ইঞ্জিনিয়ারিং পাঠ্যক্রমের সিলেবাস বদল, দেখে নিন!

শুনতে অবাক লাগছে? ভুল পড়ছেন কিনা ভাবছে? অবাক হবে না আপনি ঠিকই পড়ছেন। হ্যাঁ এবার থেকে ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজগুলোতে হবু ইঞ্জিনিয়ারদের পড়তে হবে ভারতীয় শাস্ত্র অর্থাৎ বেদ, পুরাণ এবং তর্কশাস্ত্র। এমনই নির্দেশ জারি করেছে অল ইন্ডিয়া কাউন্সিল ফর টেকনিক্যাল এডুকেশন সংক্ষেপে এআইসিটিই। কিন্তু হঠাৎই বা এমন সিদ্ধান্ত কেন নেওয়া হল এআইসিটিইর তরফে? এ ব্যাপারে কেন্দ্রীয় মানসব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী প্রকাশ জাভেরেকর জানিয়েছেন, “এই নতুন বিষয়গুলি ভবিষ্যতের ইঞ্জিনিয়ারদের সঙ্গে সমাজের সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় করবে”।

এছাড়াও এআইসিটিইর তরফে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে ইঞ্জিনিয়ারিং পাঠ্যক্রমে বেদ পুরাণের মত ভারতীয় শাস্ত্রগুলি ছাড়াও যোগ হচ্ছে পরিবেশ বিদ্যা, সংবিধান, ভারতীয় দর্শন, এবং ভাষাবিদ্যার মত বিষয়গুলিও। এবং এই সমস্ত বিষয়গুলি বাধ্যতামূলকভাবেই পড়তে হবে ইঞ্জিনিয়ার পাঠ্যক্রমের ছাত্রদের। সম্প্রতি এআইসিটিই তাদের সিলেবাসে বেশ কিছু বদল এনেছে। আর সেই নতুন সিলেবাসেই যোগ হয়েছে এই বিষয় গুলি। তবে বেশ কিছু মহলের মতে ইঞ্জিনিয়ারিং পাঠ্যক্রমে থিয়োরি কম করে বাড়ানোর হবে প্র্যাক্টিক্যালের ক্লাস। প্রসঙ্গক্রমে বলা যেতে পারে যে প্রত্যেক বছরই ভারতের শিক্ষা পরিসংখ্যান অনুযায়ী সারা দেশের ৩ হাজার ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ থেকে মোট ৭ লক্ষ্য ছাত্র ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করে। এদের মধ্যে চাকরি পায় মাত্র অর্ধেক সংখ্যক ছাত্র। যদি ২০১৫ এবং ১৬ শিক্ষাবর্ষের পরিসংখ্যান দেখা যায় তাহলে দেখা যাবে সারা দেশ থেকে মাত্র ৩,৩৪,০০০ জন বিভিন্ন ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ থেকে ক্যাম্পাসিংয়ের মাধ্যমে চাকরি পেয়েছেন। ফলে এই নতুন সিলেবাস বর্তমান ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্রদের কাছে আরও বাধার সম্মুখীন হয়ে উঠবে বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: