ভিডিও : উইকেট কিপারদের নেওয়া বিশ্বর সেরা দশটি ক্যাচ!

ক্রিকেট – এ এমন এক শতাব্দী প্রাচীন খেলা, যেখানে বিন্দুমাত্র গাছাড়া ভাব দেখানোর সুযোগ নেই। কখন যে কি হবে, কেউ বলতে পারে না। ব্রিটিশদের দেশে জন্ম হলেও, তাদের হাত ধরে বিশ্বের অন্যান্য প্রান্তে ছড়িয়ে পড়ে। আজ এই খেলাটাই অত্যন্ত জনপ্রিয় এবং চ্যালেঞ্জিং স্পোর্টস। বিশেষ করে এই ভারতীয় উপমহাদেশে। ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা আর বাংলাদেশ। প্রথম তিনটি দেশ ক্রিকেট বিশ্বে বড় শক্তি হিসেবে পরিচিত। আর চতুর্থ দেশটি দু’দশকের মতো ক্রিকেট গ্রহে নিজেদের শিকড় শক্ত করার পর, এবার বড় শক্তি হয়ে উঠতে শুরু করেছে। তবে যাইহোক, ভারতের মতো ক্রিকেট পাগল ফ্যান আর কোথাও পাওয়া যাবে না। এখানে ক্রিকেট নিয়ে আবেগ অনুরাগীদের রক্তে মিশে। ক্রিকেট আজ বিলিয়ন ডলারের স্পোর্টস, তা এই ভারতের জন্য।

অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, নিউজিল্যান্ড, ভারত, পাকিস্তান, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, শ্রীলঙ্কা – এই আটটি দেশ ক্রিকেট গ্রহের বড় শক্তি। বাংলাদেশ, আফগানিস্তান আগামী দিনে নিজের আধিপত্য কায়েম করতে আসছে এই আটটি দেশের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াই করার উদ্দেশে। জিম্বাবোয়ে ক্রিকেটের অবস্থা এখন আগের মতো নেই। একসময় অবশ্যই ছিল। আশা অবশ্যই করা যায় যে সুদিন ঠিক ফিরবে।

হ্যাঁ, যে কথা বলার জন্য এই প্রতিবেদন লিখতে বসা। অন্য কোনও খেলা প্রসঙ্গে কথাটা, আসে কি না জানা নেই। তবে, ক্রিকেট থ্রি ডায়মেনশনাল স্পোর্টস। ব্যাটিং, বোলিং আর ফিল্ডিং – এই তিনের মিশেলে ক্রিকেটাররা ক্রিকেট খেলাটা খেলেন। ব্যাটসম্যানরা সবসময়ই বেশি প্রাধান্য পান। কারণ, স্কোরবোর্ডে কত রান উঠল, তার ওপরেই খেলার ফলাফল বের হয়। বোলিং গুরুত্বপূর্ণ কারণ ব্যাটসম্যান রান করবেন সেটা তো জানা কথা। কিন্তু, কোন ডেলিভারিতে ব্যাটসম্যানকে ঠকিয়ে উইকেট তুলে নেবেন বোলার, সেটা অবশ্যই আগে থেকে আন্দাজ করা মুশকিল। ক্রিকেটের তৃতীয় অথচ অন্যতম ডিপার্টমেন্ট – ফিল্ডিং। এই ব্যাপারটাকে কখনও এড়িয়ে চলা যায় না। বিশেষ করে এই আধুনিক যুগে। অতীতে এই ডিপার্টমেন্ট নিয়ে এতোটা মাথা ঘামানো না হলেও, ২০০০ সালের পর থেকে অতিরিক্ত মাত্রায় মাথা ঘামানো হচ্ছে। আর এই সেই জন্যেই ক্রিকেটে এখন দুরন্ত অ্যাথলিটদের আনাগোনা বেড়ে গিয়েছে।

তবে, ফিল্ডিংয়ে চিরকাল উকেটকিপিংয়ের গুরুত্ব ছিল আর আছে এবং থাকবে। কারণ, উইকেটের পিছনে দাঁড়িয়ে উইকেটকিপার খেলাটাকে সবচেয়ে বেশি ভালোভাবে পড়তে পারেন। আর মাঠে দাঁড়ানো অন্যান্য ফিল্ডারদের তুলনায় একজন উইকেটকিপারের কাজটা সবচেয়ে বেশি চ্যালেঞ্জিং। উইকেট কেমন আচরণ করছে, বোলার কি ভুল করছে, ব্যাটসম্যান ঠিক কিরকমভাবে খেলার চেষ্টা করছে – এই সব ব্যাপার তো মাথায় রাখতেই হয়, তার সঙ্গে বোলারের ধেয়ে আসে ডেলিভারি যখন ব্যাটসম্যানকে ঠকিয়ে বের হয়ে যায়, তখন কিপারের দায়িত্ব, সেটাকে ওখানেই থামানো। নইলে অতিরিক্ত রান চলে যাবে। আর সেটা বাউন্ডারি হলে, মারাত্মক ব্যাপার।

ক্রিকেট ইতিহাসে আমরা অ্যাডাম গিলক্রিস্ট, মার্ক বাউচার, মঈন খান, এমএস ধোনির মতো দুর্দান্ত উইকেটকিপারদের দেখেছি। দেখেছি আরও ব্রেন্ডন ম্যাকালাম ও কুমার সাঙ্গাকারাদের মতো প্রতিভাকেও। ক্যাচ আর স্টাম্পিং – উইকেটকিপারদের এই দু’টি রেকর্ডের বিনিময়ে তাঁদের শ্রেষ্ঠত্বের বিচার করা হয়। তবে, ক্রিকেটকে চিত্তাকর্ষক করে তুলতে তাঁদের জুড়িমেলা ভার। এই প্রতিবেদনে ক্রিকেট ইতিহাসে নেওয়া দশটি চিত্তাকর্ষক ক্যাচের ভিডিও তুলে ধরা হলো, যেখানে ফিজিক্সের মাধ্যাকর্ষণ শক্তির সূত্রকে হার মানিয়ে দিয়েছেন বিশ্বের দশ উইকেটকিপার।

আন্তর্জাতিক মঞ্চে উইকেটকিপারদের নেওয়া ক্রিকেট ইতিহাসের দশটি সেরা ক্যাচ –

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: