রেকর্ড ব্রেকিং সিরিজ জয় ভারতের, ইতিহাসের পাতায় চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন বিরাট

মঙ্গলবার রাতে ভারতে যখন সবাই রাতের ঘুম দিতে বিছানা তৈরিতে ব্যস্ত, পোর্ট এলিজাবেথে সেই সময় হাজার হাজার মাইল দূরে আফ্রিকা মহাদেশের মাটিতে ইতিহাস গড়ল ভারত। বিরাট কোহলি ভারতের প্রথম অধিনায়ক যাঁর নেতৃত্বে জাতীয় ক্রিকেট দল প্রোটিয়াদের মাটিতে কোনও দ্বিপাক্ষিক ওয়ান-ডে সিরিজ জিতল। ছয় ম্যাচের সিরিজে পঞ্চম ম্যাচ জিতে নিয়ে এক ম্যাচ বাকি থাকতেই সিরিজ ভারতের দখলে। ১-৪ ব্যবধানে আয়োজক দেশকে ধরাশায়ী করার ফলে সিরিজের শেষ ম্যাচ নিয়ম রক্ষার হয়ে দাঁড়ালো।

দক্ষিণ আফ্রিকায় ওডিআই সিরিজে ভারত –

১৯৯২ : ৫-২ ব্যবধানে হার

২০০৬ : ৪-০ ব্যবধানে হার

২০১১ : ৩-২ ব্যবধানে হার

২০১৩ : ২-০ ব্যবধানে হার

২০১৮* : ১-৪ ব্যবধানে ভারত জয়ী

 

দক্ষিণ আফ্রিকা শেষবার তাদের ঘরের মাটিতে সিরিজ খুইয়েছিল ২০১৩ সালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে। আর প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে বিরাটদের এই সিরিজ জয় মেলালে টানা নটি দ্বিপাক্ষিক সিরিজ জয় করল ভারত।

ভারতের নটি টানা সিরিজ জয় –

০-৩ ব্যবধানে জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে জয়

৩-২ ব্যবধানে নিউজিল্য়ান্ডের বিরুদ্ধে জয়

২-১ ব্যবধানে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে জয়

১-৩ ব্যবধানে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে জয়

০-৫ ব্যবধানে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে জয়

৪-১ ব্যবধানে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে জয়

২-১ ব্যবধানে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে জয়

২-১ ব্যবধানে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে জয়

১-৪ * ব্যবধানে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে জয়

 

একটানা দ্বিপাক্ষিক সিরিজ জয়ের নিরিখে অস্ট্রেলিয়াকে সরিয়ে ভারত দ্বিতীয় স্থান দখল করল। তালিকায় প্রথম স্থানে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তিরিশ বছর আগের সেই রেকর্ড ভাঙা কেন, ছুঁতে গেলেও বিরাটের ভারতকে এখনও অনেকদূর এগোতে হবে।

 

একটানা দ্বিপাক্ষিক সিরিজ জয়ের নজির –

১৪ – ওয়েস্ট ইন্ডিজ (মে, ১৯৮০ – মার্চ, ১৯৮৮)

৯* – ভারত (জুন, ২০১৬ – এখনও পর্যন্ত)

৮ – অস্ট্রেলিয়া (এপ্রিল, ২০০৯ – জুন, ২০১০)

৭ – পাকিস্তান (জানুয়ারি, ২০১১ – ফেব্রুয়ারি, ২০১২)

৭ – দক্ষিণ আফ্রিকা (অগস্ট, ২০১৫ – ফেব্রুয়ারি, ২০১৭)

সিরিজ জয়ের পর বিরাট…

অত্যন্ত সন্তুষ্ট এখন। আরও একটা দারুণ জয় আমাদের জন্য। ব্যাটিং, বোলিং ও ফিল্ডিং – ছেলেরা দারুণ খেলেছে। শুরু থেকে একটা টিমের ওপরই চাপ ছিল সিরিজ খোয়ানোর, আর সেটা আমাদের ওপর নয়। দক্ষিণ আফ্রিকার ওপর ছিল। তৃতীয় টেস্ট থেকে সময়টা ভালো কাটছে আমাদের জন্য। দলের সতীর্থ, সাপোর্ট স্টাফ এবং বাকিদের সমবেত প্রচেষ্টার জয় এটা। সব সময়ই এমন মুহূর্ত আসে যখন চেয়েও সুযোগ কাজে লাগানো যায় না। সিরিজ মিটলেই আমরা ভাবতে বসব, কিভাবে আরও উন্নতি করা যায়। ১-৪ টা, ১-৫ করতে চাই। তবে, ওরাও জিততে চাইবে শেষ ম্যাচটা। কিন্তু, আমরা জয় দিয়েই সিরিজটা শেষ করতে চাই।

 

দক্ষিণ আফ্রিকান ক্যাপ্টেন মার্ক্রাম…

ভারতকে বাহবা দিতে হবে। ওরা খুব ভালো খেলেছে আজ। টার্গেটা ছোঁয়া যেত। কিন্তু, আমাদের ব্যাটিংটা ঠিকমতো হলো না। একসঙ্গে অনেকগুলি উইকেট হারিয়ে বসলে ছন্দটা হারিয়ে যায়। ভারতের কয়েকজন অনবদ্য ক্রিকেটার দারুণ ফর্মে আছে, ফলে ওদের প্রশংসা করতেই হয়। পরিকল্পনা নিয়েই ওরা সমস্ত কিছু করে দেখিয়েছে। লুঙ্গি শুরুটা ভালো করেছিল। মাঝের ওভারে উইকেটও এনে দিচ্ছিল আমাদের। আমরা যতটা ভেবেছিলাম, তার চেয়ে কম রানে ওদের বেঁধে রাখার পর আমরা বেশ খুশিই ছিলাম। কয়েকটা ভালো পার্টনারশিপ আর একটা ক্যামিও ইনিংস প্রয়োজন ছিল আমাদের। কিন্তু, সেটাই হলো না। আমিও খুব খারাপ আউট হয়েছি। ছন্দ খুঁজে পেতে হলে, আর ওদের ওপর চাপ তৈরি করতে হলে আমাদের পার্টনারশিপ গড়তে হবে। তাছাড়া, ওরা ভালো বল করেছে। আমরা যত ওদের বোলারদের খেলব, তত বেশি বুঝতে পারব ওদের। তবে, ভারতের স্পিনারদের সবচেয়ে বেশি প্রশংসা করতে হবে। ভারতের হাতে ভালো মানের রিস্টস্পিন অপশন রয়েছে। সেঞ্চুরিয়নে শেষ ম্যাচ অর্থহীন হলেও আমরা জয়ে ফেরার লক্ষ্যে ঝাঁপাবো।

 

রানে ফেরার পর ম্যাচের সেরা রোহিত…

অনেক দিন পর, মাঠে সময়টা ভালো কাটল। ম্যাচ যত এগিয়েছে উইকেট তত ধীরগতির হয়ে আসছিল। সেঞ্চুরি করলে, টিম জিতলে সবসময়ই ভালোলাগে। আমরা পরিকল্পনা মতোই খেলে গিয়েছিল। ভালোলাগছে যে সব ঠিকমতো খেটে গিয়েছে। আমি নিজেও ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে চলছিলাম, সেটা কাজে লাগল। বল যত পেটাচ্ছিলাম, ততই আত্মবিশ্বাস বাড়ছিল। আমি জানতাম, রান করতে পারব। যখন সেঞ্চুরি করলাম, তখন কিছুটা মন খারাপ ছিল, তাই উত্তেজনাটা সেভাবে দেখাতে পারিনি। বাকিরা আগে খেলেছে। আজ আমার দিন ছিল।

 

সংক্ষিপ্ত স্কোর –

ভারত : নির্ধারিত ৫০ ওভারে ২৭৪/৭ (রোহিত ১১৫, কোহলি ৩৬, ধওয়ন ৩৪, লুঙ্গি ৪/৫১)

দক্ষিণ আফ্রিকা : ৪২.২ ওভারে ২০১ অলআউট (আমলা ৭১, ক্লাসেন ৩৯, মিলার ৩৬, কুলদীপ ৪/৫৭, চহল ২/৪৩)

ম্যাচের ফলাফল : ভারত ৭৩ রানে জয়ী (দক্ষিণ আফ্রিকা টসে জিতে প্রথমে ফিল্ডিং নেয়)

সিরিজের ফলাফল : ১-৪ ব্যবধানে জয়ী ভারত (এখনও একটি ম্যাচ বাকি)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: