সকলকে অবাক করে অবসর ঘোষণা করলেন এই ভারতীয় তারকা!

আম্বাতি রায়ডু ক্রিকেটের দীর্ঘ ফর্ম্যাট থেকে অবসর ঘোষনা করলেন। এখন থেকে এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান তার রাজ্যের হয়ে আর লাল বলের ক্রিকেট খেলবেন না এবং চলতি রঞ্জি ট্রফিতেও খেলবেন না তিনি। ২০১৩/১৪ মরশুমে রায়ডু দক্ষিণ আফ্রিকা এবং নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্ট দলে শামিল হয়েছিলেন, কিন্তু প্লেয়িং ইলেভেন জায়গা করতে পারেন নি। পরে তাকে দল থেকেও বাদ দেওয়া হয়। এবং তারপর থেকে তিনি টেস্ট দলে ফিরে আসতে পারেননি।

বর্তমানে রায়ডু ওয়ানডেতে দলের চার নম্বর পজিশনের স্থায়ী মেম্বার, এবং সম্ভাবনা রয়েছে ২০১৯ বিশ্বকাপ পর্যন্ত তিনি তার জায়গা ধরে রাখতে পারবেন। রাইয়ডু তার চিঠিতে জানিয়েছেন, “আমি সংক্ষিপ্ত সংস্করণে আন্তর্জাতিক এবং ঘরোয়া ক্রিকেট খেলা জারি রাখব। এবং আমি এই সুযোগের জন্য বিসিসিআই,এইচসিএ, বরোদা ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন এবং বিদর্ভ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি বছরের পর বছরয়ামাকে সুযোগ দেওয়ার জন্য।হায়দ্রাবাদের হয়ে খেলা সবসময়ই সম্মানের এবং আমি কখনওই ভুবলতে পারবনা এই সমস্ত জায়গা থেকে পাওয়া সমর্থনের কথা, যার মধ্যে রয়েছেন আমার সতীর্থ খেলোয়াড়রা, কোচেরা এবং আধিকারিকরা।

এবং বিশেষ করে যেভাবে আমাকে বিসিসিআই ফিরে আসার জন্য সমর্থন করেছে বিদ্রোহী আইসিএলের ঘটনার পরে”।চেন্নাই সুপার কিংসেরহয়ে আইপিএলে ৬০২ রান করার পর এই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানের এই বছর ইংল্যান্ড সিরিজে ভারতীয় দলে প্রত্যাবর্তন ঘটেছিল।যদিও ইয়ো ইয়ো টেস্টে ব্যর্থ হওয়ার পর তাকে দল থেকে বাদ পড়তে হয়।সুরেশ রায়না তার জায়গায় দলে আসেন।পরে রায়ডু এই টেস্ট পাশ করেন এবং এশিয়া কাপ ২০১৮য় দলে ফিরে আসেন যেখানে রোহিত শর্মার নেতৃত্বে ভারতীয় দল এই টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়।

পরে ওয়েস্টইন্ডিজের বিরুদ্ধে ঘরোয়া সিরিজেও তিনি নিজের জায়গা ধরে রাখতে সফল হন এবং চারটি ইনিংসে ২১৭ রান করে ওয়ানডেতে ভারতের চার নম্বর ব্যাটসম্যান হিসেবে নিজের সম্ভাবনা বাড়িয়ে তোলেন। রায়ডু ৯৭টি প্রথম শ্রেণীর ম্যাচ খেলার পর এই ফর্ম্যাট থেকে অবসর নিলেন যেখানে তিনি ৪৫.৫৬ গড়ে ৬১৫১ রান করেছেন। ২০০১/০২ মরশুমে তিনি প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক করেছিলেন এবং গত মরশুমে আসামের বিরুদ্ধে তিনি নিজের শেষ রঞ্জি ট্রফি খেলেছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: