বিশ্বর সেরা পাঁচ জন অলরাউন্ডার; তালিকায় এক ভারতীয়!

ক্রিকেট গ্রহের সেরা আসর আইসিসি’র ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ। দেখতে দেখতে আরও একটা ওডিআই বিশ্বকাপের সময় এসে গেলো। এক বছরও আর হাতে নেই। ২০১৯ সালের ৩০ মে প্রথম ম্যাচ আয়োজক দেশ ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যে। ১৪ জুলাই ফাইনাল ম্যাচ খেলা হবে। এবার দশটি টিমকে নিয়ে লিগ পর্বের খেলা হবে। আলাদা আলাদা কোনও গ্রুপে ভাগ করা হচ্ছে না অংশ নেওয়া দলগুলিকে। ফলে, প্রত্যেক টিমকে একে অপরের বিরুদ্ধে একটি করে ম্যাচ খেলতে হবে। আর তারপর সেমিফাইনাল পর্ব আসবে লিগের সেরা চারটি দলকে নিয়ে।

ক্রিকেটে অলরাউন্ডারদের বরাবরই চাহিদা রয়েছে। আর এই নির্ভরতা যতটা বেড়েছে, ততই অলরাউন্ডারের সংখ্যাও বেড়েছে। টিমে একজন অলরাউন্ডার থাকার মানে অতিরিক্ত একজন ক্রিকেটার খেলানোর মতো। আর যে টিমে যত ভালো কোয়ালিটি অলরাউন্ডার রয়েছে, সেই টিম তত বেশি অ্যাডভান্টেজে। বিশ্বকাপের মতো মেগা টুর্নামেন্টে বিপক্ষ দলগুলিকে চমকে দিতে টিমে এক্স-ফ্যাক্টর অবশ্যই চাই। যে টিম এই বিভাগে এগিয়ে থাকবে, তাদের দৌড় ততটাই লম্বা হবে।

২০১৯ ইংল্যান্ড ও ওয়েলস বিশ্বকাপে যে পাঁচ অলরাউন্ডার নজর কাড়তে পারেন –

৫. মিচেল স্যান্টনার (নিউজিল্যান্ড)

কিউয়ি অলরাউন্ডার আন্তর্জাতিক আসরে এখন প্রতিষ্ঠিত নাম। টিমের হয়ে ধারাবাহিক পারফর্ম্যান্স দেখিয়ে আসছেন। গত দু’বছর ধরে নিউজিল্যান্ডের টিমের অন্যতম অঙ্গ হয়ে উঠেছেন স্পিনিং অলরাউন্ডার স্যান্টনার। মাঝের ওভারে তাঁর বাঁহাতি স্পিন বোলিংয়ের সামনে বিপক্ষ টিমের ব্যাটসম্যানরা হাসফাঁস করতে শুরু করেন। পেস সহায়ক পিচেও স্যান্টনার অতি কৃপণ বলহাতে। কেরিয়ারের ইকনমি রেট ৪.৯০। সময়ের সঙ্গে ব্যাটিংয়েও উন্নতি করে ফেলেছেন কিউয়ি তারকা। ২০১৯ বিশ্বকাপে বড় ভূমিকা নিতে পারেন স্যান্টনার।

৪. মঈন আলি (ইংল্যান্ড)

একত্রিশ বছরের মঈন ব্যাট ও বল – দুই বিভাগেই খুব খাটছেন। ইংলিশ টিমে মঈন এখন একজন খাঁটি স্পিনিং অলরাউন্ডার। উপমহাদেশের বাইরে পেস বোলিং অলরাউন্ডারের সংখ্যাধিক্য। আর সেখানেই বৈচিত্র এনেছেন মঈন। টেস্টের আসরে বিবেচ্য না হলেও স্পিনিং অলরাউন্ডার আলি সীমিত ওভারের ক্রিকেটে অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ ইংলিশ টিমের। ব্যাটহাতে টপ অর্ডারে আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেলারও দম রয়েছে মঈনের মধ্যে। বিশেষ করে আলি স্পিন খেলতে দক্ষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: