বোর্ড ও প্রাক্তন অধিনায়ককের ওপর বেজায় চটে, একহাত নিলেন গম্ভীর!

হাসিখুশি মজার মানুষ হিসেবে কোনওদিনই খুব একটা সুনাম নেই প্রাক্তন ভারতীয় ওপেনিং ব্যাটসম্যান গৌতম গম্ভীরের। রাগী বা বদরাগী মানুষ বলেই তাঁকে চেনে আপামর ভারতীয় ক্রিকেট দর্শক।’গম্ভীর কা গুসসা’ শব্দবন্ধের সঙ্গে পরিচিত অনেকেই। মাঠের মধ্যে বিপক্ষ খেলোয়াড়দের সঙ্গে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়ে জড়িয়েছেন বহুবার। আইপিএলে বিরাট কোহলির সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়ে পড়ার কথা নিশ্চয়ই মনে আছে অনেক দর্শকেরই। তাঁর এই গরম মেজাজের কারণে বহুবার শাস্তি ভোগ করতে হয়েছে। এখন আর মাঠে না নামলেও বিতর্ক থেকে দূরে সরে থাকতে পারলেন না গৌতম গম্ভীর।

গতকাল বেশ গভীর রাতে একটি ছবিসহ টুইট করেন প্রাক্তন বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান। তাতে একদম খোলাখুলি বিসিসিআই এবং সিএবির সমালোচনা করেন তিনি। আসলে গতকাল প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক মহম্মদ আজহারউদ্দিন ইডেনে ঘণ্টা বাজিয়ে টি-টোয়েন্টি ম্যাচের আবাহন করেন। এই কারণেই ভারত এবং বাংলার ক্রিকেট নিয়ামক সংস্থার ওপর চটেছেন গম্ভীর। এককালে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের দায়ে আজীবন নির্বাসিত আজহারকে কী করে ইডেনের ঘণ্টা বাজানোর সম্মাননা দেওয়া হয় তা নিয়ে রীতিমতো বিস্ময় এবং উষ্মা প্রকাশ করেছেন তিনি। ঘণ্টা বাজানোর মুহূর্তের একটি ছবি দিয়ে গম্ভীর লিখেছেন, ‘ভারত ম্যাচ জিতলেও বিসিসিআই এবং সিএবি হেরে গেছে। মনে হচ্ছে দুর্নীতি সহ্য না করার নীতিও রবিবারের ছুটিতে গেছে। আমি জানি ওকে (আজহার) হায়দরাবাদ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনে ভোটে লড়ার সুযোগ দেওয়া হয়েছে কিন্তু তা হলেও এটা ভয়াবহ ব্যাপার… ঘণ্টা বাজছে, আশাকরি যারা ক্ষমতায় তারা শুনতে পারছে।’

ভারতের হয়ে ৯৯ টেস্ট এবং ৩৩৪ ওয়ানডে খেলা প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক মহম্মদ আজহারউদ্দিন ২০০০ সালে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের দায়ে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে আজীবন নির্বাসিত হন। ১২ বছর পর এই নির্বাসন তুলে নেয় অন্ধ্রপ্রদেশ হাই কোর্ট। তা সত্ত্বেও অসচ্ছ্বতার অভিযোগে তাঁকে ২০১৭’র জানুয়ারিতে হায়দরাবাদ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের ভোটে লড়তে দেওয়া হয়নি। অবশেষে এ বছরের গোড়ার দিকে আইসিসি সেই নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয় এবং জানিয়ে দেয় যে এখন থেকে বিসিসিআই বা আইসিসির মতো যে কোনও ধরনের ক্রিকেট নিয়ামক সংস্থার পদে বসতে পারবেন আজ্জু।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: