ধোনির ভবিষ্যত নিয়ে মুখ খুললেন সৌরভ গাঙ্গুলী!

ইতিমধ্যেই কিংবদন্তিতে পরিণত হয়েছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, একদিনের ক্রিকেটের বিশ্বকাপ, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি, আইসিসির যতরকম প্রতিযোগিতা হয়, সবই জিতে নিয়েছেন। টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ে ভারতকে এক নম্বরে তুলেছেন। কিন্তু বছরখানেক হল তাঁর ফর্ম পড়তির দিকে। এতদিন ধোনির সাফল্যে যারা বাঁকা চোখে তাকিয়ে থাকত, তারা এখন ধোনিকে অবসর নেওয়ানোর জন্য বদ্ধপরিকর। অবশ্য কেউ কেউ আছেন যারা মনে করেন ধোনির মধ্যে এখনও অনেক ক্রিকেট বাকি আছে। প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় তেমনই একজন।

সৌরভের অধিনায়কত্বেই জাতীয় দলে অভিষেক হয়েছিল ধোনির। প্রথম ম্যাচে শূন্য রানে রান আউট। তারপরেও ব্যাট হাতে পরপর ব্যর্থ হচ্ছিলেন তিনি। দীনেশ কার্তিককে খেলানোর জ্ন্য নির্বাচকদের চাপ আসছিল সৌরভের উপর। কিন্তু তিনি ধোনির উপর শুধু আস্থাই রাখেননি, তাঁকে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে তিন নম্বরে ব্যাট করতে পাঠিয়ে দেন। দুর্দান্ত সেঞ্চুরি করে বিশ্বক্রিকেটে নিজের আগমনের কথা জানিয়ে দেন মাহি। আজ একযুগেরও বেশি সময় পর যখন ধোনি কেরিয়ারের সায়াহ্নে, তখনও তাঁকে ‘ব্যাক’ করছেন দাদি।

সৌরভ মনে করেন, ‘ও (ধোনি) আরেক চ্যাম্পিয়ন। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতার পর থেকে ১২-১৩ বছরের দুর্দান্ত কেরিয়ার। তবু, বাকি সবার মতো ওকেও পারফর্ম করতে হবে। জীবনে একটা বিষয় নিশ্চিত: তুমি যেখানেই থাক, যে কাজই কর, তোমার বয়স যা-ই হোক, যত অভিজ্ঞতাই তোমার থাকুক, সর্বোচ্চ পর্যায়ে তোমায় পারফর্ম কে যেতেই হবে। নয়তো অন্য কেউ তোমার জায়গা নিয়ে নেবে।’

ধোনি এখনও সর্বোচ্চ পর্যায়ে খেলে যেতে পারেন, সৌরভ তেমনটাই মনে করেন। তাঁর নিজের কথায়, ‘ওর (ধোনি) জন্য আমার শুভকামনা রইল। আমার এখনও মনে হয় ও মেরে বল স্ট্যান্ডে পাঠিয়ে দিতে পারে। ও এক অনন্য ক্রিকেটার। আমার এখনও মনে আছে পারভেজ মুশারফ জিজ্ঞাসা করেছিলেন একে কোথা থেকে পেলে। আমি বলেছিলাম ও ওয়াঘা বর্ডারের আশেপাশে হাঁটছিল, আমরা ওকে ভেতরে টেনে নিয়েছি।’ এখন দেখা যাক সৌরভের দলের সেই বড় বড় চুলওয়ালা চুপচাপ ছেলেটা ২০১৯ বিশ্বকাপে কতটা সফল হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: