জানেন মোট কত বার শেষ বলে ছয় মেরেছেন ধোনি? দেখে নিন তালিকা!

এখন আর তিনি অধিনায়ক নেই। ফলে, দলের কথা এখন নতুন অধিনায়ক ভাববেন। রেকর্ড বুকে নিজের নামের পাশে ঝুড়িঝুড়ি রান এতদিনে অনায়াসে লিখে ফেলতে পারতেন রাঁচির মতো ছোটো শহর থেকে উঠে আসা নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারে বেড়ে ওঠা ক্রিকেটারটি। অনায়াসে ব্যাটিং অর্ডারে তিন নম্বরে খেলা চালিয়ে যেতে পারতেন। কিন্তু, ক্রিকেটারটির নাম যে মহেন্দ্র সিং ধোনি। নিজের আগে জাতীয় দল বড়। দলের কথা ভেবে নিজেকে ম্যাচ ফিনিশার গড়ে তোলেন। আর সেখানেই এক দশক কাটিয়ে দেওয়া।

অধিনায়কত্ব ছাডার পর থেকে বারবার দাবি উঠেছে, ধোনিকে আরও ওপরদিকে তুলে আনা হোক। চার নম্বরে খেলানো হোক। তাহলে ধোনি অনেকক্ষণ ব্যাট করতে পারবেন, তরুণদের গাইড করতে পারবেন। আর তাতে ভারতের লাভ হবে। এখন আগের মতো নেমেই মারকাটারি ব্যাটিং করেন না বলে অনেকে টি-২০ ক্রিকেট থেকে তাঁকে ছেঁটে ফেলার পরামর্শ দিয়েছেন। কিন্তু, কটকে বুধবার (২০ ডিসেম্বর) যেভাবে ব্যাট করলেন, তাতে সেই পরমার্শদাতাদের বিচক্ষণতা নিয়েই প্রশ্ন উঠে গেলো এবার। ২২বলে ৩৯ রান যে ক্রিকেটারটি এখনও করতে পারেন শেষ পর্বে মাঠে, তাঁকে অচল বলে নিজেদের কি করে ক্রিকেট বোদ্ধা আখ্যা দেওয়া যায়? ১৮ বলে ৩২ রান করা মণীশ পান্ডেকে সঙ্গে নিয়ে ধোনি চতুর্থ উইকেটের জুটিতে অপরাজিত ৬৮ রান যোগ করে ভারতীয় ইনিংসকে ১৮০ রানে পৌঁছে দেন।

ইনিংসের সমাপ্তি ধোনি স্পেশাল ছয়ে। সর্বকালের সেরা ম্যাচ ফিনিশার এই নিয়ে টি-২০ ক্রিকেটে পাঁচবার কুড়িতম ওভারের শেষ বলে ছয় মেরে দলের হয়ে ইনিংসের সমাপ্তি করলেন (টার্গেট সেট করার সময়)। রেকর্ড বুক বলছে, আর কোনও ব্যাটসম্যান নাকি দু’বারের বেশি এমন কৃতিত্ব করতেই পারেননি। লঙ্কান পেসার থিসারা পেরেরা ইর্য়কার দিতে গিয়ে ফুলটস দিয়ে বসেন। আর ধোনি তা মিড উইকেটে ওপর দিয়ে পাঠিয়ে দেন। বল ব্যাটের মাঝামাঝি না লাগলেও, ধোনির কব্জির জোরে একবারে সোজা স্ট্যান্ডে গিয়ে পড়ে। ডিপ মিড উইকেটে দাঁড়ানো ফিল্ডার তখন দর্শকের ভূমিকায়।

তিন ধরনের ফরম্যাটের রেকর্ড একসঙ্গে করলে এই নিয়ে ধোনি ২৪ বার ছয় মেরে ইনিংসের সমাপ্তি করলেন। ১৩ বার ওয়ান-ডে ক্রিকেটে। এর মধ্যে ৯ বার রান তাড়া করতে নেমে। টি-২০ ক্রিকেটে ৮ বার। তার মধ্যে রান তাড়া করতে নেমে পাঁচবার। টেস্টের আসরেও ছয় মেরে ভারতীয় ইনিংসের সমাপ্তি করেছেন মাহি। রেকর্ড বুক বলছে, এক্ষেত্রে সংখ্যা তিনবার। আর তার চেয়ে বড় কথা, এই ২৪ বারের মধ্যে ২২ বারই ভারত জিতেছে। ২০০৫ সালের ৩১শে জুলাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ডাম্বুলায় প্রথমবার ভারতীয় ইনিংসের শেষ বলে ছয় মারেন ধোনি। ওই ওয়ান-ডে ম্যাচে টার্গেট সেট করতে গিয়ে ক্যারিবিয়ান পেস বোলার জেরেমি লসনকে ছয় মারেন। এরপর আরও চারবার টার্গেট সেট করতে গিয়ে ভারতীয় ইনিংসের শেষ বলে ছয় মেরেছেন ভারতের সর্বকালের সেরা অধিনায়ক।

টেস্টের আসরে ধোনির এই নজির প্রথম গড়া বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ২০০৭ সালে ২৬ মে। মহম্মদ শরিফের বলে ছয় মেরেছিলেন তিনি। আর টি-২০ ক্রিকেট প্রথমবার এই নজির গড়া রান তাড়া করার সময়। ব্রেট লি’র বলে ২০০৭ সালে ২০ অক্টোবর অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে। বাকি দু’বার রান তাড়া করতে নেমে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে। একবার সলমন বাট আর তারপর ইউনিস খানের বলে।

ছয় মেরে ম্যাচ শেষ করার দিক থেকে ২০১১ সালের ২ এপ্রিল মুম্বইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে ধোনির সেই ছয় চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে বিশ্বকাপ জেতার জন্য। ভারতকে দ্বিতীয়বার বিশ্বচ্যাম্পিয়ন করতে ধোনি সেদিন শ্রীলঙ্কার পেসার নুয়ান কুলশেকরার বলে ছয় মেরেছিলেন। ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা মুহূর্ত ওটি।

ছয় মেরে ভারতীয় দলের ইনিংস শেষ করার ধোনি স্পেশাল মুহূর্ত –

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: