অর্থের লোভে ৭২ বছর বয়সী বৃদ্ধকে বিয়ে করেছিলেন এই অভিনেত্রী, কিন্তু হঠাৎই ডিভোর্স দিলেন কেন!

তারকারা সাধারণত প্রেম বা বিয়ের ক্ষেত্রে বয়সকে অতটা গুরুত্বপূর্ণ চোখে দেখেন না। লাইফপার্টনার হোকনা নিজের বয়সের তুলনার অনেক ছোটো কিংবা অনেক বড়ো ওসব তারা নেহাতই তুড়ি মেরে উড়িয়ে দেন। তার প্রত্যক্ষদর্শন আমরা বহুবার পেয়েছি। বলিউড হলিউডের বহু তারকার জীবনেও ঘটে এসেছে এই ঘটনা। জল্পনা হয়েছে মিটেও গেছে। কিন্তু এবার যা হলো তা নিয়ে কার্যত চাপানউতোরের শেষ নেই সোশ্যাল মিডিয়ায়। ঘটনাটি যদিও বলিউড বা হলিউডের নয়।

থাইল্যান্ডের উঠতি তরুণ অভিনেত্রী এবং মডেল নং নাটের ডিভোর্সকে কেন্দ্র করে তোলপাড় সোশ্যাল মিডিয়া। সূত্র মতে এই অভিনেত্রী নাকি কিছুদিন আগে বিয়ে করেছিলেন ৭২ বছর বয়সী এক বৃদ্ধকে। আমেরিকান মুগল হারোল্ডকে বিয়ে করার হঠাৎই ইন্ডাস্ট্রি থেকেও বেমালুম হাওয়া হয়ে গিয়েছিলেন এই থাই অভিনেত্রী। তবে এবার নাকি হারোল্ডের কাছ থেকে ডিভোর্স চায় তিনি। আর কেনই বা চান ডিভোর্স তা শোনার পর সকলেই হতবাক।

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে হারোল্ডের সাথে নাকি মোটেই ভালো চলছিলো না তার যৌন জীবন। অভিনেত্রী এমনটাও নাকি বলেছে যে তার ভয় করে যে হারোল্ডের সাথে সঙ্গম করলে এই বয়সে হার্ট ফেলই না করে যায়। তাই বর্তমানে ডিভোর্সও চাইছেন তিনি।

কিন্তু তাহলে যেনে শুনেই এই বৃদ্ধকে বিয়ে করেছিলেন কেন থাই অভিনেত্রী নং নাট ? শোনা যায় নাকি ২০১২ সালে তাদের আলাপ হয় সেখানে নং নাটের ভালো লাগে হারোল্ডকে। আর তারপর থেকে হারোল্ডের কথাবার্তা এবং আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে তারমতো একজন বয়জ্যেষ্ঠ লোককেই বিয়ে করবেন বলে স্থির করেন থাই অভিনেত্রী। স্বামীর কথা অনুযায়ী নাকি বিয়ের পর বৌদ্ধ ধর্মও গ্রহণ করে সে।

কিন্তু বিয়ে করে ব্যক্তিগত জীবনে মোটেই সুখে ছিলেন ‘এশিয়ান হার্ট’, ‘টোকিও হান্টার’ সিনেমার এই অভিনেত্রী। তাই অবশেষে ডিভোর্স পর্যন্ত গিয়ে পৌঁছালো তাদের সম্পর্ক। কিন্তু ডিভোর্সের কারণ শুনে তার ফ্যানেরা নিন্দে না করলেও, ব্যাঙ্গাত্মক মন্তব্য করতে দেখা গেছে এখনও অনেককেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: