শ্রীলঙ্কায় ত্রিদেশীয় সিরিজে অনেক তারকাকে বিশ্রাম দেওয়া হচ্ছে, জানুন কারা !

দক্ষিণ আফ্রিকার দীর্ঘ দেড় মাসেরও লম্বা তিন ফরম্যাটের টানা সিরিজ খেলে দেশে ফিরছে ভারতীয় দল। তবে টিম ইন্ডিয়ার তো আর বিশ্রাম হয় না। সব সময় সাবধান…মানে ক্রিকেটে টিম ইন্ডিয়া খেলে মানেই বিপুল অর্থ, টিভি সম্প্রচার স্বত্ব, স্পন্সরশিপ। আর তাই দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের পরেই শ্রীলঙ্কায় ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলতে যাচ্ছে ভারতীয় দল। ৬ মার্চ থেকে শ্রীলঙ্কা, ভারত, বাংলাদেশকে নিয়ে হবে এই ত্রিদেশীয় টি টোয়েন্টি সিরিজ। প্রতিটি দুটি রাউন্ড রবীন লিগে দুবার করে মুখোমুখি হওয়ার পর ফাইনালে খেলবে। ১৮ মার্চ হবে ফাইনাল।

শ্রীলঙ্কার ৭০তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে এক ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্টে খেলবে ভারত। সেটাই হবে ভারতের প্রথম ত্রিদেশীয় টি টোয়েন্টি সিরিজ। এই সিরিজে ভারতের বেশ কয়েকজন সিনিয়র ক্রিকেটারদের বিশ্রাম দেওয়া হবে। কারণ তারপরেই ঠাসা ক্রিকেট। কোহলিরা আইপিএলে খেলার পর যাবেন আয়ারল্যান্ড ও ইংল্যান্ডে। ইংল্যান্ডে ভাল খেলতেই হবে ভারতীয় দলকে। আর তাই দশ দিন আগে টিম ইন্ডিয়াকে ইংল্যান্ডে পাঠানো হচ্ছে।


এত সব কারণের জন্য বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মা, শিখর ধাওয়ানকে শ্রীলঙ্কায় ত্রিদেশীয় সিরিজের দলে না রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে চলেছে। কোহলি, রোহিত, ধাওয়ানদের বিশ্রামে পাঠিয়ে এই টি টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে কর্ণাটকের ঝড়ো ওপেনার মায়াঙ্ক আগারওয়ালকে পাঠানোর কথা ভাবা হচ্ছে। রঞ্জি মরসুমে ১১৬০ রান করে নজর কাড়েন মায়াঙ্ক, পাশাপাশি চলতি বিজয় হাজারে ট্রফিতে গতকাল দেড়শো রানের ইনিংস খেলে ইতিমধ্যেই ৫৫২ রান করে ফেলেছেন মায়াঙ্ক। শ্রীলঙ্কায় লোকেশ রাহুলের সঙ্গে ওপেন করতে দেখা যেতে পারে মায়াঙ্ককে। সেক্ষেত্রে কর্নাটকের দুই ওপেনারকে দেশের হয়ে ইনিংসের গোড়াপত্তন করতে দেখা যেতে পারে।

ভুবনেশ্বর কুমার ও জসপ্রীত বুমরাহকে বিশ্রাম দেওয়া হতে পারে শ্রীলঙ্কা সফরে। সেক্ষেত্রে পেস আক্রমণে মোহম্মদ সিরাজ ও বাসিল থাম্পিকে জুড়ে দেওয়া হতে পারে জয়দেব উনাদকাট ও শার্দুল ঠাকুরের সঙ্গে। ত্রিদেশীয় এই সিরিজে শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশের বিরুদ্ধে অংশ নেবে ভারত। তবে এই টুর্নামেন্ট তেমন একটা গুরুত্বপূর্ণ মনে করছে না ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। তাই এই টুর্নামেন্টকে রিজার্ভ বেঞ্চ যাচাই করার আদর্শ মঞ্চ হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে নির্বাচকদের কাছে।

ব্যাটিং অর্ডারে মায়াঙ্ক আগরওয়াল সুযোগ পেতে পারেন। বিরাট কোহলি চাইলে তাকেও সরিয়ে রাখা হতে পারে সিরিজ থেকে। পরিবর্তে রোহিত শর্মা অথবা অজিঙ্কা রাহানেকে অধিনায়ক করা হতে পারে। অক্ষর প্যাটেল প্রধান স্পিনারের ভূমিকা নিতে পারেন টুর্নামেন্টে। দলে থাকতে পারেন ওয়াশিংটন সুন্দর।

এক সিনিয়র বোর্ড কর্তা এই খবরের প্রতিক্রিয়া দিয়ে গিয়ে বলেছেন, ” এখনও কিছু চূড়ান্ত হয়নি। তবে আমরা শ্রীলঙ্কায় ত্রিদেশীয় টি টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে বেশ কয়েকজন সিনিয়র ক্রিকেটারকে বিশ্রামে পাঠানোর কথা ভাবছি। সিনিয়র ক্রিকেটারদের বিশ্রাম দেওয়াটা জরুরী। দক্ষিণ আফ্রিকায় লম্বা সফরে ওদের শরীরের ওপর বেশ চাপ পড়েছে। তিন ধরনের ফরম্যাটই খেলতে হয়েছে সিনিয়র ক্রিকেটারদরে। শারীরিক ও মানসিক দিক দিকে যা বেশ কষ্টকর। সিনিয়র ক্রিকেটারদের জায়গায় নতুন প্রতিভাবান ক্রিকেটারদের দেখে নিলে আমাদের রিজার্ভ বেঞ্চের শক্তিও যাচাই করা যাবে। শ্রীলঙ্কা সফরে সিনিয়ররা বিশ্রামপেলে তাই সব দিকেই ভাল। ভুলে গেলে চলবে ক্রিকেটাররা এরপর দীর্ঘ দেড় মাস তাদের ফ্র্যাঞ্চাইজি দলের হয়ে আইপিএলে খেলতে নামবে। আইপিএল শেষ হলেই ইংল্যান্ডের মত কঠিন সফর। তাই শ্রীলঙ্কা সিরিজের সময় সিনিয়রদের বিশ্রাম দেওয়ার সেরা সময়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: