ভারতের কাছে হেরে যাবার পর একি বললেন জনসন..

জমজমাট অ্যাডিলেড টেস্ট ৩১ রানে জিতে নিল কোহলির ভারত। এই প্রথমবার অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টেস্ট সিরিজের শুরু জয় দিয়ে করল তারা। চতুর্থ ইনিংসে অস্ট্রেলিয়ার সামনে ৩২৩ রানের লক্ষ্যমাত্রা রেখেছিলেন ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা। বোলারদের দায়িত্ব ছিল অজিদের দশটা উইকেট তোলার। বোলাররা সেই দায়িত্ব পালন করেছেন, তবে শেষের দিকে বেশ টেনশনে পড়ে গিয়েছিলেন কোহলিরা। ১৮২ রানে ৭ উইকেট পড়ে যাওয়ার পর যখন মনে হচ্ছিল এখুনি জিতে যাবে ভারত, তখন অজি বোলাররা ব্যাট হাতে রুখে দাঁড়ালেন। কামিন্স (২৮), স্টার্ক (২৮), লায়ন (৩৮) এবং হ্যাজেলউড (১৩), প্রত্যেকেই অত্যন্ত দৃঢ় মানসিকতার পরিচয় দিয়েছেন। আর তারই প্রশংসা করেছেন প্রাক্তন অজি ফাস্ট বোলার মিচেল জনসন।

একটা সময়ে কোহলির চোখেমুখে আতঙ্কের ছাপ ফুটে উঠতে শুরু করে যখন জশ হ্যাজেলউডকে নিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে লক্ষ্যের দিকে নিয়ে যাচ্ছিলেন নাথান লায়ন। বাকি ছিল আর মাত্র ৩২ রান। অজি সমর্থকদের আওয়াজ ধীরে ধীরে জোরালো হতে শুরু করেছিল ওই সময়। ঠিক তখনই অশ্বিনের বল হ্যাজেলউডের ব্যাটের কানা ছুঁয়ে দ্বিতীয় স্লিপে কে এল রাহুলের হাতে জমা পড়ে। হেরে গেলেও এই লায়নদের এই সাহসী লড়াইয়ের প্রশংসা করে জনসন টুইট করেছেন, ‘ভারতকে অভিনন্দন। শেষ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার লড়াই দেখে ভালো লাগল। দ্রুতই এই হার থেকে বেরিয়ে এসে পার্থ টেস্টের জন্য প্রস্তুত হতে হবে যেটা শিগগিরই শুরু হবে।’

আগামী ১৪ ডিসেম্বর দ্বিতীয় টেস্ট শুরু হচ্ছে পার্থের মাঠে। সেখানে অজি অধিনায়ক টিম পেইন নিশ্চয়ই দলের ব্যাটসম্যানদের কাছ থেকে অনেক ভালো পারফর্ম্যান্স আশা করবেন। অ্যাডিলেডে দুই দলের তফাত হয়ে দাঁড়াল ব্যাটিং। চেতেশ্বর পূজারার মতো কেউ সেঞ্চুরি করতে পারেননি অজিদের দলে। দ্বিতীয় ইনিংসেও পূজারা এবং রাহানের ইনিংসের সমতুল্য কিছু করতে পারেনি অজিরা। ট্রাভিস হেড এবং শন মার্শ খারাপ না খেললেও বাকিরা একেবারেই ব্যর্থ। টিম পেইনকেও ব্যাট হাতে অনেক বেশি দায়িত্ব নিতে হবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: