বিরাট, রোহিতের অনুপস্থিতে ভারতীয় দলকে নেতৃত্ব দিতে পারেন এই তিন জন!

খবর অন্যযায়ী সিনিয়ার প্লেয়ারদের তালিকায় যাদের নিদাহাস ট্রফিতে বিশ্রাম দেওয়া হতে পারে, তাদের অবর্তমানে কয়েকটি নাম সামনে উঠে আসছে যাদের অধিনায়কত্বের জন্য নির্বাচন করা হতে পারে। বহু প্লেয়ারই যারা দলের অঙ্গ তারা এই অধিনায়কত্বের দৌড়ে রয়েছেন। এখানে তিনজন প্লেয়ারদের নিয়ে আলোচনা করা হল যাদের সম্ভবত ২০১৮র নিদাহাস ট্রফির জন্য অধিনায়ক হিসেবে নিয়োগ করা হতে পারে।

শিখর ধবন

যদি বিরাট এবং রোহিত শর্মাকে বিশ্রাম দেওয়া হয় তাহলে এই ভারতীয় ওপেনারের কাছে উজ্জ্বল সুযোগ রয়েছে এই টি২০ টুর্নামেন্টে দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার। ধবনের কাছে যথেষ্টই অভিজ্ঞতা রয়েছে এবং এই কাজের জন্য তিনি একজন অন্যতম শক্তিশালী প্রতিদ্বন্ধী। তিনি এই ফর্ম্যাটের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান এবং তিনি দলের একজন নিয়মিত সদস্যও। অতীতে তিনি দিল্লিকে ঘরোয়া ক্রিকেটে নেতৃত্ব দিয়েছেন এবং যদি তাকে আসন্ন সিরিজে সুযোগ দেওয়া হয় তাহলে এই অভিজ্ঞতা তাকে যথেষ্টই সাহায্য করবে। যদি ধবনকে এই অপরচুনিটি দেওয়া হয় তাহলে এটাই প্রথমবার হবে যখন তিনি আন্তর্জাতিক স্তরে দলকে নেতৃত্ব দেবেন।

কেএল রাহুল

  যদিও তিনি এই মুহুর্তে বেশ কঠিনভাবেই দলের প্রথম একাদশে নিজের জায়গা বানাবার চেষ্টা করে চলেছেন, কিন্তু এটাও বাস্তব যে অন্যান্য অনেক প্লেয়ারের থেকেই তিনি অনেক বেশি যোগ্য প্রথম একাদশে নিজের জায়গা বানানোর জন্য। যদি শ্রীলঙ্কায় দ্বিতীয় সারির দল পাঠানো হয় তাহলে রাহুল অন্যতম সেরা অপশন হতে পারেন এই সফরে দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য। তিনি একজন অন্যতম প্লেয়ার যিনি তিন বছরেরও বেশি সময় ধরে দলে খেলছেন। যখন এমএস ধোনি অধিনায়কত্ব ছেড়ে দিয়েছিলেন সেই সময় তিনি টি২০তে পূর্ণ সময়ের জন্য অধিনায়কত্বের দাবীদার হতে পারতেন, কিন্তু ভারতীয় দল প্রতিটি ফর্ম্যাটের জন্য আলাদা অধিনায়কত্বের কনসেপ্টে বিশ্বাসী ছিল না এবং বিরাট কোহলিকে পূর্ণ সময়ের জন্য অধিনায়ক নিয়োগ করা হয়। আইপিএলের পর ভারতীয় দলের দীর্ঘ মরশুমে খেলার নিশ্চিত হয়ে রয়েছে এবং এটাই সময় যখন রোহিত এবং কোহলি দুজনকেই একই সময়ে বিশ্রামে পাঠানো হতে পারে, এবং তারপরই কেএল রাহুল সবসময়ই নেতৃত্ব দিতে পারেন।

সুরেশ রায়না

এটা নিয়ে কোনও সন্দেহই নেই যে রায়না ত্রিদেশীয় টি২০ দলে জায়গা পাবেন, তা তিনি দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে শেষ টি২০ ম্যাচে রান করুন বা নাই করুন। যদি ভারত এই ট্রাই সিরিজে সেফলি খেলতে চায়, তাহলে বাস্তব এটাই যে তারা দলের সিনিয়রদের বিশ্রাম দিতে চাইবে, সেক্ষেত্রে রায়না সঠিক অপশন হিসেবে উপলব্ধ রয়েছেন। এছাড়াও অতীতে তার ভারতীয় দলকে নেতৃত্ব দেওয়া অভিজ্ঞতাও রয়েছে, যা সবসময়েই খেলায় বিচার্য হতে পারে। এছাড়াও এখন তার আইপিএলের দুটি সংস্করণে দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার অভিজ্ঞতাও রয়েছে যা তার অধিনায়কত্ব পাওয়ার দাবীতে বাড়তি ওজন যোগ করবে। বাস্তবে যদি রোহিত এবং বিরাটকে বিশ্রাম দেওয়া হয় তাহলে এই আসন্ন সিরিজে এই কাজের জন্য তিনিই সবচেয়ে কঠিনতম প্রতিযোগী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: