সেঞ্চুরি করার পর কোহলিকে নিয়ে মাইকেল ভন যা বললেন দেখলে গর্ববোধ করবেন!

ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে চলতি টেস্টে ভারতকে সমস্যা থেকে টেনে তুলে দুর্দান্ত সেঞ্চুরি করার পর বিরাট কোহলির উচ্চকিত প্রশংসা করলেন মাইকেল ভন। পরিসংখ্যান তার বিপক্ষে ছিল, পরিস্থিতি তার বিপক্ষে ছিল, এমনকী ইতিহাসও তার বিপক্ষে ছিল। যদিও সমস্তই বাধাই শেষ পর্যন্ত সামান্য পার্থক্যই গড়তে পারে কারণ বিরাট কোহলি আবারও প্রমান করে দিলেন কেন তাকে বিশ্বের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান হিসেবে ধরা হয়। এটা বিরাটের ব্যাট থেকে আসা অন্যতম সেরা স্বতঃস্ফূর্ত ইনিংস নয় কিন্তু তিনি এই সেঞ্চুরিটিকে নিশ্চিতভাবেই দীর্ঘ দিন উপভোগ করবেন।

ভারত অধিনায়ক ১৪৯ রান করেন এবং ভারত ১০০ রানে ৫ উইকেট থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে শেষ পর্যন্ত ২৭৪ রানে তাদের ইনিংস শেষ করে। মাত্র এই একটা ইনিংসই কোহলিকে ২০১৪ সফরের ভয়াবহ স্মৃতি থেকে বের করে আনে যেখানে তিনি ১০টি ইনিংসে করতে পেরেছিলেন মাত্র ১৩৪ রান। বিরাট যখন ব্যাট করতে আসেন সেই সময় ভারত ভয়ানক পরিস্থিতিতে ছিল। শিখর ধবন এবং মুরলী বিজয় ৫০ রান যোগ করে ভারতকে ভালই শুরুয়াত দিয়েছিলেন। যদিও স্যাম ক্যুরান বিজয় এবং রাহুলকে দ্রুত ফিরিয়ে দিয়ে ভারতকে ৫৪ রানে ২ উইকেটে নামিয়ে আনেন।

অন্যদিকে আরও ৫ রান যোগ করে আঊট হয়ে যান ধবনও। কয়েক মুহুর্তের জন্য কোহলি এবং রাহানে ভারতের ইনিংসকে সামলান বেন স্টোকস দ্রুত দুই উইকেট নেওয়ার আগে। এই ইংলিশ অলরাউন্ডার রাহানে এবং দীনেশ কার্তিককে দ্রুত ফিরিয়ে দিয়েছে ভারতকে ১০০/৫ রানে টেনে আনেন। কিন্তু একদিক ধরে রেখে কোহলি একাই লড়াই চালাতে থাকেন। ভাগ্যের সহায়তাও উপভোগ করেন কোহলি দুবার জীবন ফিরে পেয়ে। এবং সেই ভাগ্যের সহায়তার সম্পূর্ণ লাভ তুলে কোহলি ইংল্যান্ডে তার প্রথম সেঞ্চুরিটি করেন।

কোহলি বেন স্টোকসকে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে বাউন্ডারি মেরে নিজের সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন। নিজের ১০০ রানে পৌঁছনোর পরই কোহলি গিয়ার চেঞ্চ করেন দুই টেল এন্ডারকে সঙ্গে নিয়ে এবং ৪৯ রান যোগ করে ভারতকে ইংল্যান্ডের ইনিংস থেকে মাত্র ১৩ রান দূরে নিয়ে থামান। শেষ পর্যন্ত তার এই দুরন্ত ইনিংসের সমাপ্তি ঘটান আদিল রশিদ। তার এই ইনিংসের পর প্রাক্তণ ইংল্যান্ড অধিনায়ক মাইকেল ভন টুইট করে কোহলির ভূষয়ী প্রশংসা করেন। তিনি লেখেন, “এটা একতা অমূল্য সেঞ্চুরি। চলমান বলের বিরুদ্ধে একজন মানুষের যুদ্ধ!”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: