২০১৯ সালে প্রথম বিশ্বকাপ খেলতে চলেছেন পাঁচ ভারতীয় তারকা!

বর্তমানে ধার-ভার ও প্রতিভার বিচারে ভারতীয় ক্রিকেট দলই সবচেয়ে শক্তিশালী অন্যান্য ক্রিকেট খেলিয়ে বড় দেশুলির তুলনায়। ব্যাটিং, বোলিং আর ফিল্ডিং – তিনটি বিভাগেই ভারতীয় দল দুর্দান্ত ক্রিকেট উপহার দিচ্ছে। সাম্প্রতিক সময়ে ক্রিকেটের তিনটি ফরম্যাটেই ভারতীয় দলের আধিপত্য আইসিসি ব়্যাঙ্কিংয়েও স্পষ্ট। ভারতীয় ক্রিকেট দল তিনটি ফরম্যাটেই এতো উন্নতি করার কারণ, হাতে গোনা তিন-চার জন ক্রিকেটার ছাড়া প্রতিটি ফরম্যাটেই আলাদা আলাদা স্পেশালিস্ট ক্রিকেটার ব্যবহার করা হচ্ছে। এতে যেমন ক্রিকেটাররা তরতাজা থাকছেন, তেমনই নিজেকে আরও বেশি করে জাহির করার উদ্দেশে নিজের সেরাটা দেওয়ায়, ভারতীয় ক্রিকেট উপকৃত হচ্ছে। ফিটনেসের দিক থেকে বর্তমানে ভারতীয় দল অন্যতম সেরা।

ইংল্যান্ড ও ওয়েলসে পঞ্চাশ ওভারের ফরম্যাটের দ্বাদশ বিশ্বকাপের আসর বসতে হাতে আর বছর খানেকও সময় নেই। ২০১৯ সালের মে মাসের তিরিশ তারিখ প্রথম ম্যাচ। চলবে সেই ১৪ জুলাই পর্যন্ত। এতো বড় একটা মেগা টুর্নামেন্টে শেষ পর্যন্ত টিকে থাকতে হলে ভারতীয় ক্রিকেটারদের তরতাজা থাকা জরুরি। আর সেই লক্ষ্যে নির্বাচকদের ঘুরিয়ে ফিরিয়ে তারকা ক্রিকেটারদের খেলাতে হবে। কারণ, ভারতীয় দলে এখন প্রতিভার ছড়াছড়ি। তাঁদেরকে যেমন বসিয়ে রেখে জঙ ধরানো যাবে না, তেমনই অতিরিক্ত ক্রিকেট খেলিয়ে আসল মুহূর্তের আগে নিংড়ে নেওয়া তো আরই যাবে না। এই মুহূর্তে বিশ্বকাপের আগে ভারতীয় দলের হাতে যে ক’টি ম্যাচ রয়েছে, তাতে রোটেশন পলিসি আরও বেশি করে প্রয়োগ করতে হবে বিসিসিআই’কে।

২০১১ বিশ্বকাপে ভারত শেষবার বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। ২০১৫ সালে সেমিফাইনাল পর্যন্ত গিয়েও ভারত থেমে যায়। সেই দলের অনেকেই আগামী বিশ্বকাপে থাকছেন। তবে, এবার বেশ কিছু নতুন মুখও দেখা যাবে। তাঁদের মধ্যেই পাঁচ ক্রিকেটারকে এই প্রতিবেদন তুলে ধরা হলো, যাঁরা বিশ্বকাপের ডেবিউ মঞ্চে নির্ণায়ক ভূমিকা নিতে পারেন –

৫. হার্দিক পান্ডিয়া

দেড় বছরের মধ্যে বরোদার পেস বোলিং অলরাউন্ড প্রতিভা জাতীয় দলে নিজের জায়গা অনেকটাই জোরালো করে ফেলেছেন। বিরাট কোহলির দলের অন্যতম সম্পদও বলা হচ্ছে তাঁকে। অনেকে আবার তাঁকে অতীত দিনের গ্রেট অলরাউন্ডারদের সঙ্গে তুলনা করা শুরু করে দিয়েছেন। সীমিত ওভারের ক্রিকেটে হার্দিকের পেস বোলিং মাঝের ওভারে অধিনায়কের হাতে বৈচিত্র এনে দিয়েছে। লোয়ারে-অর্ডারে তাঁর মতো একজন আক্রমণাত্মক ব্যাটসম্যান থাকায় অনেকটা ভরসাও বেড়েছে। তবে, ২০১৯ বিশ্বকাপে কেমন খেলেন, তার ওপরেই নির্ভর করছে আগামী দিনে জাতীয় দলে হার্দিকের ভবিষ্যৎ।

৪. জসপ্রীত বুমরাহ

সীমিত ওভারের ক্রিকেটে ভারতীয় দলের হয়ে একটানা ভালো পারফর্ম করে চলায় বুমরাহ’র জন্য টেস্টের আসরের দরজাও খুলে দিয়েছেন নির্বাচকরা। এখন সেখানে জায়গা পাকা করতে হলে আগামী দিনে জসপ্রীতকে আরও ভালো বোলিং তুলে ধরতে হবে। বর্তমানে আইসিসি ব়্যাঙ্কিংয়ে ওডিআই ও টি-২০ ফরম্যাটে সেরা দুই বোলারের মধ্যে অন্যতম ভারতের এই ডেথ ওভার স্পেশালিস্ট বোলার। সবকিছু ঠিকঠাক চললে ২০১৯ বিশ্বকাপ বুমরাহ’র কেরিয়ার অন্যতম মাইলস্টোন হতে চলেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: