তাপস পাল জামিন পেলেন, কত টাকার বন্ডে জানেন! জানলে বলবেন, এটাই দাদার কীর্তি

অবশেষে জেল থেকে ছাড়া পাচ্ছেন তৃণমূল সাংসদ তথা টলিউডের বিখ্যাত অভিনেতা তাপস পাল। রোজভ্যালি কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে পড়ে সেই মামলায় তাপস পালের জেল হয়েছিল। ১ কোটি টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে ছাড়া তাপসের জামিন মঞ্জুর হল। তাপসের আইনজীবী বলেন, তদন্তে কিছুই প্রমাণ হচ্ছে না। তাই তাঁর মক্কেলকে আটকে রাখার যুক্তি নেই। তবে তদন্তে যখনই দরকার হবে তাপস পাল হাজির হবেন। তাপসের আইনজীবীর কতা সন্তুষ্ট হয়ে তাঁর জামিন মঞ্জুর করে কটক আদালত। প্রভাবশালী মানুষদের জন্য তদন্তে প্রভাবিত হতে পারে বলে বাঙলা থেকে ওডিশায় এই মামলা সরানো হয়। তাপসকে কটকের জেলে রাখা হয়েছিল।

গত ৩০শে ডিসেম্বর কলকাতায় সিবিআই তাকে গ্রেপ্তার করে। এরপর তাকে ওড়িশার ভুবনেশ্বরে সিবিআইয়ের বিশেষ আদালতে তোলা হলে বিচারক দুই দফায় মোট ছয় দিনের সিবিআই হেফাজত মঞ্জুর করেন। গত শুক্রবার তাকে ফের আদালতে হাজির করা হলে বিচারক তাকে ১৪ দিনের জন্য জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন। আপাতত তার ঠিকানা ওড়িশার ঝাড়পদা জেল। তবে এদিন তিনি অসুস্থ বোধ করায় তাকে জেল হাসপাতালে রাখা হয়েছে।

আদালতে তাপস পালের আইনজীবী জামিনের জন্য জোরালো সওয়াল করেন। কিন্তু বিচারক তা খারিজ করে দিয়েছেন। বরং এদিন আদালতে সিবিআই তাপস পাল সম্পর্কে আরও চাঞ্চল্যকর তথ্য জানিয়েছেন। সিবিআই তাপস পালকে হেফাজতে নেবার আরজি না জানালেও তিনি যাতে জামিন না পান সেই আবেদন জানানো হয়েছিল। জানা ছিল, রোজ ভ্যালির ফিল্ম ডিভিশনের অ্যাডভাইসরি বোর্ডের ডিরেক্টর ছিলেন তাপস পাল। কিন্তু আদতে ওই বোর্ডের কোনও অস্তিত্বই ছিল না বলে এদিন সিবিআই আদালতে জানিয়েছে।

অর্থাৎ, ভুয়া সংস্থার নামেই মোটা টাকা বেতন আর সুযোগ সুবিধা নিতেন তৃণমূল এই সাংসদ। এদিকে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট থেকে চিটফান্ড কেলেঙ্কারিতে যুক্ত ১১ জনের একটি তালিকা সিবিআইয়ের কাছে পাঠানো হয়েছে বলে স্থানীয় মিডিয়া সুত্রে জানানো হয়েছে। এই তালিকায় ৩ জন মন্ত্রীর নামও রয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে। অন্যদিকে টলিউডের যে ডাকসাইটে অভিনেত্রীর নাম নিয়ে জেরা করার সম্ভাবনার কথা বলা হচ্ছে সেই অভিনেত্রী নাকি বিদেশে পালিয়ে যাবার পরিকল্পনা নিয়েছেন। সিবিআই সুত্রে বলা হয়েছে, তারা মৌখিকভাবে সব বিমানবন্দরে সেই অভিনেত্রী সম্পর্কে সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: