প্রচুর পরিমাণ আয় করলেও, বিশ্বের ধনী ক্রিকেটারের তালিকায় তিনে বিরাট

ক্রিকেট এখন এতোটা অর্থ যে ভাবাই যায় না। একবার জাতীয় দলের বড় ক্রিকেটার হয়ে উঠতে পারলে, আর দেখতে হবে না। ধনকুবের হয়ে যাবেন। ভারতের মতো ক্রিকেট গ্রহের অনেক দেশেই এই খেলাটাকে মাথায় তুনে নিয়ে নাচেন অনুরাগীরা। বর্তমানে ক্রিকেটাররা, দেশের বোর্ডের চুক্তির বাইরে স্পনসরশিপ এবং বিদেশে টি-২০ লিগ খেলে এতোটাকা আয় করেন, যে আশি নব্বইয়ের দশকে এটাই কল্পনা ছাড়া আর কিছু ছিল না। সময় বদলানোর সঙ্গে সঙ্গে ক্রিকেটে টি-২০ ফরম্যাট থাবা বসিয়েছে। গ্ল্যামারে বাকি দুই ফরম্যাটকে ছাপিয়ে যাচ্ছে দিনদিন। আর ব্যাঙ্ক আকাউন্টে আয়ের পরিমাণ ফুলেফেঁপে উঠছে ক্রিকেটারদের।

টি-২০ ক্রিকেটের বাড়বাড়ন্তের প্রধান কারণ কিন্তু ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ। গত দশ বছরে এই টি-২০ লিগ দেখে ক্রিকেটে খেলিয়ে আরও বেশ কয়েকটি দেশে আইপিএলের ধাঁচে টি-২০ লিগ শুরু হয়েছে। বিদেশি বহুতারকা তাতে অংশ নিচ্ছেন। আর সেইসঙ্গে বিপুল পরিমাণ পারিশ্রমিক নিয়ে ধনকুবের হয়ে উঠছেন। ক্রিকেট সংক্রান্ত খবর পরিবেশন করা জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ইএসপিএলক্রিকইনফো’র সমীক্ষার তথ্য বলছে, ভারতীয় ক্রিকেটাররা আইপিএল ছাড়াই এতো টাকা আয় করেন, যা অন্য কোনও দেশের তারকারা পান না। বিদেশে অনেক টি-২০ লিগ শুরু হলেও, এই কারণে ভারতীয় তারকাদের তাতে অংশ নিতে দেখা যায় না। তাছাড়া, ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড যে অর্থবলে বলিয়ান, তা গত দু’দশক ধরে সবাই বলে আসছে। ভারতের একজন টেস্ট ক্রিকেটার ম্যাচ প্রতি ২৩ হাজার ৩৮০ মার্কিন ডলার আয় করেন। একজন অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার নাকি দেশের মাটিতে টেস্ট ম্যাচ খেললে তার অর্ধেক পরিমাণ অর্থ পান। আর বিদেশের মাটিতে বিভিন্ন দেশ অনুযায়ী তাঁদের ম্যাচ ফি দেওয়া হয়।

ওই ওয়েবসাইট যে সমীক্ষাটি চালিয়েছে, তাতে আন্তর্জাতিক তারকাদের দেশের হয়ে খেলে যা হয়, শুধুমাত্র তাই অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। অন্য ক্রিকেট খেলিয়ে দেশের মাটিতে গিয়ে তাদের ঘরোয়া টি-২০ লিগে অংশ নিয়ে অতিরিক্ত আয়ের অর্থ এতে যোগ করা হয়নি। সমীক্ষা বলছে, আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলে আয়ের দিক থেকে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ সবচেয়ে দামি ক্রিকেটার। নতুন পলিসি চালু হলে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলিও তাঁর থেকে অনেক বেশি আয় করবেন চুক্তি ও ম্যাচ ফি বাবদ। এখানে বলে রাখা ভালো, ভারতীয় দলের মতো অস্ট্রেলিয়ান এবং ইংলিশ ক্রিকেটাররা তাঁদের দেশের বিজ্ঞাপনে মুখ দেখান না। ফলে, তাঁদের মাইনে বেশি। আবার ভারতীয় দলের ক্রিকেটারদের মতো বিদেশি ক্রিকেটারদের সারা বছর এত ক্রিকেট ম্যাচও খেলতে হয় না।

সমীক্ষা উঠে আসা সেরা দশের তালিকায় যে যে ক্রিকেটারদের নাম রয়েছে, বছরে তাঁদের ওই অর্থ হয় দেশের ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে চুক্তি থেকে এবং ম্যাচ প্রতি পারিশ্রমিক বাবদ বর্তমানে সেরা দশ ধনকুবের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার –

১০. গ্রেম ক্রেমার (জিম্বাবোয়ে)

বছরে আয় ৯০ হাজার মার্কিন ডলার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: