ভিডিও : অশ্বিনের জাদুতে বেসামাল অস্ট্রেলিয়া!

আর ছ’টা উইকেট। চারজন মিলে ভাগাভাগি করে তুলে নিতে পারলেই প্রথম টেস্ট জিতে সিরিজে ১-০ এগিয়ে যাবে ভারত। চতুর্থ দিনের শেষে অস্ট্রেলিয়া চার উইকেট হারিয়ে ১০৪ রান তুলেছে। ম্যাচ জিততে গেলে তাদের এখনও ২১৯ রান করতে হবে যা অসম্ভব বলেই মনে হচ্ছে। অ্যাডিলেডের মাঠে চতুর্থ ইনিংসে ৩২৩ রান করে ম্যাচ জেতেনি কোনও দলই। কাজেই এখান থেকে একমাত্র ভারতই ম্যাচ জিততে পারে। পিচের যা অবস্থা তাতে রবিচন্দ্রন অশ্বিনের ওপরেই সবচেয়ে বেশি ভরসা করবেন অধিনায়ক কোহলি। বাঁ হাতি ব্যাটসম্যানদের অফস্টাম্পের বাইরে ফুটমার্ক তো আছেই, ডানহাতিদের অফস্টাম্পেও তৈরি হয়েছে ক্ষত, যার প্রধান কারণ মিচেল স্টার্ক।

ভারত আজ দিনের শুরুটা খারাপ করেনি। প্রথম সেশনে দুটো উইকেট পড়ে। তার আগে চেতেশ্বর পূজারা (৭১), এবং অজিঙ্ক রাহানে (৭০) দলকে অনেকটা এগিয়ে নিয়ে যান। কিন্তু ফের ব্যর্থ রোহিত শর্মা। মাত্র ১ রানে লায়নের বলে আউট হয়ে পাভিলিয়নে ফিরে যান তিনি। ঋষভ পন্থ টি-টোয়েন্টি স্টাইলে ব্যাট চালিয়ে ১৬ বলে ২৮ রান করলেও, টেল-এন্ডাররা কিছুই করতে পারেনি। শেষমেশ ভারত অস্ট্রেলিয়ার সামনে ৩২৩ রানের টার্গেট খাড়া করে। কোহলি নিশ্চয়ই ৩৫০ আশা করেছিলেন তবে এই পিচে ৩২৩ করাও অসম্ভব বলেই মনে হচ্ছে।

 

চতুর্থ ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভারেই ইশান্ত শর্মার বিষাক্ত ইনসুইংয়ে এলবিডব্লু হয়ে যান অ্যারন ফিঞ্চ। কিন্তু ডিআরএসে দেখা যায় ওভারস্টেপ করে ফেলেছেন ইশান্ত। দ্বিতীয় জীবন পেয়েও মাত্র ১১ রানে অশ্বিনের বলে ব্যাট-প্যাড হয়ে সাজঘরে ফিরে যান ফিঞ্চ। নবাগত মার্কাস হ্যারিস (২৬) ভালোই খেলছিলেন কিন্তু শামির বলে খারাপ শট খেলে ফিরে যান। যার ওপর প্রাক্তন অজি ক্রিকেটাররা ভরসা করছেন সেই উসমান খোয়াজা ক্রিজে একদমই সাচ্ছন্দ্য বোধ করছিলেন না। স্ট্রাইক রোটেট করতে না পেরে অশ্বিনকে তুলে মারতে যান। কিন্তু রোহিতের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরতে হয় তাঁকে। এরপর আউট হন পিটার হ্যান্ডসকম্ব। শন মার্শ একদিকে ৩১ রানে এবং অন্যদিকে ট্রাভিস হেড ১১ রানে টিকে আছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: