নাসিরুদ্দিনের পর এবার কোহলিকে নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য গম্ভীরের

তাঁর মুখে কোনো সত্যিই আঁটকায় না। বরাবরই সাদাকে সাদা আর কালোকে কালো বলতে পছন্দ করেন গম্ভীর। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে সবে মাত্র কিছুদিন হল অবসর নিয়েছেন কিন্তু এরই ক্রিকেট প্রসঙ্গে নানা রকম চাঁচাছোলা মন্তব্য করার জন্য শিরোনামে এসেছেন বারবার কিছুদিন আগেই ভারতীয় প্রাক্তন অধিনায়ক এম এস ধোনি কে শব্দ বাক্যে বিদ্ধ করে এসেছেন এবার আবার গম্ভীরকে সমালোচক মন্তব্য করতে দেখা গেল বর্তমান অধিনায়ক বিরাট কোহলির বিরুদ্ধেও।

সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়া সফর শুরুর থেকেই প্রশংসা-সমালোচনা দুইয়ের মধ্যে দিয়েই যাচ্ছেন অধিনায়ক বিরাট। একদিকে যেমন প্রতি ম্যাচেই রান পাওয়ার জন্য প্রশংসা কুড়োচ্ছেন, ঠিক আবার সমালোচনার কবলে পরছেন ক্যাপ্টেন হিসেবে তাঁর অতিরিক্ত আগ্রাসী মনোভাবের জন্য। যার দরুণ কিছুদিন আগেই তাঁর নামে কঠোর সমালোচনা করেছেন অভিনেতা নাসিরুদ্দিন শাহ। কিন্তু এবার কিন্তু এবার গম্ভীর যেভাবে বিরাটকে আক্রমণ করে বসলেন তা ছাপিয়ে গেল নাসিরুদ্দিনের মন্তব্যকেও।

কোহলির আগ্রাসন প্রসঙ্গে গম্ভীর বললেন, ”মাত্রা বজায় রেখে আগ্রাসন বজয়া রাখলে কোনও ক্ষতি নেই। আমার কাছে আগ্রাসন মানে খারাপ কিছু নয়। কিন্তু সেটা ব্যক্তিগত পর্যায় হলে মুশকিল। জাতীয় দলকে নেতৃত্ব দেওয়া মানে গোটা দেশের রোল মডেল বনে যাওয়া। এক্ষেত্রে আগ্রাসন বজায় রাখারা ক্ষেত্রে সীমা-পরীসীমার কথাটা মাথায় রেখে চলতেই হবে।”

এরই সঙ্গে ভারতীয় দলের কোচের পদ থেকে অনিল কুম্বলের অপসারণ প্রসঙ্গেও কোহলিকে একহাত নিলেন গম্ভীর। বললেন, ”ভারতীয় ক্রিকেটের অন্ধকার অধ্যায় ওটা। গোটা দল যদি কাউকে অপছন্দ করে তা হলে একজন কোচের সরে দাঁড়ানো শ্রেয়। তবে যদি দলের কোনও একজন কাউকে অপছন্দ করে তা হলে অন্য ব্যাপার। সেক্ষেত্রে যিনি অপছন্দ করেন তাঁর স্বতঃস্ফূর্তভাবে বিপরীত দিকে থাকা মানুষটির সঙ্গে বিবাদ মিটিয়ে নেওয়া উচিত।” এর পরই সরাসরি কোহলিক আক্রমণ করে বসেন সদ্য অবসর নেওয়া গম্ভীর। ”ভারতীয় ক্রিকেট দলের দিকে তাকিয়ে থাকে গোটা দেশ। তাই ওঁর ইগো বিসর্জন দিয়ে মাঠে নামা উচিত। দেশের অধিনায়ক মানে কাঁধে অনেক বড় দায়িত্ব। সেই দায়িত্ব পালন করতে হলে অনেক সময় অনেক কিছু বিসর্জন দিতে হয়।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: