পূজারার ৫৩ বলে শূন্যের ঠাট্টার মাঝে জানুন টেস্টের শামুক গতির ব্যাটিংয়ের ঘুমন্ত পাঁচ

বুধবার জোহানেসবার্গে তৃতীয় টেস্টের প্রথম দিনে শুরুতেই দুই ওপেনারকে হারিয়ে ধাক্কা খায় টিম ইন্ডিয়া। ক্রিজে তখন চেতেশ্বর পূজারা ও বিরাট কোহলি। দক্ষিণ আফ্রিকান বোলারদের আগুনে গতি সামলে পূজারা প্রথম রান করলেন ৫৪ তম বলে। ৫৩ বল খেলেও তাঁর ব্যাট কোনও রান আসেনি। প্রায় ৯০ মিনিট কাটানোর পর রান করলেন পূজারা। তবে এদিন অর্ধ শতরান করেন তিনি। চেতেশ্বর পূজারা অবশ্য ভারতের হয়ে এক অদ্ভুত নজির গড়লেন। এদিন বলের হাফ সেঞ্চুরি পেরিয়ে যাওয়ার পরও ব্যাটে কোনও রানই করতে পারেননি পূজারা। ৫৪ তম বলে ব্যাটে প্রথম রান করেন।

পূজারার ৫৩ বলে শূন্য রান দেখে ক্লান্ত। নিন দেখে নিন টেস্ট ক্রিকেটের সেরা শামুকগতির ব্যাটিংয়ের ঘুমন্ত ছয়।

৬) হানিফ মহম্মদ (পাকিস্তান)- ২২৩ বলে ২০ রান।। লর্ডসে, ১৯৯৪, ইংল্যান্ড

৫) আলেক্স ব্যানারম্যান (অস্ট্রেলিয়া)- ৬২০ বলে ৯১ রান।।

৪) হার্বি কলিন্স (অস্ট্রেলিয়া)- ৩৪০ বলে ৪০ রান।। ম্যানচেস্টারে, ১৯২১ সালে

৩) জন মারে (ইংল্যান্ড)- ১০০ বলে ৩ রান।। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সিডনি, ১৯৬৩ সালে

২) যশপাল শর্মা (ভারত)- ১৫৯ বলে ১৩ রান।। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে অ্যাডিলেড, ১৯৮১ সালে

১) জিওফ অ্যালোট (নিউজিল্যান্ড)- ৭৭ বলে ০ রান।। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে, ১৯৯৯ সালে অকল্যান্ড

আরও ধীর ইনিংসের কিছু নমুনা

২০১৫ সালের ডিসেম্বরে দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলায় ২৪৪ বলে ২৫ রান করেছিলেন হাশিম হামলা। এটাই ছিল বেশি বল খেলে কম রান করার রেকর্ড। এর আগে ১৯৬৩ সালে সিডনিতে ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচেই জন মারে ১০০ বল খেলে মাত্র ৩ রান করেছিলেন! এসব এখন অতীত।

 

ক্রিকেটের ইতিহাসে ১১৯ বল খেলে শূন্য রানে অপরাজিত থাকার মতো ঘটনা এর আগে কখন ঘটেনি। সম্প্রতি সেই ঘটনাও ঘটে গেলো। নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটার ফ্রেজার উইলসন ১২৬ মিনিট ব্যাট করে ১১৯ বল খেলে কোনো রানই করেননি। আরও অবাক করা ঘটনা হল-পুরো সময় তিনি এক চোখ দিয়ে দেখে ব্যাট করছিলেন।

হক জোন কাপের এলিমিনেশন পর্বে সাউথল্যান্ডের বিপক্ষে ব্যাট করছিলেন ওটেগোর অধিনায়ক ফ্রেজার উইলসন। তিনি তার সতীর্থ টম মাইলসের সঙ্গে ২৩ ওভার ব্যাট করেন। মাইলস ৬৮ বলে ২৮ রান করলেও ফ্রেজার কোনো রান করেননি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: