শামির বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা, ১০ বছরের জেল?

স্ত্রী হাসিন জাহানের অভিযগের ওপর ভিত্তি করে সংবিধানের ৩০৭, ৪৯৮এ, ৫০৬, ৩২৮, ৩৪ এবং ৩৭৬ ধারায় মামলা শুরু করল পুলিস। এর মধ্যে তিনটি অভিযোগই জামিন অযোগ্য। এবং ১০ বছর বা তারও বেশি কারাদণ্ড। এই পরিস্থিতিতে শামি-র গ্রেপ্তার হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। সাতাশ বছরের এই পেশারের ৩০৭ (হত্যার চেষ্টা), ৪৯৮এ (পারিবারিক হিংসা), ৫০৬ (হুমকি), ৩২৮ (বিষ খাইয়ে ক্ষতির চেষ্টা), ৩৪ (একই উদ্দেশ্য নিয়ে বিভিন্ন ব্যক্তির আক্রমণ) এবং ৩৭৬ (ধর্ষণ) ধারা রুজু হয়েছে মহম্মদ শামির বিরুদ্ধে।


‘গত বছর উত্তরপ্রদেশে থাকার সময় শামির বড় ভাই হাসিব আহমেদ আমাকে ধর্ষণ করে’ বলে অভিযোগ জানিয়েছেন হাসিন জাহান। যদিও এখনও পর্যন্ত একটি ট্যুইটে তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন মহম্মদ শামি। হাসিনের আইনজীবী জানিয়েছেন,পুলিশকে সব অভিযোগ প্রমাণ-সহ জানিয়েছেন। এবার সামনে এসেছে তাঁরা কী কী অভিযোগ করেছেন। প্রথম থেকেই হাসিন তাঁর স্বামীর বিরুদ্ধে পারিবারিক হিংসার অভিযোগ জানিয়ে এসেছেন। এবার এর চেয়েও বিস্ফোরক অভিযোগ করেছেন তিনি । তিনি জানিয়েছেন ডিসেম্বর মাসে তিনি যখন উত্তর প্রদেশের শ্বশুর বাড়িতে গিয়েছিলেন তখন তাঁর ভাসুর অর্থাৎ শামির দাদা হাসিব আহমেদ তাঁকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। যাতে মদত ছিল মহম্মদ শামিরও। এর আগে শামি নাকি তাঁকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে মারারও চেষ্টা করেছিলেন।


নিজের ওপর আসা অভিযোগ সেই একইভাবে অস্বীকার করেছেন তিনি। হাসিন নিজের অভিযোগে জানিয়েছিলেন পাঁচ বছর ধরে তাঁর ওপর শামি সহ তাঁর শ্বশুর বাড়ির লোকজন শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার করেছেন। শামি এখানেই প্রথমে ভুল ধরেছেন তিনি বলেছেন তাঁদের বিয়ে হয়েছে চার বছর তাহলে পাঁচ বছর ধরে কী করে অত্যাচার চলতে পারে।


যদিও এরপরেও থামেনি হাসিনের অভিযোগ। তিনি একের পর এক বোমা ফাটিয়েই গেছেন। শামির নিজে কলকাতায় এসে যে বিএমডাব্লু চালান তাঁর ড্রাইভার সিটের নিচ থেকে পুরুষদের জন্মনিরোধক রেখেছেন। যে ফোনের চ্যাট থেকে এত গন্ডগোলের সূত্রপাত সেই ফোনটিও নাকি এই ড্রাইভিং সিটের নিচেই লুকানো ছিল।

এদিকে শামি নাকি দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ফেরার সময় দুবাইতে কোনও পাকিস্তানি মহিলার সঙ্গে রাত্রিযাপন করে ফিরেছেন। তারপরেই হাসিনের সঙ্গে সম্পর্ক ছেদের প্রক্রিয়া শুরু করেন। নিজের জমি বাড়ির দলিল থেকে শুরু করে সব কিছু থেকে হাসিনের নাম সরিয়ে দিচ্ছিলেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: