আইপিএলে হিট কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফ্লপ যে পাঁচ ভারতীয় ক্রিকেটার

বয়স ২৭। ডানহাতি এই স্পিনারের হাতে সাতটা ভ্যারিয়েশন, কিন্তু তবুও জয়পুরে এবছর ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের নিলামে তরুণ ক্রিকেটার বরুণ চক্রবর্তী স্বপ্নেও ভাবতে পারেননি যে এত দাম দিয়ে কোন টিম তাঁকে কিনতে চাইবে। শুধু বরুণই নয় নিলামে অপ্রত্যাশিত দাম পেয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন শিবম দুবে, প্রয়াস রায় বর্মন এরাও। এটা কিন্তু এবছর নতুন নয়, আইপিএলের সাতকাহন ঘাটলে দেখা যায় যে অনেক প্রতিভারই জন্ম হয়েছে এখানে। তাদের মধ্যে কিছুজন আছেন যারা এখান থেকে উঠে এসে ক্যারিয়ার গড়েছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও। আবার কিছুজন আছেন যাদের ক্যারিয়ার এই আইপিএলের গন্ডি ছেড়ে বেড়োতে পারেনি। ঠিক সেভাবে নজর কাড়তে পারেননি তারা আন্তর্জাতিক আসরে। এই তালিকায় অবশ্য বেশিরভাগই ভারতীয় ক্রিকেটার। আসুন দেখে নেওয়া যাক তাদের মুখগুলো-

৫.ঋষি ধাওয়ান:

আইপিএলের মাঠে ইনি যতটাই সফল ঠিক ততটাই ফ্যাকাসে আন্তর্জাতিক আসরে। ২০১৪ সালে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের হয়ে কিছু চোখ ধাঁধানো পারফমেন্স দেখতে পাওয়া গিয়েছেন এই ভারতীয় এই অলরাউন্ডারের তরফ থেকে। তবে ভারতীয় জাতীয় টিমের হয়ে তার রেকর্ড একেবারেই তলানির পর্যায়ে বলা চলে। আইপিএলে ৪ টি ইনিংসে ৮২ রান দিয়ে ৪ টে উইকেট নেওয়া ঋষি ধাওয়ান দেশের হয়ে খেলেছেন মাত্র তিনটে ওয়ানডে, যেখানে তাঁর শিকার বলতে ১২ রান এবং ১ টি উইকেট।

৪.মহিত শর্মা:

চেন্নাই সুপার কিংসের হয়ে মহিতের রেকর্ড শুধু ভালো বললে ভুল হবে। বলতে হয় খুবই ভালো। মহেন্দ্র সিং ধনীর অধিনায়কত্ব কালে ২০১৩ এবং ২০১৪ তে সর্বোচ্চ সংখ্যাক উইকেট নিয়ে পারপেল ক্যাপ জেতেন তিনি। এবছর তাই তাঁকে হাতছাড়া না করার জন্য নিলামে পাঁচ কোটির বিনিময়ে কিনেছে চেন্নাই দল। কিন্তু পরিসংখ্যান ঘাটলে দেখা যায় যে আইপিএলে ঠিক যতটাই ধুন্ধুমার এই পেসার। ঠিক ততটাই কিন্তু নিরাশজনক আন্তর্জাতিক আসরে।

ভারতের হয়ে ২০১৫ তে ওয়ার্ল্ড কাপে একটু নজরকাড়লেও, তারপরে পারফমেন্সে ধারাবাহিকতা খুঁজে পাওয়া যায়নি মহিতের। দেশের হয়ে মাত্র ২৬ টা ওয়ান ডে খেলেছেন যেখানে তাঁর নেওয়া উইকেটের সংখ্যা মাত্র ৩১ টি।

৩.অশোক দিন্দা:

কোলকাতা নাইট রাইডার্সে খেলাকালীন বেশ ভালো সুনাম অর্জন করেছিলেন বাংলার এই পেসার। কোলকাতার হয়ে তাঁর রেকর্ডও বেশ ভালো, ৭ টি ম্যাচে ৯ টি উইকেট ( ইকোনমি রেট ৬.৫৬)। পরে নাইট শিবির ছেড়ে পুণের হয়ে খেললে সেখানেও ৫ টি ম্যাচে আটটি উইকেট নেওয়ার রেকর্ড রয়েছে তাঁর।

কিন্তু ভারতের হয়ে ওয়ানডে’র আসরে সেভাবে মেলে ধরতে পারেননি নিজেকে। ১২ টি ম্যাচে বোলিং করে মাত্র ১৩ টি ওয়ান ডে উইকেটের মালিক তিনি।

২.স্টুয়ার্ট বিনি:

আইপিলে তাঁর মতো অলরাইন্ডার খুঁজে পাওয়া সত্যিই মুশকিল। ২০১৫ পর্যন্ত রাজস্থান রয়ালসের একজন সামনের সারির রানদাতা ছিলেন এই বিনি’ই। ২০১৩ সালে আইপিলে মাত্র ১৭ ম্যাচ খেলে ঝুলিতে সংগ্রহ করেছিলেন ২৯৩ রান এবং ৬ টি উইকেটও।

তবে দেশের হয়ে ওতটাই মারাত্মক হয়ে উঠতে পারেননি তিনি। বাংলাদেশের হয়ে একটা ম্যাচে ৬ টা উইকেট নেওয়া ছাড়া তাঁর তেমন কোনো নজির নেই আন্তর্জাতিক আসরে।

দেশের হয়ে মোট ওয়ান ডে ম্যাচ খেলেছেন ১৩ টি যেখানে তাঁর রানসংখ্যা ২০৩, উইকেট নিয়েছেন ১৪ টি। এছাড়াও ৬ টি টেস্ট ম্যাচও খেলেছেন যেখানে মোট উইকেট নিয়েছেন ৩ টি এবং ১১ টি ইনিংস খেলে মোট রানসংখ্যা ১৯৪।

১.আক্সার প্যাটেল:

২০১৪ সালে আইপিলে সেরা খেলোয়াড়ের শিরেপা অর্জন করেছিলেন তিনি। রেকর্ডে ছিল ৬.১৩ ইকোনমি রেটে ১৭ টি উইকেট। সেখান থেকে সুনাম অর্জন করলেও পরবর্তীতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট মহলে সেভাবে প্রতিভার প্রতিফলন ঘটাতে পারেননি।

খেলেছেন মাত্র ৩৮ টি ওয়ান ডে ম্যাচ দেশের হয়ে। যেখানে উইকেট সংখ্যা মাত্র ৪৫ টি এবং রানসংখ্যা মাত্র ১৮১।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: