্থনা

জম্মু কাশ্মীরের অবন্তীপুরায় অতর্কিতে সিআরপিএফ ক্যাম্পে জঙ্গি হানায় এবং সেনা ও জঙ্গিদের গুলির লড়াইয়ে ৫ সিআরপিএফ জওয়ানের মৃত্যুর ঠিক একদিন পরই সেনাদের নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেন বিজেপি সাংসদ নেপাল সিং। তিনি বলেন, বিশ্বের সব দেশেই যুদ্ধের ময়দানে নেমে সেনা জওয়ানকে মৃত্যুবরণ করতে হয় এবং সেটা খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার। সেনা হলেই মরতে হবে এটাই স্বাভাবিক।

জওয়ানদের বলিদানের প্রসঙ্গে এরকম বিতর্কিত মন্তব্য করায় সমালোচনার ঝড় ওঠে সারা দেশে ও রাজনৈতিক মহলে। নিজের এই মন্তব্যের জন্য অবশেষে ক্ষমা প্রার্থনা করতে বাধ্য হন এই বিজেপি সাংসদ।

রামপুরের এই বিজেপি সাংসদ সেনা বলিদান ও জম্মু কাশ্মীরে সেনাদের ওপর জঙ্গি হামলার প্রসঙ্গ নিয়ে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেন, কোনো গ্রামে ঝামেলা বাঁধলে স্বাভাবিক ভাবেই কেউ কেউ আহত হন। সেভাবেই যুদ্ধের ময়দানে নেমে মৃত্যু হয় সেনাদের। এমন কোনো যন্ত্র এখনও আবিষ্কার হয়নি যাতে বুলেট কাজ করবে না এবং সেনা জওয়ানদের মৃত্যুও হবে না তাহলে। তাঁর এই মন্তব্য নিয়ে ওঠে বিতর্কের ঝড়। বিতর্কিত এই মন্তব্যের সমালোচনা শুরু করেন প্রায় সকল রাজনৈতিক নেতা। পরে নিজের এই মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চাইতে বাধ্য হন বিজেপি সাংসদ নেপাল সিং। তিনি বলেন, তিনি কোনোভাবেই সেনা জওয়ানদের অপমান করতে চান নি, তাঁর মন্তব্যের বিকৃত মানে করা হয়েছে। তিনি আরও জানান যে, তিনি বলতে চেয়েছিলেন বিঞ্জানীরা এখনও এরকম কোনো যন্ত্র আবিষ্কার করতে পারেন নি যা বুলেট নিষ্ক্রিয় করবে এবং তাতে মৃত্যু হবে না সেনা জওয়ানদের।

অপর বিজেপি নেতা ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেন, সিআরপিএফের ওপর হামলার এই ঘটনা অত্যন্ত নিন্দনীয়। সেনাদের বলিদান বিফলে যাবে না। এই ঘটনার প্রতিবাদ করেছেন জম্মু কাশ্মীরের মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতিও। তিনি জওয়ানদের ওপর হামলা প্রসঙ্গে বলেন, এই ঘটনা নিন্দনীয় এবং এটি প্রধানমন্ত্রীর বিদেশনীতির ফল। জম্মু কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আব্দুল্লাও এই ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: