অধিনায়ক কোহলি ও অধিনায়ক রোহিত, কে কোথায় কতটা আলাদা

বিরাট কোহলি বিগত দু’বছর ধরে ভারতের ওয়ানডে দলের অধিনায়কের দায়িত্বে রয়েছেন। এই সময় যাবত তিনি ব্যাটহাতেও রয়েছেন অসাধারণ ফর্মে, যার থেকে বোঝা যায় যে অধিনায়কত্বের চাপ তাঁর খেলায় একফোটাও প্রভাব ফেলতে পারেনি। কিন্তু অধিনায়ক কোহলির কিছু সিদ্ধান্ত অনেকসময়ই বিশেষজ্ঞদের আতস কাঁচের নিচে চলে আসে, বিশেষ করে দল বাছাই করতে তাঁর নেওয়া সিদ্ধান্ত। রোহিত শর্মা যে কতটা ভালো মানের অধিনায়ক, তা তিনি বারবার প্রমান করেছেন তাঁর আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজি মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের নেতৃত্ব দেওয়ার সময়।

 

অধিনায়ক কোহলির অনুপস্থিতিতে রোহিত এক দারুণ সুযোগ পেয়েছিলেন এবারের এশিয়া কাপে। সেই সুযোগের সদব্যবহারও করেছেন তিনি। ভারতকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে এশিয়া কাপ জয় করলেন রোহিত। এবার দেখা যেতেই পারে যে ক্যাপ্টেন কোহলি এবং ক্যাপ্টেন রোহিতের অধিনায়কত্বের কৌশল কোথায় কতটা আলাদা অথবা কোথায় কতটা কার্যকরি।

 

দল বাছাই-

কোহলি তাঁর দলে বারবার পরিবর্তন আনার জন্যই পরিচিত। যার ফলে অনেকসময় তিনি এমন দল গঠন করে ফেলেন যা দর্শক তথা বিশেষজ্ঞদের মনমতো হয় না। ভারতের ফাস্ট বোলিং আক্রমণের অন্যতম হাতিয়ার ভুবনেশ্বর কুমারকে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের প্রথম টেস্টে বসিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্তটাই এটার একটা বড় উদাহরণ।

 

এদিকে রোহিত শর্মা অবশ্য কোহলির এই কৌশলের বিপরীতমুখী। তিনি তাঁর দলের খেলোয়াড়দের যথেষ্ট সময় দিতে চান এবং দলে স্থিরতা আনতে চান। এই কৌশলের উদাহরণ আমরা আগেই মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সে পেয়েছি। এছাড়াও এবারের এশিয়া কাপেও তাঁর এই কৌশল দেখা যায়। বাংলাদেশ এবং পাকিস্তানের সঙ্গে জয়ী দলে তিনি কিছুই পরিবর্তন আনেননি।

ব্যাক্তিত্ব-

 

অধিনায়ক হিসাবে এবং খেলোয়াড় হিসাবেও বিরাট কোহলির ব্যাক্তিত্ব আক্রমণাত্বক। তিনি যখন অধিনায়কের দায়িত্বে থাকেন তখন তিনি চান যে তাঁর দলের খেলোয়াড়রাও যেন তাঁর মতো মানসিকতা নিয়েই মাঠে নামে। এই পদ্ধতি বেশিরভাগ সময় কাজে লাগলেও অনেকসময় উল্টো প্রভাব ফেলে দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে। কারণ অনেকেই আছেন যারা তাঁদের ছোটবেলা থেকেই অন্য পদ্ধতিতে খেলে এসেছেন। অন্যদিকে রোহিত শর্মা অধিনায়ক হিসাবে অনেক শান্ত। তিনি খেলোয়াড়দের নিজেদেরকে প্রকাশ করার স্বাধীনতা দেন, তাঁদের স্বাভাবিক খেলাটা খেলার স্বাধীনতা দেন।

সিদ্ধান্ত-

 

রোহিত শর্মার অধিনায়কত্ব নিয়ে এখনই বেশি কিছু বলাটা তাড়াতাড়ি করাই হবে। কন্তু এটুকু সময়ে রোহিত তাঁর যা ক্যাপ্টেন্সি দেখিয়েছেন তাতে এটা স্পষ্ট বলা যায় যে, কোহলি ও রোহিত, দু’জনেই অধিনায়ক হিসাবে চুম্বকের দুই মেরু।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: